নাগরিকত্ব বিল বাতিলের মিছিলে গুলি, নিহত ৩

এমএনএ ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : ভারতের আসামের গোয়াহাটিতে নাগরিকত্ব বিল বাতিলের মিছিলে পুলিশের গুলিতে তিন ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। খবর এনডিটিভি।

আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কারফিউ ভেঙে রাস্তায় নেমে আসা মিছিলে পুলিশ গুলি চালায়।

এর আগে গতকাল বুধবার রাতে ভারতের রাজ্য সভায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হওয়ার পরই আসামে কারফিউ জারি করা হয়। আসামের ছাত্র সংগঠন এএএসইউ ও কেএমএসএস লোকজনকে রাস্তায় নেমে আসার আহ্বান জানায়। আজ বৃহস্পতিবার সেই কারফিউ অমান্য করে হাজার হাজার মানুষ রাস্তায় নেমে আসেন। গুয়াহাটির শহরতলীর কোনো কোনো এলাকায় সন্ধ্যায় পুলিশ গুলিবর্ষণ করেছে বলেও খবর পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি।

আজ বৃহস্পতিবার আসামের ১০ জেলায় ইন্টারনেট সেবা আরো ৪৮ ঘণ্টার জন্য বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয় প্রশাসন। চারটি এলাকায় সেনা মোতায়েনও করা হয়।

আসামের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোওয়াল এবং কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রামেশ্বর তেলির বাড়িতে হামলা চালিয়েছেন বিক্ষোভকারীরা। আসামের অতিরিক্ত মুখ্যসচিব কুমার সঞ্জয় কৃষ্ণা জানিয়েছেন, আসামের ১০ জেলায় আরও ৪৮ ঘণ্টা ইন্টারনেট বন্ধ রাখা হবে।

তিনি বলেন, বিক্ষোভকারীরা মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোওয়াল, রামেশ্বর তেলি এবং বিজেপি নেতা বিনন্দা হাজারিকার বাড়িতে হামলা চালানোয় গুয়াহাটি ও ডিব্রুগড়ে কারফিউ জারি করা হয়েছে।

এর আগে গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় ভারতীয় পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় সিএবি পাস হওয়ার পরপরই আসামের বিভিন্ন অংশে বিক্ষোভ শুরু হয়। বিক্ষোভকারীরা পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পুরো রাজ্যকে অস্থির করে তোলে।

প্রতিবাদ চলতে থাকায় আসাম ও প্রতিবেশী ত্রিপুরায় সব ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখা হয়। গুয়াহাটি ও ডিব্রুগড়গামী বহু ফ্লাইট বাতিল করা হয়।

হাজার হাজার লোক রাস্তায় নেমে প্রতিবাদে অংশ নিতে থাকায় এক পর্যায়ে আসামের চারটি এলাকায় সেনাবাহিনীর সদস্যদের মোতায়েন করা হয়।

গুয়াহাটিতে প্রতিটিতে ৭০ জন করে সেনাবাহিনীর দুটি দল মোতায়েন করা হয়। এর পাশাপাশি ‍তিনসুকিয়া, ডিব্রুগড় এবং জোরহাট জেলায় সেনা মোতায়েন করা হয়েছে বলে কর্মকর্তাদের বরাতে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়া (পিটিআই) ।

বিক্ষোভের মুখে আসামের বৃহত্তম শহর গুয়াহাটিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য কারফিউ জারি করা হয়। ডিব্রুগড়ে প্রতিবাদকারীরা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সানোয়াল ও কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রামেশ্বর তেলির বাড়িতে চড়াও হওয়ার পর সেখানেও কারফিউ জারি হয়। প্রতিবাদকারীরা সানোয়ালের লক্ষীনগরের বাড়িতে পাথর নিক্ষেপ করে।

তারা আরেক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দুলিয়াজানের বাড়িতেও হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে।

আসামজুড়ে ব্যাপক প্রতিবাদের মুখে আজ বৃহস্পতিবার সকালে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে আসামের জনগণকে আশ্বস্ত করে টুইট করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। “আপনাদের অধিকার কেউ কেড়ে নিতে পারবে না” টুইটে বলেন তিনি।

x

Check Also

মেজর সিনহা রাশেদ খান

সাবেক সেনা কর্মকর্তা নিহতের ঘটনায় তদন্তকেন্দ্রের ১৬ সদস্য প্রত্যাহার

এমএনএ বিশেষ রিপোর্টঃ কক্সবাজারের টেকনাফে শামলাপুর তল্লাশি চৌকিতে পুলিশের গুলিতে সাবেক মেজর সিনহা রাশেদ খান ...

Scroll Up
%d bloggers like this: