পাইলটদের ধর্মঘটে অচল ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ

এমএনএ ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : বেতন নিয়ে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে দ্বন্দ্বের জের ধরে আজ সোমবার থেকে ৪৮ ঘণ্টার ধর্মঘটে নেমেছেন যুক্তরাজ্যের সবচেয়ে বড় বিমান পরিবহন সংস্থা ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের (বিএ) পাইলটরা।

অভূতপূর্ব এ ধর্মঘটের কারণে প্রায় সব ফ্লাইট বাতিল করতে বাধ্য হয়েছে কর্তৃপক্ষ; হাজার হাজার যাত্রী তাতে বিপাকে পড়েছেন বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে রয়টার্স।

সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, গত মাসেই (আগস্ট) দ্য ব্রিটিশ এয়ারলাইন পাইলটস অ্যাসোসিয়েশন (বিএএলপিএ) বিএ কর্তৃপক্ষকে সতর্ক করে জানিয়েছিল, তাদের অনুরোধ রাখা না হলে সেপ্টেম্বরে তারা তিন দিনের ধর্মঘটে যাবে। তাদের দাবি, কোম্পানি মুনাফার যে অংশ পাইলটদের দিচ্ছে, তার পরিমাণ বাড়ানো।

তবে তাদের সতর্কতা সত্ত্বেও ব্যাপারটি গুরুত্ব দেয়নি বিএ কর্তৃপক্ষ। কর্তৃপক্ষের দাবি, পাইলটদের যে সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হয়েছে, তা যথেষ্ট। পাইলটদের বর্তমান দাবি যৌক্তিক নয়।

গত নয় মাস ধরেই বিএ কর্তৃপক্ষ এবং বিএ’র প্রায় সাড়ে চার হাজার পাইলটের মধ্যে বেতনসহ বিভিন্ন সুবিধা নিয়ে দ্বন্দ্ব চলছে। যার জেরে অচলাবস্থা তৈরি হয়েছে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজে।

এর মধ্যে গত জুলাই মাসে পাইলটদের বেতন পরবর্তী তিন বছরের জন্য সাড়ে ১১ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছিল বিএ কর্তৃপক্ষ, যা প্রত্যাখ্যান করেছে পাইলটরা।

এরপরই পাইলটদের সংগঠন বিএএলপিএ ধর্মঘটে যাবে বলে বিএ কর্তৃপক্ষকে সতর্ক করে।

এদিকে দ্বন্দ্ব চলাকালীন প্রায়ই পাইলটদের বিভিন্ন হুমকি-ধামকি দিয়েও আসছিল ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ কর্তৃপক্ষ। হুমকিতে তারা বলেছিল, পাইলটরা যদি ধর্মঘটে যায়, তাহলে পাইলটদের এবং তাদের পরিবারের ফ্রি-তে ভ্রমণের যে সুবিধা, তা কেড়ে নেওয়া হবে।

গত শুক্রবার (৬ সেপ্টেম্বর) বিএ’র এক মুখপাত্র জানান, তারা তাদের কোনো পদক্ষেপের জন্য অনুতপ্ত নয়। কারণ তারা যা করেছে, তা যাত্রীদের সুবিধার কথা চিন্তা করেই করেছে।

বিএ কর্তৃপক্ষ ও বিএ’র পাইলট, এ দু’পক্ষের কোন্দলের জেরে শুক্রবারই ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সরকারও দু’পক্ষকে বৈঠকে বসে এ দ্বন্দ্বের অবসান ঘটানোর অনুরোধ জানান।

আজ সোমবার ও আগামীকাল মঙ্গলবার দুই দিনের (৪৮ ঘণ্টা) ধর্মঘট পালন করছে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের পাইলটরা। এ  ধর্মঘটের পর দ্বন্দ্বের সমঝোতা না হলে ২৭ সেপ্টেম্বর আরেক দফা ধর্মঘটের ঘোষণা রয়েছে পাইলটদের। তবে উভয়পক্ষই আলোচনায় আগ্রহী বলে জানিয়েছে।

বিএলপিএর দাবি, মুনাফা থেকে পাইলটদের আরও বেশি ভাগ দেওয়া উচিত ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের (বিএ)। অন্যদিকে কর্তৃপক্ষ বলছে, বর্তমান বেতন ন্যায্য হওয়ায় ধর্মঘট বেআইনি।

ধর্মঘটের কারণে হাজার হাজার গ্রাহককে বিকল্প ভ্রমণের ব্যবস্থা করতে হয়। ধর্মঘটের আগে যাত্রীদের সঙ্গে যোগাযোগের ধরন নিয়ে সমালোচনার মুখেও পড়েছে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ।

বিএলপিএর সাধারণ সম্পাদক ব্রায়ান স্ট্রুটন বিবিসি রেডিওকে বলেন, “বিরোধ নিষ্পত্তির একটি উপায় বের হবে বলে আমরা আশাবাদী।

“নয় মাস ধরে সমঝোতার চেষ্টার পরও দুঃখজনকভাবে আমাদের ধর্মঘটে নামতে হয়েছে। কারণ, ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ আপসে রাজি না।”

গত সপ্তাহে বিএলপিএর দেওয়া একটি সমঝোতা প্রস্তাবকে ‘শেষ মুহূর্তে তড়িঘড়ি করে তৈরি প্রস্তাব’ আখ্যা দিয়ে তাতে সৎ উদ্দেশ্য ছিল না বলে তা প্রত্যাখ্যান করেছে বিমান সংস্থাটি।

বিএলপিএ বলেছি, এই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে কর্তৃপক্ষ এটা নিয়ে আলোচনায় রাজি হলেই তারা এ সপ্তাহের ধর্মঘট প্রত্যাহার করে নিত।

ফ্লাইট বাতিলের বিষয়টি ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ যথাযথভাবে অবহিত করেনি বলে যাত্রীদের অভিযোগ তদন্ত করে দেখছে যুক্তরাজ্যের বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (সিএএ)।

এক্ষেত্রে গ্রাহকদের অধিকারগুলি জানানোর দায়িত্বের কথাও বিমান সংস্থাটিকে স্মরণ করিয়ে দিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

এদিকে ধর্মঘটকালীন এই ৪৮ ঘণ্টায় বিশ্বব্যাপী ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের প্রায় এক হাজার ৭০০টি ফ্লাইট চলাচলের কথা ছিল। যার মধ্যে আজ সোমবার ছিল ৮৫০টি। তবে পাইলটদের এ ধর্মঘটের কারণে ইতোমধ্যে সোমবারের ৮৫০টি ফ্লাইট বাতিল করেছে বিএ কর্তৃপক্ষ।

নির্ধারিত ফ্লাইট বাতিল করায় যাত্রীদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করেছে বিএ কর্তৃপক্ষ।

x

Check Also

আজ বুধবারের দিনটি আপনার কেমন যাবে?

এমএনএ ফিচার ডেস্ক : আজ ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার। নতুন সূর্যালোকে আজ বুধবারের দিনটি আপনার ...

Scroll Up