ফের জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি হলেন ড. হারুন

28

এমএনএ ক্যাম্পাস রিপোর্ট : জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-অর-রশিদকে ফের (দ্বিতীয় মেয়াদে আরো ৪ বছরের জন্য) উপাচার্য পদে নিয়োগ দিয়েছে সরকার। আজ বুধবার মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর মো. আবদুল হামিদ তাঁর নিয়োগ দিয়েছেন।

ড. হারুন-অর-রশিদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে বিএ (অনার্স) ও এমএ উভয় পরীক্ষায় প্রথম স্থান অধিকার করে ১৯৮৩ সালে কমনওয়েলথ স্কলারশিপ নিয়ে লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। ১৯৭৯ সালে তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগে প্রভাষক হিসেবে যোগ দিয়ে শিক্ষকতা পেশা শুরু করেন। সেখান থেকে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে যোগ দেন।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের দায়িত্ব নেওয়ার আগে অধ্যাপক ড. হারুন-অর-রশিদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভাইস চ্যান্সেলরের দায়িত্ব পালন করেন। পর পর তিন মেয়াদে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন নির্বাচিত হন। বর্ণাঢ্য কর্মজীবনে জাতীয় তথ্যকোষ বাংলাপিডিয়ার সম্পাদকীয় পরিষদের সদস্য, জাতীয় শিক্ষানীতি প্রণয়ন কমিটির সদস্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট সদস্য, এ এফ রহমান হলের প্রভোস্ট, বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটির সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি (তিন মেয়াদে) ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যও নির্বাচিত হন তিনি।

এরই মধ্যে তাঁর ৯টি গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে। এর মধ্যে ‘৬ দফার পঞ্চাশ বছর’ (বাংলা একাডেমি), ‘বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী পুনর্পাঠ’ (ইউপিএল), ‘দ্য ফোরশ্যাডোইং অব বাংলাদেশ’ (এশিয়াটিক সোসাইটি ও ইউপিএল), ‘ইনসাইড বেঙ্গল পলিটিকস, ১৯৩৬-১৯৪৭’ (ইউপিএল), ‘বাংলাদেশ : রাজনীতি, সরকার ও শাসনতান্ত্রিক উন্নয়ন, ১৭৫৭-২০০০’ (নিউএজ পাবলিকেশন্স), ‘বাঙালির রাষ্ট্রচিন্তা ও স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয়’ (আগামী প্রকাশনী) উল্লেখযোগ্য। সম্প্রতি বাংলা একাডেমি থেকে প্রকাশিত হয়েছে ‘মূলধারার রাজনীতি : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, কাউন্সিল ১৯৪৯-২০১৬’।

দেশ-বিদেশের বিভিন্ন জার্নাল ও বইয়ে তাঁর ৬০টির বেশি গবেষণাকর্ম স্থান পেয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রকাশিত সোশ্যাল সায়েন্স রিভিউ ও এশিয়াটিক সোসাইটি জার্নালের সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটির ২০ খণ্ডের বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ জ্ঞানকোষ রচনা প্রকল্পের পরিচালক ও প্রধান সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

ড. হারুন-অর-রশিদের নেতৃত্বে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় পেয়েছে যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ডভিত্তিক ইউরোপ বিজনেস অ্যাসেমব্লির শ্রেষ্ঠ আঞ্চলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি। তিনি নিজেও পেয়েছেন সেরা ব্যবস্থাপকের সম্মানজনক পুরস্কার।