নেদারল্যান্ডসে যাত্রীবাহী ট্রামে বন্দুক হামলা, নিহত ১

এমএনএ রিপোর্ট : নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুই মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার পর এবার নেদারল্যান্ডসের মধ্যাঞ্চলীয় প্রদেশে বন্দুক হামলার ঘটনা ঘটেছে। বন্দুকধারীর গুলিতে একজন নিহত এবং বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় কর্মকর্তারা।

আজ সোমবার স্থানীয় সময় বেলা পৌনে ১১টায় রাজধানী ইউট্রেখটে অক্টোবর ২১ স্কয়ারের কাছে একটি ট্রামে বন্দুক হামলার ঘটনা ঘটেছে। খবর রয়টার্সের।

এটিকে ‌‘সম্ভাব্য সন্ত্রাসী হামলা’ বলছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী।

এদিকে গণমাধ্যম বলছে, গুলিতে আহত কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

পুলিশ গোলাগুলির স্থানটি ঘিরে রেখেছেন। এছাড়া ঘটনাস্থলে অ্যাম্বুলেন্সের পাশাপাশি এয়ার অ্যাম্বুলেন্সও দেখা গেছে।

অক্টোবর ২১ স্কয়ারের পাশের জংশনে ট্রামে এ হামলার ঘটনার পরপরই ঘটনাস্থলে দেশটির জরুরি সার্ভিস ও অ্যান্টি টেরোরিজম ইউনিটের সদস্যদের মোতায়েন করা হয়েছে। ওই এলাকায় ট্রাম চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

রুশ সংবাদমাধ্যম আরটি ইউট্রেখটের পুলিশের বরাত দিয়ে বলছে, সিটি সেন্টারের পাশে অবস্থিত শহরের একটি ট্রাম স্টেশনের কাছে এ গোলাগুলির ঘটনা ঘটে।

ব্রিটিশ দৈনিক দ্য গার্ডিয়ান বলছে, হামলার স্থানে তিনটি হেলিকপ্টার মোতায়েন করেছে নেদারল্যান্ডস সরকার।

দেশটির পুলিশের মুখপাত্র জুস্ট ল্যানশ্যাগে বলেছেন, একটি ট্রামে বেশ কয়েক রাউন্ড গুলি ছুড়েছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় কাউকে গ্রেপ্তার করা যায়নি। তবে ঘটনাস্থলে হেলিকপ্টার পাঠানো হয়েছে।

নেদারল্যান্ডস পুলিশের এক মুখপাত্র জানান, পুলিশ ও জরুরি উদ্ধার কর্মীরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়েছে। পুরো এলাকা ঘিরে রাখা হয়েছে। তবে বন্দুকধারীকে খোঁজা হচ্ছে। এছাড়া, এতে কোনো ‘সন্ত্রাসবাদী উদ্দেশ্য ছিল কি-না’ তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে পুলিশের একজন মুখপাত্র বলেছেন, ঘটনার পর একটি গাড়িতে করে পালিয়ে গেছে সন্দেহভাজন বন্দুকধারী।

এ গোলাগুলির পর থেকে ঘটনাস্থল এড়িয়ে চলাচলের জন্য স্থানীয়দের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে পুলিশ। প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে আরটিভি জানিয়েছে, ঘটনাস্থলে এক নারীকে মাটিতে পড়ে থাকতে দেখা গেছে। তবে ঘটনাস্থল থেকে অনেক মানুষকে দৌড়ে পালাতে দেখেছেন তিনি।

দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী ইউট্রেখট ইউনিভার্সিটি মেডিকেল সেন্টারকে আহতদের জরুরি সেবা দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে। এক প্রত্যক্ষদর্শী দেশটির স্থানীয় নিউজ আউটলেট এনইউ.এনএলকে বলেন, ‘একজন বন্দুকধারী আচমকা এলোপাতাড়ি গুলি শুরু করে।’

তবে এডি.এনএল নামের দেশটির আরকেটি সংবাদমাধ্যমে প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে জানানো হয়েছে, চারজন বন্দুকধারী ট্রাম স্টেশনের পাশে এক নারীর ওপর অতর্কিতে বন্দুক হামলা শুরু করে।

এ ঘটানায় ডাচ প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুটে বলেছেন, তিনি গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। ‌ট্রাম স্টেশেন হামলার পর সংকটকালীন জরুরি বৈঠকে বসেছে সরকার। এদিকে ইউট্রেখটের পরিবহন কর্তৃপক্ষ বলছে, শহরের সব ট্রাম সেবা বন্ধ ঘোষণা করেছে তারা।

ডাচ রেডিও বলছে, হেগে সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে।

এর আগে গত শুক্রবার নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে গত শুক্রবার জুমার নামাজের সময় দুটি মসজিদে বন্দুকধারীদের গুলিতে অন্তত ৫০ জন নিহত হয়েছেন।

আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন আরও ৪৮ জন। নিহতদের মধ্যে চার বাংলাদেশিও রয়েছেন।

নিখোঁজ রয়েছেন আরও ৭ বাংলাদেশি। ওই মসজিদে নামাজ পড়তে যাওয়ার সময় পথচারীর খবরে ভাগ্যক্রমে হামলা থেকে প্রাণে বেঁচে যান বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। নামাজরত অবস্থায় মুসল্লিদের ওপর শেতাঙ্গ বন্দুকধারীর চালানো স্মরণকালের ইতিহাসে বর্বরোচিত এ হামলার ঘটনায় নিন্দার ঝড় বইছে বিশ্বজুড়ে।

x

Check Also

‘অনৈতিক কাজ’ দেখে ফেলায় মেয়েকে খুন করল মা

এমএনএ চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : চট্টগ্রাম নগরের বন্দর থানার নিমতলা এলাকার নিজ বাসায় বাবা-মেয়ে হত্যার রহস্য ...

Scroll Up