বিনা কারণে কাউকে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না : সিইসি

এমএনএ রিপোর্ট : প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা বলেছেন, বিনা কারণে কাউকে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না। পুলিশ নির্বাচন কমিশনের (ইসি) কথা মতো চলছে। তফসিল ঘোষণার পর ইসির কথার বাইরে কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি।

আজ শনিবার সকালে আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে আগামী ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠেয় একাদশ সংসদ নির্বাচনে দায়িত্ব পালনকারী মেজিস্ট্রেটদের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

সিইসি বলেন, পুলিশ প্রশাসন কমিশনের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। তারা আমাদের কথা মান্য করছে। আমাদের কথার বাইরে বিনা কারণে পুলিশ কাউকে গ্রেপ্তার করছে না। আইন মতো যেভাবে আমাদের যাওয়া দরকার, আমরা সেভাবে যাচ্ছি।

নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার-হয়রানি নিয়ে বিএনপির টানা অভিযোগের প্রেক্ষাপটে আজ শনিবার নির্বাচন ভবনে সাংবাদিকদের প্রশ্নে একথা বলেন নূরুল হুদা।

বিএনপিসহ জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট অভিযোগ করে আসছে, পুলিশ বিরোধী নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার-হয়রানি থামায়নি, ফলে নির্বাচনে সবার সমান সুযোগ নিশ্চিত হচ্ছে না।

সিইসি বলেন, নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড (সমতল ক্রীড়াভূমি) বজায় রয়েছে। সেটি থাকবে।

নির্বাচনের সময়টায় পুলিশকে ইসি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারবেন কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে সিইসি বলেন, নিয়ন্ত্রণে আছে, সেদিনও আমরা পুলিশ… সব পুলিশকে ডেকেছি। তারা আসছে না? আমাদের নির্দেশনা তারা নিয়েছে এবং আমাদের নির্দেশনায় তারা কাজ করবে, কথা দিয়েছে। এখন পর্যন্ত তারা সেটা করে যাচ্ছে। এখানে সরকারের কোনো নির্দেশ নেই।

এর আগে দেশের বিভিন্ন জেলার মেজিস্ট্রেটদের নিয়ে সিইসির উপস্থিতিতে বৈঠক করে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচন সামনে রেখে তাদের নানা দিক নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বৈঠকে।

এদিন ঢাকা, ময়মনসিংহ, কুমিল্লা, নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর, কিশোরগঞ্জ, শেরপুরসহ কয়েকটি জেলার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা যোগ দিয়েছেন।

আগামী ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠেয় একাদশ সংসদ নির্বাচনে দায়িত্ব পালনকারী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের ব্রিফিংয়ের প্রথম দিন আজ। তিন দিনব্যাপী এই ব্রিফিং শেষ হবে আগামী সোমবার।

নির্বাচন পরিচালনার জন্য প্রশাসনিক এই কর্মকর্তাদের সহায়তা নেয় ইসি। এদের নানা দায়িত্ব দেওয়া হয়।

নির্বাচনের আচরণ বিধিমালা বিষয়ে এই নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের তিন দিনব্যাপী ব্রিফিংয়ের উদ্বোধন হয় আজ শনিবার।

অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার পর নির্বাচন প্রশিক্ষণ ইনিস্টিটিউটের (ইটিআই) মহাপরিচালক মোস্তফা ফারুক স্বাগত বক্তব্য দেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সিইসি নূরুল হুদা। ইসি সচিবালয়ের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার, মো. রফিকুল ইসলাম, কবিতা খানম ও শাহাদাত হোসেন চৌধুরী।

আজ শনিবার ১৮টি জেলার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা অংশ নিয়েছে। ২৫ নভেম্বর ও ২৬ নভেম্বরও একই ধরনের অনুষ্ঠান হবে।

রিটার্নিং কর্মকর্তা, সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা, পুলিশ প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্টদের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে গণমাধ্যকর্মীরা উপস্থিত থেকে সংবাদ সংগ্রহ করেন। সাধারণত সিইসি উদ্বোধনী ভাষণ দেওয়ার পরই গণমাধ্যম প্রতিনিধিরা বেরিয়ে আসেন। কিন্তু আজ শনিবার এর ব্যতিক্রম ঘটেছে।

সিইসি বক্তব্য দেওয়া আগে হঠাৎ সাংবাদিকরা ‘চলে যেতে পারেন’ বলে উপস্থাপক ঘোষণা দেন। এ নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়।

x

Check Also

আজ বুধবারের দিনটি আপনার কেমন যাবে?

এমএনএ ফিচার ডেস্ক : আজ ০৪ ডিসেম্বর ২০১৯, বুধবার। নতুন সূর্যালোকে আজ মঙ্গলবারের দিনটি আপনার ...

Scroll Up