বাংলাদেশ ও ইন্দোনেশিয়ার মধ্যে ৫ চুক্তি সই

এমএনএ অর্থনীতি রিপোর্ট : বাংলাদেশ ও ইন্দোনেশিয়া দু’দেশের মধ্যে বাণিজ্য, কূটনীতি, মৎস খাত ও জ্বালানি ক্ষেত্রে সহযোগিতা বৃদ্ধির জন্য পাঁচটি চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সই করেছে।
রোববার সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে দু’নেতার মধ্যে অনুষ্ঠিত দ্বিপাক্ষিক বৈঠকের পর সফররত ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে চুক্তি ও সমঝোতা স্মারকগুলো সই হয়।
দু’নেতার দ্বিপাক্ষিক বৈঠক শেষে দু’দেশের মধ্যে অগ্রাধিকার বাণিজ্য সুবিধা সংক্রান্ত চুক্তি, দু’দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মধ্যে নিয়মিত বৈঠক আয়োজনে সমঝোতা, মৎস্যসম্পদ আহরণ সংক্রান্ত বিষয়ে যৌথ সম্মতিপত্র, তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাসের (এলএনজি) টার্মিনালে অবকাঠামো উন্নয়ন ও এ সংক্রান্ত বিষয়ে দু’টি সমঝোতা স্মারক সই হয়।
বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ ও ইন্দোনেশিয়ার বাণিজ্যমন্ত্রী ইনগারটিয়াস্তো লুসিতানিয়া নিজ নিজ দেশের পক্ষে যৌথ মন্ত্রিসভা পর্যায়ের ‘অগ্রাধিকারমূলক বাণিজ্য সম্প্রসারণ’ বিষয়ক বিশেষ বাণিজ্য চুক্তি করার জন্য আলোচনার শুরুর ঘোষণায় সই করেন।
দু’দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন ‘ফরেন অফিস কনসালটেশন’ চালুর বিষয়ে সমঝোতা স্মারক সই করেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী ও ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্র বিষয়ক মন্ত্রী রেটনো মারসুদি।
মৎস ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ এবং ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্র বিষয়ক মন্ত্রী রেটনো মারসুদি সাগরে বেআইনিভাবে মৎস আহরণ বন্ধে দু’দেশের সহযোগিতা বৃদ্ধিতে একটি যৌথ ঘোষণায় সই করেন।
সমন্বিত গ্যাস অবকাঠামোর উন্নয়নেও ইন্দোনেশিয়ার সঙ্গে একটি সমঝোতা স্মারকে সই করে বাংলাদেশ।
বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ ও ইন্দোনেশিয়ার জ্বালানি বিভাগ পেরতামিনার ভাইস প্রেসিডেন্ট গিনানজার সোফিয়ান এই সমঝোতা স্মারকে সই করেন।
এছাড়া পেট্রো বাংলার সচিব সৈয়দ আসাদুজ্জমান ও পেরতামিনার ভাইস প্রেসিডেন্ট উইকো মিগানতরো তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাসের (এলএনজি) ক্রয়-বিক্রয় সংক্রান্ত একটি সমঝোতা স্মারকে সই করেন।