ফেসবুকের বিরুদ্ধে ৩৫ বিলিয়ন ডলারের মামলা

এমএনএ সাইটেক ডেস্ক : সোস্যাল মিডিয়া জায়ান্ট ফেসবুকের ভবিষ্যৎ কোন পথে? গোপনীয়তা লঙ্ঘন, ভুয়া খবর ও তথ্য বেহাত ঠেকাতে ব্যর্থতা এবং ব্যবহারকারীদের তথ্যের অপব্যবহার নিয়ে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে বিতর্ক বাড়ছে। এবার ব্যবহারকারীদের ফেসিয়াল ডাটা অপব্যবহার-সংক্রান্ত সাড়ে ৩ হাজার কোটি ডলারের (৩৫ বিলিয়ন ডলার) একটি ক্ল্যাস অ্যাকশন মামলার কার্যক্রম বন্ধের যুদ্ধে হেরেছে ফেসবুক। যুক্তরাষ্ট্রের ইলিনয় অঙ্গরাজ্যে দায়ের করা মামলার শুনানি বন্ধের আহ্বান জানিয়েছিল প্রতিষ্ঠানটি। তবে তিন সদস্যের বিচারক প্যানেল ফেসবুকের ওই আবেদন খারিজ করেছেন। ফেসবুক এখন যদি সুপ্রিম কোর্টে না যায়, তবে ৩৫ বিলিয়ন ডলারের ক্ল্যাস অ্যাকশন মামলাটির শুনানি শুরু হবে।

ফেসবুকের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলায় অভিযোগ করা হয়, ইলিনয়ের লোকজনের কাছ থেকে তাদের আপলোড করা ছবি স্ক্যান করে চেহারা শনাক্তের আগে কোনো অনুমতি নেয়নি ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। এমনকি সংগৃহীত ওই তথ্য কতদিন ফেসবুক সংরক্ষণ করবে, সে বিষয়েও ব্যবহারকারীদের জানানো হয়নি। ২০১১ সাল থেকে চেহারা শনাক্ত করতে ফেসবুক তাদের ম্যাপিং শুরু করে। ইলিনয়ের মামলায় হেরে গেলে ভুক্তভোগী ব্যবহারকারীপ্রতি ১ হাজার থেকে ৫ হাজার ডলার জরিমানা দিতে হবে। মোট ৭০ লাখ ভুক্তভোগীকে এ জরিমানা দিতে হলে ফেসবুককে সর্বোচ্চ ৩ হাজার ৫০০ কোটি ডলার গুনতে হবে।

ফেসবুক তাদের ফেসিয়াল রিকগনিশন প্রযুক্তির ব্যবহার শুরুর সময় বলেছিল, ফেসবুক-বন্ধুদের শনাক্ত করতে এ প্রযুক্তি কাজে লাগানো হবে।

বিচারকদের ভাষ্যে, ফেসিয়াল রিকগনিশন সফটওয়্যার কোনো ব্যক্তির ব্যক্তিগত বিষয়গুলো এবং প্রকৃত পছন্দের বিষয় লঙ্ঘন করে। এটি ইলিনয়ের বায়োমেট্রিক ইনফরমেশন প্রাইভেসি অ্যাক্ট লঙ্ঘনের শামিল।

বিবৃতিতে ফেসবুক জানিয়েছে, ফেসিয়াল রিকগনিশন সফটওয়্যারের ব্যবহার নিয়ে ফেসবুক বরাবরই ব্যবহারকারীদের নির্দেশনা দিয়ে আসছে। এটা তারা ব্যবহার করবেন কিনা, সে নিয়ন্ত্রণও তাদের হাতে রয়েছে। ফেসবুকের পক্ষ থেকে অপশনগুলো পর্যালোচনা করে দেখা হচ্ছে এবং আইনি লড়াই চালিয়ে যাওয়া হবে।

ফেসবুক এর আগে গোপনীয়তা ইস্যু নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল ট্রেড কমিশনের সঙ্গে রেকর্ড ৫০০ কোটি ডলারের একটি সমঝোতা চুক্তি করেছে। তবে ইলিনয়ে তার চেয়েও বড় জরিমানার মুখোমুখি হতে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

গত সেপ্টেম্বরে ফেসিয়াল রিকগনিশন প্রযুক্তি ও এ-সংশ্লিষ্ট তথ্য ব্যবস্থাপনার বিষয় নোটিফিকেশনের মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের জানাতে শুরু করেছিল ফেসবুক। এর অংশ হিসেবে ফেসবুক তাদের সেটিংসে পরিবর্তন এনেছে। এতে ফেসবুকে পোস্ট করা আপনার কোনো ছবি যাতে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ফেসবুক শনাক্ত করতে না পারে, তার সুবিধা রাখা হয়েছে। অর্থাৎ ব্যবহারকারী চাইলে ফেসবুকে ফেস রিকগনিশন বন্ধ রাখতে পারবেন।

ফেসবুকের ‘ট্যাগ সাজেশন’ ফিচার চালু রাখা ব্যবহারকারীদের কাছেও নোটিফিকেশন পাঠিয়েছে ফেসবুক। নতুন ফেসবুক ব্যবহারকারীদেরও এ নোটিফিকেশন দেয়া হয়েছে। যেসব ব্যবহারকারী নোটিফিকেশন পাননি, তাদের উদ্দেশে একটি ব্লগ পোস্ট করেছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

ওই ব্লগ পোস্টে জানানো হয়, ট্যাগ সাজেশন সেটিংসটিকে রিব্র্যান্ডিং করে ‘ফেসিয়াল রিকগনিশন’ করা হয়েছে। এটি বন্ধ করে দিলে ফটো রিভিউ ফিচার ও অটো-ট্যাগ সাজেশন বন্ধ হবে। তবে ব্যবহারকারী চাইলে তা ম্যানুয়ালি ট্যাগ করতে পারবেন।

অ্যাপ থেকে ফেসবুকে ফেসিয়াল রিকগনিশন অনুমতি বন্ধ করতে মূল স্ক্রিনের ডান কোনায় তিনটি ডট আইকনে ক্লিক করুন। স্ক্রল করে সেটিংস অ্যান্ড প্রাইভেসি অপশনে যান। এরপর সেটিংস থেকে প্রাইভেসি ও সেখান থেকে ফেসিয়াল রিকগনিশন অপশনে যেতে হবে। সেখানে ‘ডু ইউ ওয়ান্ট ফেসবুক টু বি অ্যাবল টু রিকগনাইজ ইউ ইন ফটোজ অ্যান্ড ভিডিওজ’ বক্সে প্রেস করতে হবে। পরবর্তী স্ক্রিনে ‘নো’ নির্বাচন করে দিন। এতে ফিচারটি বন্ধ হবে।

x

Check Also

হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিন আজ

এমএনএ রিপোর্ট : বাংলা সাহিত্যাঙ্গনে তিনি ধ্রুবতারা। তার বইয়ের ভাষায় কথার জাদুতে মোহিত হননি এমন ...

Scroll Up