পাকিস্তানের নতুন কোচ ও প্রধান নির্বাচক মিসবাহ

এমএনএ স্পোর্টস ডেস্ক : পাকিস্তান জাতীয় দলের নতুন প্রধান কোচ হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন সাবেক অধিনায়ক মিসবাহ-উল-হক। একইসঙ্গে তাকে প্রধান নির্বাচকের দায়িত্বও বুঝিয়ে দিয়েছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)।

এদিকে আজ বুধবার পাকিস্তানের বোলিং কোচ হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন সাবেক অধিনায়ক ও কোচ ওয়াকার ইউনিস। দুজনের চুক্তির মেয়াদ তিন বছর। পিসিবির পাঁচ সদস্যের একটি প্যানেল তাদের দু’জনকে বাবর আযম-ফখর জামানদের কোচ হিসেবে বেছে নিয়েছেন।

শুরুতে শুধু কোচ হিসেবে বাছাই করলেও পরে প্রধান নির্বাচক হিসেবেও বেছে নেওয়া হয় মিসবাহকে। এখন থেকে তিনি দেশটির ছয়টি ফার্স্ট-ক্লাস ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের হেড কোচদের নিয়ে গঠিত নির্বাচক কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

ইন্তিখাব আলম (পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক এবং সাবেক টিম ম্যানেজার ও কোচ), বাজিদ খান (পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার ও ক্রিকেট ধারাভাষ্যকার), আসাদ আলী খান (সদস্য, বোর্ড অব গভর্নর), ওয়াসিম খান (পিসিবির প্রধান নির্বাহী) এবং জাকির খান (পিসিবি’র পরিচালক) সমন্বয়ে গঠিত প্যানেল মিবাহকে কোচ ও প্রধান নির্বাচক হিসেবে বেছে নিয়েছে।

মিসবাহ ছাড়াও দু’বারের হেড কোচ এবং ‘আইসিসি হল অব ফেম’র সদস্য ওয়াকার ইউনিসকে বোলিং কোচ হিসেবে বেছে নিয়েছে পিসিবি’র নির্বাচক প্যানেল।

মিসবাহ-ওয়াকার জুটির প্রথম পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ঘরের মাটিতে। ২৭ সেপ্টেম্বর থেকে ৯ অক্টোবর পর্যন্ত ৩টি ওয়ানডে ও ৩টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচের সিরিজ খেলতে পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে শ্রীলঙ্কা।

এরপর নভেম্বরে শুরু হবে এই দুজনের টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ পরীক্ষা। ২১-২৫ নভেম্বর ব্রিসবেনে অজিদের মুখোমুখি হবে পাকিস্তান। এরপর অ্যাডিলেডে অনুষ্ঠিত হবে দিবারাত্রির টেস্ট (২৯ নভেম্বর-৩ ডিসেম্বর)।

মিসবাহ ও ওয়াকার এর আগেও একসঙ্গে কাজ করেছেন। ২০১৪ সালের মে থেকে ২০১৬ সালের ও এপ্রিল পর্যন্ত সময়ে মিসবাহ ছিলেন পাকিস্তানের অধিনায়ক আর ওয়াকার ছিলেন হেড কোচ। এবার কোচের ভূমিকায় ফিরছেন মিসবাহ আর তার সহকারীর ভূমিকায় ওয়াকার।

ওয়াকার ইউনুস এর আগে পাকিস্তান জাতীয় দলের সঙ্গে কাজ করেছেন। প্রথমে বোলিং কোচ ছিলেন তিনি। পরে তাকে প্রধান কোচ করা হয়। কিন্তু ২০১৬ সালের টি-২০ বিশ্বকাপে দল ভালো না করায় সরে যেতে হয় তাকে।

পাকিস্তান ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মিজবাহ কোচের দায়িত্ব পেয়ে খুশি জানিয়ে বলেন, ‘ক্রিকেটই আমাদের শ্বাস-প্রশ্বাস। পাকিস্তান দলের কোচের মত বড় দায়িত্ব পেয়ে আমি সম্মানিত। আমি জানি, আমার কাছে বোর্ডের অনেক প্রত্যাশা। আমি ওই চাওয়া পূরণ করতে প্রস্তুত। না হলে, কোচের পদে আবেদনই করতাম না।’

মিসবাহ জানান, দলে অনেক প্রতিভাবান ক্রিকেটার আছে। তাদের অনুশীলন করাতে হবে। ড্রেসিংরুমের সংস্কৃতি বদলাতে হবে। ক্রিকেটারদের আধুনিক সময়ের ক্রিকেটের সঙ্গে পরিচিত করে তুলতে হবে। তাদের ভয়হীন স্মার্ট ক্রিকেট খেলতে শেখাতে হবে। এছাড়া আধুনিক ক্রিকেট পারফরম্যান্স দেখতে চায় বলেও উল্লেখ করেন পাকিস্তানের নতুন কোচ।

কোচিং প্যানেলে ওয়াকার ইউনুসকে পেয়ে উচ্ছ্বসিত বলে জানান মিসবাহ, ‘আমার পাশে অভিজ্ঞ ওয়াকার ইউনুসকে পেয়ে আমি দারুণ উচ্ছ্বসিত। আমাদের দলে দারুণ কিছু তরুণ পেসার আছে। তাদের শেখানোর জন্য ওয়াকারের চেয়ে ভালো কেউ হতে পারেন না। এরই মধ্যে আমার এবং ওয়াকারের মধ্যে আলাপ হয়েছে। আমরা বেশ কিছু বিষয়ে একমত হয়েছি।’ পাকিস্তানের কোচ হয়ে মিসবাহর প্রথম পরীক্ষা ঘরের মাঠে শ্রীলংকার বিপক্ষে তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-২০ সিরিজ।

x

Check Also

ঢাকার ক্যাসিনোতে প্রতি রাতেই ১২০ কোটি টাকার জুয়া

এমএনএ রিপোর্ট : বিদেশে নয় এবার খোদ রাজধানী ঢাকায় ৬০টি অবৈধ ক্যাসিনো রমরমাভাবে চলছে। ক্যাসিনো ...

Scroll Up