আদালতে জঙ্গিদের মাথায় আইএস টুপি কীভাবে এলো?

এমএনএ রিপোর্ট : আদালতে জঙ্গিদের মাথায় জঙ্গিগোষ্ঠী কথিত ইসলামিক স্টেট-আইএসের টুপি কীভাবে এলো বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

হলি আর্টিজান মামলার রায়ের প্রতিক্রিয়া জানাতে দুপুরে সচিবালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রায় ঘোষণার পর মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি রাকিবুল ইসলাম ওরফে রিগ্যান আইএসের পতাকার প্রতীক সংবলিত টুপি পরে ছিলেন।

এরপর আসামিদের প্রিজন ভ্যানে তোলার পর জাহাঙ্গীর আলম ওরফে রাজীব গান্ধী নামের আরও এক জঙ্গিকেও কালো কাপড়ে তৈরি একই রকম টুপি পরতে দেখা যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকালে আদালতে আনার সময় কারও মাথায় এমন টুপি ছিল না। জঙ্গিরা আইএসের প্রতীক সংবলিত টুপি কোথায় পেলেন তা নিয়ে উপস্থিত সবার মধ্যে প্রশ্ন তৈরি হয়।

এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘বিষয়টি জেনেছি। এটি নিয়ে তদন্ত হওয়া উচিত। আমি এখনই তদন্তের জন্য সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলব।’

এসময় তিনি আরও বলেন, ‘এ রায়ের মধ্যে বিশ্বের কাছে প্রমাণিত হয়েছে যে, বাংলাদেশে এ ধরনের অপরাধীদের সঠিক আইনি প্রক্রিয়ায় দ্রুততম সময়ের মধ্যে বিচার সম্ভব।’

এর আগে ঢাকার সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মজিবুর রহমান হলি আর্টিজান মামলায় সাত জঙ্গিকে মৃত্যুদণ্ড এবং একজনকে খালাস দেন।

গত ২০১৬ সালের ১ জুলাই রাতে গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারি রেস্তোরাঁয় ভয়াবহ ও নৃশংস জঙ্গি হামলার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় দেশি-বিদেশি ২০ জন নাগরিককে নির্মমভাবে হত্যা করে সশস্ত্র জঙ্গিরা। জঙ্গিদের ছোড়া গ্রেনেডে দুই ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা মারা যান। একপর্যায়ে যৌথ বাহিনীর কমান্ডো অভিযানে পাঁচ জঙ্গি নিহত হয়। এ ছাড়া ওই ঘটনার সময় রেস্তোরাঁর একজন শেফ মারা যান।

x

Check Also

অবশেষে নীরবতা ভাঙলেন প্রিন্স হ্যারি

এমএনএ ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : রাজকীয় উপাধি ও রাজপরিবারের সদস্য হিসেবে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের প্রতিনিধিত্ব ত্যাগের ...

Scroll Up