নাইরোবিতে হোটেলে জঙ্গি হামলা, নিহত ১৫

এমএনএ ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবিতে একটি বিলাসবহুল হোটেল ও অফিস কমপ্লেক্সে সন্দেহভাজন জঙ্গি হামলায় অন্তত ১৫ জন নিহত এবং ৮ জন আহত হয়েছেন, হাসপাতালের কর্মকর্তা ও প্রত্যক্ষদর্শীরা একথা জানিয়েছে।

সোমালিয়ার ইসলামপন্থি জঙ্গিদল আল শাবাব গতকাল মঙ্গলবারের এ হামলার দায় স্বীকার করেছে। পুলিশও একে জঙ্গি হামলা বলে বর্ণনা করেছে।

‘ফোরটিন রিভারসাইড ড্রাইভ কমপ্লেক্সে’ একবার বিশালাকৃতির ধোঁয়ার কুণ্ডলী উঠতে দেখা গেছে বলে জানান প্রত্যক্ষদর্শীরা।

কেনিয়ার পুলিশ প্রধান জোসেফ বোইনেট সাংবাদিকদের জানান, বন্দুকধারীরা হোটেলের লবিতে ঢোকার আগে কার পার্কিং এলাকার যানবাহনে বোমা ছুড়ে মারে। সেখানে একজন আত্মঘাতী বোমাও বিস্ফোরণ ঘটায়।

টুইটারে পোস্ট করা ঘটনাস্থলের একটি ছবিতে মাটিতে মানুষের পায়ের মত দেখতে কিছু একটা পড়ে থাকতে দেখা যায়।

দমকল কর্মীরা হোটেল প্রাঙ্গণের প্রবেশ পথে জ্বলতে থাকা তিনটির গাড়ির আগুন নিভিয়েছে।

এদিকে হোটেলটির নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা একটি সূত্র জানিয়েছে, এ ঘটনায় অন্তত ১১ জন নিহত হয়েছে। এর মধ্যে হোটেলটির পাশে নদীর ধারের ফুটপাতে ৬টি মৃতদেহ এবং ৫টি মৃতদেহ হোটেলের গোপন বাগানে দেখা গেছে। আহত আরো অনেককে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

হামলার পরপরই সরকারি বাহিনী সেখানে অবস্থান নেয় বলে জানিয়েছেন দেশটির ‍পুলিশের মুখপাত্র। তিনি জানান, আমরা গোলাগুলির খবর পেয়েছি। ইতোমধ্যে আমাদর একাধিক দল পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে। তাদের সহায়তা করছে সিআইডি। এছাড়া সন্ত্রাসী হামলার সর্বোচ্চ সম্ভাবনা বিবেচনা করছি আমরা। সেভাবেই প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

সেনাবাহিনীর সশস্ত্র দল এবং অন্যান্য বাহিনীর সশস্ত্র সদস্যরা হোটেল প্রাঙ্গণে প্রবেশ করেছে। তারা প্রাণ নিয়ে ছুটতে থাকা হতভম্ব কর্মীদের ঘিরে ধরে নিরাপদ আশ্রয়ে নিয়েছেন এবং তা অব্যহত আছে।

পায়ে গুলিবিদ্ধ এক নারীকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। এছাড়া রক্তাক্ত আরও তিনজন পুরুষ দৌড়ে বেরিয়ে এসেছেন।

কয়েকজন কর্মী হোটেলের জানালা বেয়ে বেরিয়ে এসেছেন। তারা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানান, তারা তাদের সহকর্মীদের ভেতরে ফেলে এসেছেন।

রয়টার্স জানায়, হামলার মধ্যে একটি ভবন থেকে পুলিশ দৌড়ে বেরিয়ে আসে। ওই সময় এক কর্মকর্তাকে ‘শৌচাগারের ভেতর একটি গ্রেনেড আছে’ বলে চিৎকার করতে শোনা যায়।

কমপ্লেক্সের একটি বিউটি সেলুনের কর্মী জিওফ্রি ওটিয়েনো রয়টার্সকে বলেন, “ভেতরে ছুড়ে মারা হয়েছিল এমন একটি বস্তু আমরা বিকট শব্দে বিস্ফোরিত হতে শুনতে পাই। তারপরই আমি কাঁচ ভেঙে পড়তে দেখি।

“উদ্ধার পাওয়ার আগ পর্যন্ত আমরা লুকিয়ে ছিলাম।”

নাইরোবির পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত ওই হোটেলের নাম দুসিত হোটেল। কেনিয়া পুলিশ জানায়, হোটেলের নিকটবর্তী সব পথ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

সোমালিয়ার জঙ্গিদল আল শাবাব প্রায়ই প্রতিবেশী কেনিয়ায় হামলা চালায়।

এর আগে ২০১৩ সালে একটি শপিং সেন্টারে এবং ২০১৫ সালে একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে হামলা চালিয়ে শত শত মানুষকে হত্যা করে আল শাবাব।

x

Check Also

বরেণ্য অধ্যাপক অজয় রায়ের জীবনাবসান

এমএনএ রিপোর্ট : একুশে পদকপ্রাপ্ত পদার্থ বিজ্ঞানের বরেণ্য অধ্যাপক অজয় রায় (৮৫) রাজধানীর বারডেম হাসপাতালে ...

Scroll Up