অবশেষে ভারতের কোচ হলেন রবি শাস্ত্রী

15

এমএনএ স্পোর্টস ডেস্ক : অবশেষে সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটল। ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রধান কোচের দায়িত্ব সঁপে দেয়া হলো এতোদিন টিম ডিরেক্টর হিসেবে দায়িত্ব পালন করা রবি শাস্ত্রীর হাতেই। ২০১৯ বিশ্বকাপ পর্যন্ত টিম ইন্ডিয়ার কোচ হিসেবে তাকে মনোনীত করে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)।

আজ মঙ্গলবার বিসিসিআইয়ের ক্রিকেট উপদেষ্টা কমিটি (সিএসি) শাস্ত্রীর নাম অনিল কুম্বলের স্থলাভিষিক্ত হিসেবে ঘোষণা করে।

অধিনায়ক কোহলি এবং বিসিসিআইয়ের কমিটি অব এডমিনিস্ট্রেশনের সঙ্গে আলোচনা করেই শাস্ত্রীর নাম ঘোষণা করে সৌরভ গাঙ্গুলি, শচীন টেন্ডুলকার এবং ভিসিএস লক্ষ্মনের সমন্বয়ে গঠিত কমিটি।

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালের পর অধিনায়ক বিরাট কোহলিদের সঙ্গে দ্বন্দ্বের জের ধরে গত মাসের শেষের দিকে ভারতীয় দলের প্রধান কোচের পদ থেকে পদত্যাগ করেন অনিল কুম্বলে।

সেই পদে রবি শাস্ত্রী কিংবা বীরেন্দর শেবাগ বসবেন বলেই জোর আলোচনা চলছিল। কোচ হওয়ার দৌড়ে টিকে ছিলেন টম মুডিও। তবে শেষ পর্যন্ত শাস্ত্রীকেই বেছে নিল সিএসি।

এর আগে গতকাল সোমবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার মধ্যে আগ্রহী প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার শেষ হয়। সাক্ষাৎকার নেয় সিএসি। আবেদনকারী ১০ জনের মধ্য থেকে বোর্ড ছয়জনের সংক্ষিপ্ত তালিকা তৈরি করে।

তাদের মধ্য থেকে ফিল সিমন্স ব্যক্তিগত ব্যস্ততার কারণে সাক্ষাৎকারে অংশ নিতে পারেননি। শাস্ত্রী ছাড়া সাক্ষাৎকারে অংশ নেয়া অপর চারজন হলেন- টম মুডি, বীরেন্দর শেবাগ, রিচার্ড পাইবাস ও লালচাঁদ রাজপুত।

সাক্ষাৎকারের আগেই অধিনায়ক কোহলির সঙ্গে যোগাযোগ করে সিএসি। তবে কোচ হিসেবে বিশেষ পছন্দের কেউ নেই বলে জানিয়ে দেন তিনি।

গতকাল সোমবার সন্ধ্যায়ই কোচের নাম ঘোষণা করার কথা ছিল বিসিসিআইয়ের। তবে অধিনায়ক কোহলির সঙ্গে আলোচনা করে তবেই সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানিয়ে দেন গাঙ্গুলি। একদিন পরই আসল চূড়ান্ত ঘোষণা।

আগামী ২৬ জুলাই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথমটিতে মুখোমুখি হবে ভারত। সেই গুরুত্বপূর্ণ সিরিজের আগেই নতুন কোচ পেল টিম ইন্ডিয়া।

২০১৪ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত ভারতের টিম ডিরেক্টর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন শাস্ত্রী। ফলে কোহলিদের সামলাতে হিমশিম খেতে হবে না ভারতের সাবেক অধিনায়কের।

শাস্ত্রীর অধীনে দারুণই খেলেছিল ভারতীয় ক্রিকেট দল। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ জেতা টিম ইন্ডিয়া ২০১৫ বিশ্বকাপের এবং ২০১৬ ওয়ার্ল্ড টি-টোয়েন্টির সেমিফাইনালে ওঠে।

এছাড়া অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয় করে ভারত এবং এশিয়া কাপের শিরোপা ঘরে তোলে।