জাপার কেন্দ্রীয় কাউন্সিল আগামী ২১ ডিসেম্বর

এমএনএ রিপোর্ট : আগামী ৩০ নভেম্বরের পরিবর্তে ২১ ডিসেম্বর জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন দলটির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। তিনি বলেন, ৩০ নভেম্বর আইইবির অনুষ্ঠানস্থল ফাঁকা না থাকায় জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কাউন্সিল ২১ ডিসেম্বর করার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

আজ বুধবার বিকেলে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি) পুরাতন ভবনের সেমিনার হলে ‌জাতীয় ছাত্র সমাজ কেন্দ্রীয় সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি আয়োজিত সাংগঠনিক সভায় তিনি এ তথ্য জানান।

জিএম কাদের বলেন, অক্টোবর মাসের মধ্যেই ছাত্র সমাজের কাউন্সিল করতে হবে। নির্বাচনের মাধ্যমে কমিটি হবে।

জাপা চেয়ারম্যান বলেন, ব্যক্তি স্বার্থের ঊর্ধ্বে উঠে কাজ করবে জাতীয় পার্টি। তরুণদের সিদ্ধান্ত ব্যক্তিগত স্বার্থের ঊর্ধ্বে। আমরা ছাত্র সমাজকে পৃষ্ঠপোষকতা করব। তবে লেজুড়বৃত্তি করার জন্য নয়, লাঠিয়াল বাহিনী তৈরি করব না। ছাত্র সমাজকে এলাকার পাশাপাশি ক্যাম্পাসভিত্তিক রাজনীতি করতে হবে।

তিনি বলেন, অনেকেই বলেন, এরশাদ সাহেব নিজেই ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করে দিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু এই ছাত্র সমাজের প্রয়োজনীয়তা পরে তিনি উপলব্ধি করেন।

তিনি আরো বলেন, তিনি যখন জেলে, তখন জাতীয় পার্টি নির্বাচনে অংশ নেবে কি না, এ নিয়ে যখন সিদ্ধান্তে আসতে পারছিল না, তখন জাতীয় ছাত্র সমাজ বলেছিল, পরিস্থিতি যাই হোক না কেন, আমরা নির্বাচনে যাব।

এরশাদ পরবর্তী জাতীয় পার্টি নিয়ে তিনি বলেন, সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়ার সময় এসেছে।

জিএম কাদের বলেন, এরশাদের শূন্যতা পূরণে সময় লাগবে। তবে জাতীয় পার্টি টুকরো টুকরো হবে না প্রমাণিত, জাতীয় পার্টি দুর্বল হবে না।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, রাজনীতিতে শূন্যতা বিরাজ করছে। সংগঠিত থাকলে মানুষের আশা পূরণ করতে পারলে জাতীয় রাজনীতিতে বড় ভূমিকা রাখবে জাতীয় পার্টি। এতদিন নিয়ামক শক্তি ছিলাম, ভবিষ্যতে রাজনীতির চালিকা শক্তি হিসেবে কাজ করবে জাতীয় পার্টি।

সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত আছেন জাপার মহাসচিব ও বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ মসিউর রহমান রাঙ্গা। জাতীয় ছাত্র সমাজের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক মো. জামাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সাংগঠনিক সভা পরিচালনা করেন সদস্য সচিব ফয়সাল দিদার দিপু।

উল্লেখ্য, এর আগে আগামী ৩০ নভেম্বর জাপার জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হওয়ার তারিখ নিধারিত হয়েছিল।

x

Check Also

১১৭ দেশের মধ্যে ক্ষুধার সূচকে বাংলাদেশ ৮৮তম

এমএনএ রিপোর্ট : বিশ্ব ক্ষুধা সূচকে ১১৭ দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান গত বছরের চেয়ে দুই ...

Scroll Up