গরমের ফ্যাশন ট্রেন্ড ‌’স্লিভলেস’

51

এমএনএ ফিচার ডেস্ক : প্রচন্ড গরমে দফারফা হওয়ার দশা। এই সময়টাতে পোশাকটা হওয়া চাই পাতলা এবং ছিমছাম। তাই পোশাক বেছে নিতে হবে আরামদায়ক। পোশাকে থাকতে হবে ফ্যাশনেবল লুক। গরমকালেও ফ্যাশনে থাকা মাস্ট। তাই বেছে নিতে পারেন স্লিভলেস পোশাক। গরমের ফ্যাশন টেন্ড ’স্লিভলেস’ নিয়ে বিশেষ প্রতিবেদন তৈরি করেছেন মোসাম্মৎ সেলিনা হোসেন

বর্তমান ফ্যাশনের সঙ্গে মানানসই স্লিভলেস যে কোনো পোশাক ফ্যাশনেবল হওয়ার পাশাপাশি গরমেও স্বস্তি এনে দেয়।

আমাদের পারিপার্শ্বিকতায় অনেকেই স্লিভলেস পোশাক এড়িয়ে চলেন। তবে শালীনতা বজায় রেখে গরমে স্বস্তি চাইলে স্লিভলেস পোশাক পরা যেতেই পারে। স্লিভলেস পোশাকের প্রধান শর্ত হল আকর্ষণীয় হাত। কারণ হাত যদি সুন্দর না হয় তবে স্লিভলেস পোশাকও দেখতে বেমানান লাগবে।

স্লিভলেস পোশাক হতে হবে ব্যক্তিত্ব ও শারীরিক কাঠামোর সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ। স্লিভলেস পোশাকে সবাইকে মানায় না। লম্বা, মেদহীন হাতের যে কেউ পরতে পারেন এ পোশাক। যাদের হাত মোটা, কাঁধ বেশি চওড়া, তাদের স্লিভলেস না পরাই ভালো।

গরমের এই সময়টাতে তরুণী থেকে শুরু করে একটু বয়স্ক যারা গরমে তাদের সবারই পছন্দের তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে স্লিভলেস পোশাক। ক্যাম্পাস, বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা অথবা কোনো পার্টিতে স্লিভলেস যে কোনো পোশাকই মানিয়ে যায় বেশ। স্লিভলেস সালোয়ার-কামিজ, জিন্সের সঙ্গে স্লিভলেস কুর্তি বা টপস অহরহ ফ্যাশন সচেতন নারীরা। অনেকে শাড়ির সঙ্গে মিলিয়ে নিচ্ছেন হালকা রঙের স্লিভলেস ব্লাউজ।

দেশীয় ফ্যাশন হাউসগুলো তাদের গরমের আয়োজনে এনেছে সুতি কাপড়ের ওপর ব্লকপ্রিন্ট, এমব্রয়ডারি, স্ক্রিন প্রিন্ট ও হালকা সুতার কাজ করা স্লিভলেস পোশাক। আর ওয়েস্টার্ন ড্রেসের অনেকটা অাছে স্লিভলেস। স্লিভলেস ওয়েস্টার্ন আউটফিটে যেমন মানানসই আবার দেশীয় আউটফিটেও মন্দ লাগে না। স্লিভলেস ড্রেস হয়ে ওয়ে গরমের মৌসুমের ফ্যাশন ট্রেন্ড।

অনুষ্ঠানে পরার জন্য শাড়ির সঙ্গে অনেকেই এখন বেছে নিচ্ছেন স্লিভলেস ব্লাউজ। শাড়ির সঙ্গে মানানসই ভিন্ন রংয়ের স্লিভলেস ব্লাউজ দেখতে দারুণ ফ্যাশনেবল। আর যারা শাড়ি এড়িয়ে চলতে চান তারা পরতে পারেন স্লিভলেস কামিজ, কুর্তি বা টপস আর কামিজের বা ফতুয়ার কাটিং যাই হোক না কেন হাতাটা স্লিভলেস হওয়াই ভালো। যা গরমে আরামদায়ক, আবার ফ্যাশনেবলও।

স্লিভলেস পোশাকের নকশায় সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হল আর্মহোলের কাট। যা হওয়া চাই আর্মহোলের মাপ অনুযায়ী। আর্মহোলের কাট ঠিক না হলে দৃষ্টিকটু লাগে। তাই যেকোনও পোশাকের চেয়ে স্লিভলেস পোশাক নির্বাচনে বেশি সতর্কতা প্রয়োজন।

ফ্যাশন ডিজাইনারদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, গ্রীষ্মের বৈরী আবহাওয়ায় তরুণীদের জন্য ক্যাটিং, নেক লাইনে ভিন্নতায় তৈরি পোশাকি শুভ্রতার নতুন আউটফিট আনা হয়েছে আবর্তনের গ্রীষ্মের কালেকশনে। মেয়েদের এসব আউটফিট যেখানে থাকছে স্লিভলেস ফতুয়া, কামিজসহ হালকা ও বর্ণিল রঙের পোশাকের আয়োজন।

প্রায় সব ফ্যাশন হাউসে নানা ডিজাইনের নারীদের স্লিভলেস পোশাক পাওয়া যায়। ওয়েস্টার্ন আউটফিটের হাউস যেমন ক্যাটস আই, এক্সটাসি, ইয়েলো, লা রিভে বিভিন্ন কাটিংয়ের স্লিভলেস পোশাক পাওয়া যায়। দেশীয় ফ্যাশন হাউস আড়ং, নগরদোলা, অঞ্জন’স এ খুঁজে পাবেন আপনার পছন্দের স্লিভলেস পোশাকটি।

এ ছাড়া বসুন্ধরা শপিং মল, যমুনা ফিউচার পার্ক, মৌচাক মার্কেট, চাঁদনিচক, গাউছিয়া ও নিউমার্কেটে পাওয়া যাবে স্লিভলেসস পোশাক। চাইলে গজ কাপড় কিনে বানিয়ে নিতে পারেন মনের মতো স্লিভলেস পোশাকটি।

স্লিভলেস পোশাকের সঙ্গে পালোজ্জা এবং লেগিংস দুটোই ভালো মানায়। আপনার পোশাক অনুযায়ী বেছে নিন। মনে রাখতে হবে, স্লিভলেস পোশাক পরলে হাতে সানস্ক্রিন ব্যবহার করা উচিত। না হলে সূর্যের আলোতে হাত পুড়ে কাল হয়ে যেতে পারে। প্রতিদিন বাসায় ফিরে যে কোনো স্ক্রাব দিয়ে হালকা ম্যাসাজ করে ধুয়ে ফেলুন। এতে ময়লা দূর হয়ে যাবে। কারণ সারাদিন হাত খোলা থাকার ফলে অনেক ধুলা জমে। যা হাতের ত্বক নষ্ট করে ফেলে। যাদের হাত একটু মোটা তাদের স্লিভলেস পোশাক না পরাই ভালো। বাসার বাইরে গেলে ছাতা ব্যবহার করতে ভুলবেন না।