চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নেতৃত্বে মিশা-জায়েদ

32

এমএনএ বিনোদন ডেস্ক : সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে নতুন সভাপতি পদে মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক পদে জায়েদ খান নির্বাচিত হয়েছেন।

দিনভর ভোট শেষে রাতে অনেক নাটকীয় ঘটনার জন্ম হয় এবারের চলিচ্চত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন ঘিরে। মধ্যরাতে তো ভোট গণনাকক্ষে শাকিব খানের ঢুকে পড়াকে কেন্দ্র করে হট্টগোল বেধে যায়। শেষ পর্যন্ত সব নাটকীয়তার অবসান ঘটে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নতুন নেতৃত্ব গঠনের মধ্য দিয়ে।

আজ শনিবার সকালে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ফলাফল ঘোষণা করেন নির্বাচন কমিশনার মনতাজুর রহমান আকবর। তিনি জানান, নির্বাচিত এই কমিটি আগামী দুই বছর দায়িত্ব পালন করবে।

এবার ২১টি পদের বিপরীতে ৫৭ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। মোট ভোটার ৬২৪ জন। এর মধ্যে ভোট দিয়েছেন ৫৫৮ জন। গতকাল শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে ভোট নেওয়া শুরু হয়। বিকেল পাঁচটায় ভোট গ্রহণ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও পরে তা এক ঘণ্টা বাড়ানো হয়।

নির্বাচিত হওয়ার পর আজ সকালে গণমাধ্যমকে মিশা সওদাগর বলেন, ‘সবার দোয়া ও ভালোবাসায় আমরা জয়ী হতে পেরেছি। চলচ্চিত্রের সব শিল্পী, কলাকুশলীসহ এফডিসির সবার কাছে আমি কৃতজ্ঞ। আমার অভিজ্ঞতা বলে, কয়েক বছর ধরে আমাদের প্রাণের সংগঠন শিল্পী সমিতি যে নেতৃত্বহীন হয়ে পড়েছিল, কার্যকরী পদক্ষেপের মধ্য দিয়ে সেটাকে সচল করব। শিল্পীদের সবাইকে নিয়ে চলচ্চিত্রের উন্নয়নে কাজ করে যাব। বিদেশি চলচ্চিত্র আমাদের চলচ্চিত্রকে ক্রমেই গ্রাস করছে, এর বিরুদ্ধেও আমাদের যা কিছু করা দরকার করব।’

সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান বলেন, ‘চলচ্চিত্র শিল্পীরা যাতে সম্মানের সঙ্গে মাথা উঁচু করে বাঁচতে পারে, আমরা সেই ব্যবস্থা করব।’

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির এবারের নির্বাচনে তিনটি প্যানেল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছে। প্যানেল তিনটি হলো ওমর সানী-অমিত হাসান, মিশা সওদাগর-জায়েদ খান এবং ড্যানি সিডাক-ইলিয়াস কোবরা। এর মধ্যে ওমর সানী-অমিত হাসান প্যানেল থেকে জয়ী হয়েছেন সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক জাকির হোসেন এবং কোষাধ্যক্ষ পদে কমল আর কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য পদে জেসমিন, ফেরদৌস, মৌসুমী ও সুশান্ত। ড্যানি সিডাক-ইলিয়াস কোবরা প্যানেল থেকে শুধু কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য পদে জয়লাভ করেছেন নাসরিন। বাকি সব কটি পদেই জয়লাভ করেছেন মিশা সওদাগর-জায়েদ খান প্যানেল থেকে।

সভাপতি পদে ২৫৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মিশা সওদাগর। তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ওমর সানি পেয়েছেন ১৫৩ ভোট। অপরদিকে ২৭৯ ভোট পেয়ে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন জায়েদ খান। তার প্রতিদ্বন্দ্বী অমিত হাসান পেয়েছেন ১৪৫ ভোট।

সহ-সভাপতি পদে নির্বাচিত হয়েছেন দুইজন, রিয়াজ পেয়েছেন ৩২৮ ভোট ও নাদির খান পেয়েছেন ২৬৫ ভোট।

সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত আরমান পেয়েছেন ২৬৫ ভোট। সাংগঠনিক সম্পাদক পদে ৩১০ ভোট পেয়ে সুব্রত ও আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক পদে ২৬২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মামনুন ইমন। দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক জ্যাকি আলমগীর ২৯৫ ভোট, সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক জাকির হোসেন ১৯০ ভোট ও কোষাধ্যক্ষ কমল পেয়েছেন ২৪২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।

কার্যকরী পরিষদে নির্বাচিত ১১ জনের মধ্যে সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন সাইমন সাদিক। তিনি মোট ভোট পেয়েছেন ৩৬১।

কার্যকরী পরিষদে অন্যান্যদের মধ্যে যারা নির্বাচিত হয়েছেন- অঞ্জনা সুলতানা (৩২২ ভোট), আলীরাজ (৩০৩ ভোট), জেসমিন (৩২৬ ভোট), নাসরিন (২৬৮ ভোট), পপি (৩০২ ভোট), পূর্ণিমা (২৮২ ভোট), ফেরদৌস (২৬১ ভোট), রোজিনা (৩৪৪ ভোট) ও সুশান্ত (৩৪২ ভোট)।

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন প্রথম অনুষ্ঠিত হয় ১৯৮৪ সালে। এবার ১৪তম নির্বাচন হয়েছে।

এক নজরে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নতুন নেতৃত্ব

সভাপতি: মিশা সওদাগর
সাধারণ সম্পাদক: জায়েদ খান
সহ-সভাপতি: রিয়াজ ও নাদের খান
সহ-সাধারণ সম্পাদক: আরমান
সাংগঠনিক সম্পাদক: সুব্রত
আন্তর্জাতিক-বিষয়ক সম্পাদক: মামনুন ইমন
দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক: জ্যাকি আলমগীর
সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক: জাকির হোসেন
কোষাধ্যক্ষ: কমল

কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য
পপি, পূর্ণিমা, ফেরদৌস, মৌসুমী, অঞ্জনা, আলীরাজ, জেসমিন, নাসরিন, রোজিনা, সুশান্ত ও সাইমন সাদিক।