খাগড়াছড়িতে গুলি করে ইউপিডিএফ কর্মী হত্যা

এমএনএ জেলা প্রতিনিধি : খাগড়াছড়িতে সদর উপজেলার হরিনাথপাড়া এলাকায় দীলিপ কুমার চাকমা ওরফে বিনয় নামের এক ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের (ইউপিডিএফ) কর্মীকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।
আজ শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে খাগড়াছড়ি শহরের কাছের গ্রাম হরিনাথপাড়ায় এ হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়।
নিহত দীলিপ চাকমা বিনয় (৪২) পানছড়ি উপজেলার চেঙ্গী ইউনিয়নের মনিপুর (লেন্দিয়া পাড়া) গ্রামের সন্তোষ কুমার চাকমার ছেলে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, একটি চায়ের দোকানে আরো কয়েকজন সহকর্মীকে নিয়ে গল্প করছিলেন বিনয়। ওই সময় অস্ত্রধারী ৯ জনের একটি সংঘবদ্ধ দল ওই দোকানে হানা দিয়ে খুব কাছ থেকে গুলি করে বিনয়কে হত্যা করে পালিয়ে যায়।
ইউপিডিএফে পক্ষ থেকে সংগঠনের কেন্দ্রীয় প্রচার সেলের প্রধান রিপন চাকমা বিনয়কে নিজেদের একনিষ্ঠ কর্মী দাবি করে এই হত্যাকাণ্ডের জন্য ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) নামধারী ‘নব্য মুখোশ বাহিনীকে’ দায়ী করেছেন।
এদিকে প্রকাশ্য কোনো তৎপরতা না থাকায় ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক)-এর কারোর আনুষ্ঠানিক বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে টেলিফোনে সুমন চাকমা নামে একজন নিজেকে ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক)-এর প্রচার শাখার প্রতিনিধি পরিচয় দিয়ে দাবি করেন, দীলিপ চাকমা হত্যাকাণ্ড তাদের কোনো সম্পর্ক নেই। এটি ইউপিডিএফের অভ্যন্তরীণ কোন্দল।
খাগড়াছড়ি সদর থানার ওসি তারেক মো. আব্দুল হান্নান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ‘ঘটনাস্থলের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছি। মরদেহ উদ্ধার করার পর পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।’
প্রসঙ্গত, গত ১৫ নভেম্বর ইউপিডিএফ-গণতান্ত্রিক আত্মপ্রকাশের পর ৩ জানুয়ারি ইউপিডিএফ সংগঠক মিঠুন চাকমাকে দিনে-দুপুরে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে হত্যা করা হয়। এরপর ২৬ জানুয়ারি জেলা সদরের চারমাইল এলাকায় শান্তিময় চাকমা নামে ইউিপিডিএফের এক কর্মী গুলিতে আহত হন। তিনি বর্তমানে চট্টগ্রামে চিকিৎসাধীন।
x

Check Also

পদ্মা সেতুতে আজ বসলো ২১তম স্প্যান

এমএনএ রিপোর্ট : পৌষের কনকনে শীতে পদ্মা ছিল কুয়াশাচ্ছন্ন। আবহাওয়া জনিত কারণে কিছুটা বিলম্ব হলেও ...

Scroll Up