বলিউডের সেরা সাত ব্যবসাসফল ছবি

এমএনএ বিনোদন ডেস্ক : উপমহাদেশে সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিগুলোর মধ্যে ভারতীয় তথা বলিউড একটু এগিয়ে। তাদের সিনেমা নিয়ে বিশ্বের অন্যান্য দেশেও আগ্রহ লক্ষ্য করা যায়। বিগত কয়েক বছর ধরে দেশটির বেশকিছু সিনেমা বক্স অফিসে শত শত কোটি রুপি আয় করে নিয়েছে।

যুগের সাথে তাল মিলিয়ে গল্পের পাশাপাশি প্রযুক্তির ব্যবহারও এগিয়ে যাচ্ছে তারা। সিনেমার জন্য কোটি কোটি টাকা যেমন খরচ করছেন, তেমনি বক্স অফিসে আয় করছেন শত শত কোটি টাকা।

বলিউডের ইতিহাসে এ যাবৎ সবচেয়ে ব্যবসাসফল সাত সিনেমা নিয়ে সাজানো এ প্রতিবেদন। প্রতিবেদনটি তৈরি করেছে মোসাম্মৎ সেলিনা হোসেন।

দঙ্গল : দঙ্গল (বাংলা: কুস্তি প্রতিযোগিতা) হচ্ছে ২০১৬ সালের ২৩ ডিসেম্বর মুক্তিপ্রাপ্ত ভারতীয় পরিচালক নিতেষ তিওয়ারী পরিচালিত হিন্দী ভাষার আত্মজৈবনিক ক্রীড়াকেন্দ্রিক চলচ্চিত্র। আমির খান এই চলচ্চিত্রে মহাবীর শিং ফোগাত চরিত্রে অভিনয় করেছেন যিনি তার দুই মেয়ে গীতা এবং ববিতা কুমারীকে কুস্তি শিক্ষা দেন। গীতা ২০১০ সালের কমনওয়েলথ গেমসে এবং ববিতা রৌপ্য পদক অর্জন করেন। ছবিতে প্রধান প্রধান চরিত্রগুলোতে অভিনয় করেছেন আমির খান, সাক্ষী তানোয়ার, ফাতিমা সানা শেখ, জারা ওয়াসিম, সানিয়া মালহোত্রা, সুহানি ভাটনগর প্রমুখ। সিনেমাটি প্রযোজনা করেছেন আমির খান, কিরন রাও এবং সিদ্ধার্থ রয় কাপুর। ‘দঙ্গল’ মূলত একটি বায়োগ্রাফিক্যাল-স্পোর্টস-ড্রামা ঘরানার সিনেমা। ৭০ কোটি রুপি ব্যয়ে নির্মিত এই সিনেমাটি এখন পর্যন্ত আয় করেছে ২,১০০ কোটি কোটি রুপি।

বাহুবলি ২: দ্য কনক্লুশন: বাহুবলী ২: দ্য কনক্লুশন ২০১৭ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত তেলুগু ভাষার ভারতীয় মহাকাব্যিক মুভি। দুই খণ্ডে সিরিজের এই মুভিটির কাহিনী রচনা ও পরিচালনা করেছেন এস. এস. রাজামৌলি এবং প্রযোজনা করেছেন শবু ইয়ারলাগাড্ডা ও প্রসাদ দেবিনেনি। চলচ্চিত্রটি একই সাথে তেলুগু এবং তামিল ভাষায় নির্মিত হয়, সেইসাথে ডাবিংকৃতভাবে মুক্তি পায় হিন্দি ও মালায়ালাম ভাষায়। বাহুবলী ২: দ্য কনক্লুশনে প্রধান প্রধা চরিত্রে অভিনয় করেছেন প্রভাস, রানা দাগ্গুবাটি, তামান্না, অনুশকা শেট্টি, রামাইয়া কৃষ্ণন, সত্যরাজ, আদিভি সেশ, তানিকেল্লা ভরণী, সুদীপ প্রমুখ। এটি বাহুবলী: দ্য বিগিনিং চলচ্চিত্রটির দ্বিতীয় পর্ব। মুভিটি এখনো পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী প্রায় ১৭৯০ কোটি রূপি আয় করে।

পিকে : ভারতীয় সিনেমার ইতিহাসে সর্বকালের সেরা ব্যবসাসফল সিনেমার তালিকায় ‘পিকে’ হচ্ছে তৃতীয়। বিধু বিনোদ চোপড়া ও রাজকুমার হিরানি প্রযোজিত এই সিনেমাটি মূলত একটি সায়েন্স ফিকশন-কমেডি ঘরানার সিনেমা। পিকে ছবিটির কাহিনী লিখেছেন রাজকুমার হিরানী এবং অভিজিৎ জোশী। ২০১৪ সালের ১৯ ডিসেম্বর মুক্তিপ্রাপ্ত এই মুভিটিতে পিকে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন আমির খান এবং অন্যান্য চরিত্রে আছেন অনুশকা শর্মা, সঞ্জয় দত্ত, বোমান ঈরানী ও সুশান্ত সিংহ রাজপুত প্রমুখ। এতে পিকে নামের এক মানব-আকৃতির এলিয়েনের (আমির খান) গল্প বলা হয়েছে, যে এক তরুণী টিভি সাংবাদিকের (আনুশকা শর্মা) সঙ্গে বন্ধুত্ব করে এবং ধর্মান্ধতা ও কুসংস্কার নিয়ে প্রশ্ন তোলে। নির্মাতা হিরানীর মতে মুভিতে তিনি আমিরের পিকে চরিত্রটি আব্রাহাম কব্বর নামে এক যুক্তিবাদীর বাস্তব জীবনী থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে সাজিয়েছেন। মাত্র ৮৫ কোটি রুপি ব্যয়ে নির্মিত এই সিনেমাটি বিশ্বব্যাপী প্রায় ১০৩১ কোটি রূপি আয় করেছে।

সিক্রেট সুপারস্টার : এটি ভারতীয় সঙ্গীত-নাট্য চলচ্চিত্র, যেটি রচনা ও পরিচালনা করেছেন অদ্বৈত চন্দন এবং প্রযোজনা করেছেন আমির খান ও কিরন রাও। এর মুল কাহিনী হল একটি মুসলিম বালিকাকে নিয়ে যে কিনা সঙ্গীত শিল্পী হতে চায়। বরোদার ১৫ বছরের স্কুলছাত্রী ইনসিয়া মালিককে ঘিরে আবর্তিত হয় পুরো সিনেমা। যাঁর দুচোখ ভরে স্বপ্ন, একদিন মস্ত বড় সঙ্গীতশিল্পী হবে। কিন্তু তাঁর এই স্বপ্নে বাধা হয়ে দাঁড়ায় রক্ষণশীল, বদমেজাজী বাবা। তবে স্বপ্নকে সত্যি করার সিঁড়িতে ওঠার জন্য পাশে পায় মাকে। ইনসিয়ার মায়েরও একসময় গায়িকা হবার স্বপ্ন ছিল। কিন্তু তার স্বামীর বিপত্তিতে তা আর সম্ভব হয়নি। একই ঘটনা যখন তার ১৪ বছরের মেয়ে ইনসিয়ার জীবনে ঘটতে থাকে তখন ইনসিয়ার মা তার প্রতিবাদ করে। একসময় সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মে সুপারস্টার হয়ে ওঠে বোরখায় মুখ ঢাকা ইনসিয়া। আর ইনসিয়ার এই স্বপ্নের উড়ানে পথপ্রদর্শক হয়ে আসেন রকস্টার আমির খান। এতে মূখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন জাইরা ওয়াসিম, মেহের ভিজে ও আমির খান। ১৫ কোটি রুপি রুপি ব্যয়ে নির্মিত এই সিনেমাটি সর্বমোট আয় করেছে ৯৭৭ কোটি রুপি।

বজরঙ্গি ভাইজান : ড্রামা ঘরানার বলিউড সিনেমা ‘বজরঙ্গি ভাইজান’ রয়েছে তালিকার চতুর্থ স্থানে। সিনেমাটি মুক্তি পায় ২০১৫ সালের ১৫ জুলাই। কবির খান পরিচালিত এই সিনেমাটিতে অভিনয় করেছেন সালমান খান, হার্শালি মালহোত্রা, নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী, কারিনা কাপুর খান সহ আরো অনেকে। ৯০ কোটি রুপি ব্যয়ে নির্মিত এই সিনেমাটি সর্বমোট আয় করেছে ৯৭০ কোটি রুপি। সিনেমাটি প্রযোজনা করেছিলেন সালমান খান এবং পারভেজ শায়েখ।

বাহুবলি-দ্য বিগিনিং : তালিকার ৬ষ্ঠ স্থানে রয়েছে একইসাথে তামিল ও তেলেগু ভাষায় নির্মিত ভারতীয় সিনেমা ‘বাহুবলি : দ্য বিগিনিং’। এটি একটি ভারতীয় এপিক হিস্ট্রিক্যাল ফিকশন সিনেমার ১ম অংশ। দুই অংশের এই মুভিটির কাহিনী রচনা ও পরিচালনা করেছেন এস. এস. রাজামৌলি এবং প্রযোজনা করেছেন শবু ইয়ারলাগাড্ডা ও প্রসাদ দেবিনেনি। মুভিটি একই সাথে তেলুগু এবং তমিল ভাষায় নির্মিত হয়েছে, সেইসাথে ডাবিংকৃতভাবে মুক্তি পেয়েছে হিন্দি ও মালায়ালম ভাষায়। বাহুবলীতে প্রধান চরিত্রগুলোতে অভিনয় করছেস তামিল জনপ্রিয় অভিনেতা প্রভাস, রানা দাগ্গুবাটি, তামান্না ভাটিয়া, অনুশকা শেট্টির, রামাইয়া কৃষ্ণন, সত্যরাজ, আদিভি সেশ, তানিকেল্লা ভরণী, সুদীপ প্রমুখ। এই সিনেমাটি মুক্তি পেয়েছিল ২০১৫ সালে ১০ জুলাই। ১২০ কোটি রুপি ব্যয়ে নির্মিত এই সিনেমাটি সর্বমোট আয় করেছে ৬৫০ কোটি রুপি।

পদ্মাবত : ২০১৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ভারতীয় মহাকাব্যিক সময়ের নাট্য চলচ্চিত্র। এটি পরিচালনা করেন সঞ্জয় লীলা বনশালি। ছবিতে নাম ভূমিকায় (রানী পদ্মিনী) অভিনয় করেন দীপিকা পাড়ুকোন, পাশাপাশি শাহিদ কপূর মহারাওয়াল রতন সিং চরিত্রে এবং রনবীর সিং সুলতাল আলাউদ্দিন খিলজি চরিত্রে অভিনয় করেন। এছাড়া অন্যান্য পার্শ্ব চরিত্রে অভিনয় করেন অদিতি রাও হায়দারি, জিম সর্ব, রাজা মুরাদ এবং অনুপ্রিয়া গোয়েঙ্কা। মালিক মুহম্মদ জায়সী রচিত পদ্মাবত (১৫৪০) মহাকাব্যের উপর ভিত্তি করে নির্মিত এই চলচ্চিত্রটিতে রাজপুত রাণী পদ্মাবতীর কাহিনীর বিবৃতি করে, যিনি খিলজি থেকে নিজেকে বাঁচাতে জওহর (আত্মবলিদান) দেন।

১৯০ কোটি রূপি নির্মাণ ব্যয়ে নির্মিত পদ্মাবত হলো এখনো পর্যন্ত নির্মিত সবচেয়ে ব্যয়বহুল ভারতীয় চলচ্চিত্রের মধ্যে একটি। এই সিনেমাটি সর্বমোট আয় করেছে ৬৮৫ কোটি রুপি।

x

Check Also

যে অডিও রেকর্ডের কারণে ফেঁসে যান তুরিন আফরোজ

এমএনএ রিপোর্ট : মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেপ্তার ওয়াহিদুল হকের মোবাইল ফোনে থাকা দুই অডিও রেকর্ডের ...

Scroll Up