বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার পটুয়াখালী জেলা শাখার ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত

এমএনএ রিপোর্ট : বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা (বিএসকে) পটুয়াখালী জেলা শাখার ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথির বক্তব্যে, আগামী একচল্লিশ সালে বাংলাদেশকে উন্নত দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে নতুন প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে অভিভাবকদের প্রতি আহবান জানান হয়।

গত শুক্রবার ২৬ জুলাই, ২০১৯ ইং তারিখে পটুয়াখালী শিশু একাডেমীতে বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার পটুয়াখালী জেলা শাখার ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন সাবেক ধর্মপ্রতিমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পটুয়াখালী জেলা শাখার সভাপতি সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এডভোকেট মো. শাহজাহান মিয়া। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাবেক তথ্য উপদেষ্টা ও ডেইলি অবজারভার সম্পাদক ইকবাল সোবহান চৌধুরী।

এতে বক্তব্য সম্মানীয় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও কিশোর বাংলা-র সম্পাদক মীর মোশাররেফ হোসেন পাকবীর, পটুয়াখালী-৩ আসনের সংসদ সদস্য জনাব এস. এম. শাহজাদা ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য কাজী কানিজ সুলতানা হেলেন। এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পটুয়াখালীর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব কাজী আলমগীর, কেন্দ্রীয় বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার সভাপতি মিয়া মনসফ ও সাধারণ সম্পাদক ইয়াছিন মোহাম্মদ।

কেন্দ্রীয় বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার সভাপতি মিয়া মনসফ প্রধান আলোচক হিসেবে এবং সাধারণ সম্পাদক ইয়াসিন মোহাম্মদ বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। মেলার পটুয়াখালীর জেলার সভাপতি এডভোকেট উজ্জ্বল বোসের সভাপতিত্বে বেলা ১০টা থেকে এই অনুষ্ঠান সঞ্চালিত হয়।

 

জাতীয় পতাকা উত্তোলন করছেন প্রধান অতিথি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সাবেক তথ্য উপদেষ্টা ও বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার প্রধান উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, অনুষ্ঠানের উদ্বোধক সাবেক ধর্মপ্রতিমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পটুয়াখালী জেলা শাখার সভাপতি সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এডভোকেট মো. শাহজাহান মিয়া, পটুয়াখালী-৩ আসনের সংসদ সদস্য জনাব এস. এম. শাহজাদা, সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য কাজী কানিজ সুলতানা হেলেন ও সম্মানীয় অতিথি কেন্দ্রীয় বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও কিশোর বাংলা-র সম্পাদক মীর মোশাররেফ হোসেন পাকবীরসহ অন্যান্যরা।

আমন্ত্রিত অতিথিদের সঙ্গে মঞ্চে বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার পটুয়াখালী জেলা শাখার নবনির্বাচিত নেতৃবৃন্দ।

প্রধান অতিথি ইকবাল সোবহান চৌধুরী তার বক্তব্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডগুলোকে জনগনের সামনে তুলে ধরার আহবান জানান। তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু একটি চেতনার নাম। বাংলাদেশের মাটি থেকে বঙ্গবন্ধুর নামকে কখনও মুছে ফেলা যাবে না। যতদিন বাংলাদেশের পতাকা উড়বে ততদিন এদেশের সকল মানুষের মনে বঙ্গবন্ধুও বেঁচে থাকবেন।

সম্মানীয় অতিথি মীর মোশাররেফ হোসেন পাকবীর তার বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশের শিশুদের মাঝে বঙ্গবন্ধুর চেতনাকে ছড়িয়ে দেওয়ার নিমিত্তে সকলকে কাজ করে যেতে হবে যাতে করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের যে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে ও হচ্ছে তা ভবিষ্যৎ প্রজন্মও অব্যহত রাখতে পারে। বাংলাদেশের শিশু কিশোরদের সৃজনশীল মানসিক বিকাশের উপরেও তিনি গুরুত্ব আরোপ করেন।

পুরষ্কার বিজয়ীদের হাতে কিশোর বাংলার পক্ষ থেকে স্মারক উপহার তুলে দিচ্ছেন কেন্দ্রীয় বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও কিশোর বাংলা-র সম্পাদক মীর মোশাররেফ হোসেন পাকবীর।

কিশোর বাংলার পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা উপহার হাতে নিয়ে আমন্ত্রিত অতিথিদের সাথে মঞ্চে বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার পটুয়াখালী শাখার পুরষ্কার বিজয়ীরা।

এমপি এস এম শাহজাদা বলেন, বর্তমান সরকার উন্নয়নের রোড ম্যাপ ধরে এগিয়ে যাচ্ছে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে। সেই দিন বেশী দূরে নয়, উন্নত দেশ হিসেবে বিশ্বের মানচিত্রে বাংলাদেশ মাথা তুলে দাড়াবে।

বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা পটুয়াখালী জেলার প্রথম প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য কাজী কানিজ সুলতানা হেলেন এমপি বলেন, আমি বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা পটুয়াখালী শাখায় কাজ সুযোগ পাওয়ায় গর্ববোধ করি। তিনি বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার সাংগঠনিক কাজের ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং অতীতের মতো এই সংগঠনের যেকোন প্রয়োজনে পাশে থাকার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন ।

সম্মেলনের পরে মনোরম র‌্যালি নিয়ে শহরের বিভিন্ন রাস্তা প্রদক্ষিণ করছেন অতিথিরা।

এর আগে জাতীয় পতাকা এবং সংগঠনের পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে সম্মেলনের সূচনা শেষে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ। এরপর সম্মেলন শেষে শিশু-কিশোরদের নিয়ে একটি মনোরম র‌্যালি শহরের বিভিন্ন রাস্তা প্রদক্ষিণ করে শিশু একাডেমীর অডিটোরিয়ামের সামনে এসে শেষ হয়। সম্মেলনে কিশোর বাংলা-র পক্ষ থেকে শিশু-কিশোরদের স্মারক উপহার দেয়া হয়। স্থানীয় শিশু কিশোরদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও নানা আয়োজনের ভেতর দিয়ে দিনটি পালিত হয়।সমগ্র অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন কেন্দ্রীয় মেলার সাংগঠনিক সম্পাদক মুজাহিদুল ইসলাম প্রিন্স।

আলোচনা শেষে এস এম শাহজাদা এমপি ও কাজী সুলতানা হেলেন এমপি বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা পটুয়াখালী জেলা শাখার নবনির্বাচিত কমিটির সদস্যদের নাম ঘোষণা করেন। এতে আগামী তিন বছরের জন্য সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন এ্যাড. উজ্জ্বল বোস ও তরিকুল ইসলাম রুবেল।

x

Check Also

তাইওয়ানের কাছে যুক্তরাষ্ট্রের ৬৬ যুদ্ধবিমান বিক্রি

এমএনএ ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : চীনের সঙ্গে চলমান ‘বাণিজ্য যুদ্ধ’সহ বিভিন্ন সংকটের মধ্যেই তাইওয়ানের কাছে ৬৬টি ...

Scroll Up