এরশাদের আসনে জাপার প্রার্থী ছেলে সাদ এরশাদ

এমএনএ রিপোর্ট : প্রয়াত রাষ্ট্রপতি এইচ এম এরশাদের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া রংপুর-৩ আসনে জাতীয় পার্টির (জাপা) মনোনয়ন পেয়েছেন তার ছেলে রাহগীর আল মাহি সাদ এরশাদ। দলটির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা আজ রবিবার এ ঘোষণা দেন।

গত ১৪ জুলাই এরশাদ মারা যান। নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, এরশাদের মৃত্যুতে শূন্য এ আসনে ভোট হবে আগামী ৫ অক্টোবর। এই আসনে ইতোমধ্যে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০–দলীয় জোট প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেছে।

এই উপনির্বাচনে প্রার্থী ঠিক করা নিয়ে বিভেদ থেকে নানা নাটকীয় ঘটনা এবং জাতীয় পার্টি ভেঙে যাওয়ার উপক্রম হয়েছিল।

কিন্তু শনিবার সমঝোতা বৈঠকের পর রোববার বনানীতে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের ১৪ জ্যেষ্ঠ নেতাকে নিয়ে আলোচনা করে দলের মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গাঁ সাংবাদিকদের বলেন, “রংপুর-৩ আসনের উপনির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হচ্ছেন সাদ এরশাদ।”

এরশাদের স্ত্রী ও দলের জ্যেষ্ঠ কো-চেয়ারম্যান রওশন এই আসনে ছেলে সাদকে প্রার্থী করতে চাইলেও তার বিরোধিতা করছিলেন রংপুরের নেতারা। এরশাদের ভাতিজা সাবেক সাংসদ হোসেন মকবুল শাহরিয়ার আসিফের সমর্থকরা সাদের ‍কুশপুতুল পোড়ান।

আবার সাদ এরশাদকে মনোনয়ন দিলে তাঁর পক্ষে কাজ না করার ঘোষণা দেন রংপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র ও মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি মোস্তাফিজার রহমান।

রংপুর-৩ (সদর) আসনের উপনির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী মনোনয়ন নিয়ে এমন পরিস্থিতির মধ্যে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান পদ ও সংসদে বিরোধী দলীয় নেতার পদ নিয়ে এরশাদের ছোট ভাই ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদেরের সঙ্গে সাদের মা রওশন এরশাদের দ্বন্দ্ব শুরু হয়। ফলে এরশাদের আসনে প্রার্থী ঘোষণা আটকে যায়। একপর্যায়ে রওশনপন্থীরা কাদেরকে বাদ দিয়ে রওশনকে দলের চেয়ারম্যান ঘোষণা করেন। গত সপ্তাহজুড়ে দলের পাল্টাপাল্টা নানা কর্মসূচি চলে। তবে শেষতক গতকাল রাতে রওশন ও কাদেরপন্থী নেতারা একত্র হয়ে একটা সুরাহা করেন। সেই সমাধান সূত্র হলো, জি এম কাদের দলের চেয়ারম্যান থাকবেন আর রওশন এরশাদ হবেন বিরোধীদলীয় নেতা। জাতীয় পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা আজই এ ঘোষণা দেন। এরপরই তিনি রংপুর–৩ আসনে দলের প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেন।

এর মধ্যে এ আসনে ইতিমধ্যে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০–দলীয় জোট প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেছে। আওয়ামী লীগ গতকাল শনিবার এ আসনে রেজাউল করিমকে মনোনয়ন দেয়। রেজাউল করিম রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

এদিকে রংপুর-৩ আসনের উপনির্বাচনে অংশ নিচ্ছে বিএনপি। তবে এই আসনে নিজ দলের কোনো প্রার্থীকে মনোনয়ন দিচ্ছে না দলটি। বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০-দলীয় জোটের শরিক পিপলস পার্টির রিটা রহমানকে সমর্থন দিচ্ছে তারা। রিটা বিএনপির প্রতীক ‘ধানের শীষ’ নিয়ে লড়বেন। আজ বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম সম্পাদক রুহুল কবির রিজভী এ ঘোষণা দেন।

জাতীয় পার্টির দুর্গ হিসেবে পরিচিতি রংপুর–৩ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী কে হবেন, তা নিয়ে দলটির মধ্যে চাপান–উতোর শুরু হয়। এরশাদপুত্র রাহগীর আল মাহি সাদ এরশাদসহ এ আসনে পাঁচজন দলীয় মনোয়ন চান। বাকি মনোনয়নপ্রত্যাশীরা ছিলেন এরশাদের ভাগনি (মেরিনা রহমানের মেয়ে) মেহেজেবুন নেছা টুম্পা, রংপুর জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক এস এম ফখর-উজ-জামান ও রংপুর মহানগর জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক এস এম ইয়াসির, জেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম সম্পাদক আবদুর রাজ্জাক।

x

Check Also

ক্যাসিনো খালেদের ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর

এমএনএ রিপোর্ট : রাজধানীর ফকিরাপুলের ইয়ংমেন্স ক্লাব ক্যাসিনোর মালিক ঢাকা দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ...

Scroll Up