ট্রাম্প-বিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল মেক্সিকো

57

এমএনএ ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প-বিরোধী বিক্ষোভে লাখো মানুষের অংশগ্রহণে গোটা মেক্সিকোতে উত্তাল অবস্থা বিরাজ করছে।

গতকাল রবিবারের এসব বিক্ষোভে তারা ট্রাম্পকে আমেরিকা ও মেক্সিকো, উভয়ের জন্য ভয়াবহ বিপদ হিসেবে তুলে ধরেছেন।

মেক্সিকোর পতাকা দুলিয়ে, স্পেনীয় ও ইংরেজিতে লেখা ট্রাম্প-বিরোধী প্ল্যাকার্ড বহন করে লোকজন বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নেয়। অনেক বিক্ষোভকারী তাদের নিজ দেশের প্রেসিডেন্ট এনরিকে পেনা নিয়েতোর বিরুদ্ধেও বিক্ষোভ দেখান।

মেক্সিকোর অবাধ দুর্নীতি ও সহিংসতা রোধ করতে না পারায় নিয়েতোকে একজন দুর্বল প্রেসিডেন্ট আখ্যা দিয়ে তার বিরুদ্ধে বিদ্রুপাত্মক শ্লোগান দেন।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হওয়ার আগে থেকেই ট্রাম্প মেক্সিকোর অভিবাসী ও বাণিজ্যের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে আসছিলেন। প্রেসিডেন্ট হওয়ার পরপরই তার সেসব প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন শুরু করেন তিনি। এতে মেক্সিকো ও যুক্তরাষ্ট্র ঘনিষ্ঠ মিত্র হওয়া সত্বেও ট্রাম্প ও নিয়েতো কথার লড়াইয়ে জড়িয়ে পড়েন।

ট্রাম্পের নীতির কারণে ল্যাটিন আমেরিকান দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ মেক্সিকো সঙ্কটে পড়বে বলে আশঙ্কা করছে দেশটির কর্তৃপক্ষ।

জাতীয় ঐক্যের এক বিরল প্রদর্শনী দেখিয়ে মেক্সিকোর বিভিন্নমুখি রাজনৈতিক দলগুলোর নেতা-কর্মীরা ট্রাম্প-বিরোধী এসব বিক্ষোভে যোগ দিয়েছেন। দেশটির প্রভাবশালী ব্রডকাস্টার টেলেভিসায় প্রচারিত বিক্ষোভ কর্মসূচীর একটি বিজ্ঞাপন তাদের এ ধরনের পদক্ষেপে উৎসাহিত করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

স্থানীয় কর্মকর্তাদের হিসাব অনুযায়ী, মেক্সিকোর সবচেয়ে বড় দুটি শহর, মেক্সিকো সিটি ও গুয়াদালাজারাতে মোট ৩০ হাজার বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে।

এ ধরনের দুটি বড় বিক্ষোভ মিছিল রাজধানী মেক্সিকো সিটির পাসিয়ো দ্য লা রেফর্মা অ্যাভিনিউতে অ্যাঞ্জেল অব ইন্ডিপেন্ডেন্টর্স মনুমেন্টে এসে অবস্থান নেয়।

বিক্ষোভে অংশ নেওয়া ৬২ বছর বয়সী জর্জ রুয়িজ বলেন, “সে (ট্রাম্প) অত্যন্ত বাজে একজন মানুষ, নিজের পছন্দমতো চলা উচিত নয় তার।”

টেলিভিশনের সাবেক রিয়েলিটি শো তারকা ট্রাম্প অভিবাসীদের অপমান করায় রুয়িজ তার ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে আছেন।

‘মেক্সিকো শ্রদ্ধা দাবি করে, আমরা দেয়াল নয় সেতু চাই’ লেখা ব্যানার বহন করছিলেন মিছিলে থাকা বিক্ষোভকারীরা। আরেক ব্যানারে লেখা ছিল, ‘ট্রাম্প তুমি আমেরিকাকে ধ্বংস করছ।’

বিক্ষোভ মিছিলে এক সংগঠক মারিয়া পারো কাসার বলেন, মেক্সিকো ও মেক্সিকানদের নিজের ‘প্রিয় লক্ষ্যে’ পরিণত করেছেন ট্রাম্প।

“তার নীতি বিশ্বের জন্য একটি হুমকি। এটি বহুত্ববাদ ও বৈচিত্র্য বিরোধী। এই নীতি মেক্সিকোর জন্য সুর্নিদিষ্ট হুমকি,” বলেন তিনি।

নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিতে মেক্সিকো-যুক্তরাষ্ট্র সীমান্তজুড়ে দেওয়াল তোলার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন ট্রাম্প। ক্ষমতা গ্রহণের পর গত তিন সপ্তাহ ধরে তার প্রতিশ্রুত দেওয়াল নির্মাণের পথে এগিয়ে যাচ্ছেন তিনি। এই দেওয়াল নির্মাণের খরচ মেক্সিকোকেই দিতে হবে বলে বারবার উল্লেখ করেছেন তিনি।

পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রের বসবাসরত লাখ লাখ অবৈধ অভিবাসীকে দেশটি থেকে বের করে দেওয়ার ইঙ্গিতও দিয়েছেন।