বেনাপোল এক্সপ্রেস উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

এমএনএ রিপোর্ট : রাজধানী ঢাকা এবং দেশের বৃহত্তম স্থলবন্দর বেনাপোলের মধ্যে চলাচলের জন্য নতুন আন্তঃনগর ট্রেন বেনাপোল এক্সপ্রেস আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করেছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ বুধবার দুপুরে তার সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে পতাকা নেড়ে হুইসেল বাজিয়ে এই নতুন ট্রেন উদ্বোধন করেন। খবর বাসসের

একই অনুষ্ঠানে তিনি ঢাকা-রাজশাহী’ রুটে চলাচলকারী আন্তঃনগর বিরতিহীন ট্রেন ‘বনলতা এক্সপ্রেস’-এর যাত্রাপথ চাঁপাইনবাবগঞ্জ পর্যন্ত বর্ধিত করেন।

এর আগে ২৫ এপ্রিল ঢাকা-রাজশাহী রুটে আন্তঃনগর বিরতিহীন ‘বনলতা এক্সপ্রেস’র উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।

রেলপথ মন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন এবং এশিয়া উন্নয়ন ব্যাংক’র (এডিবি) আবাসিক প্রতিনিধি মনমোহন প্রকাশ অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন। রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোফাজ্জল হোসেন পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপনার মাধ্যমে রেলখাতের সার্বিক উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরেন।

পরে প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারন্সের মাধ্যমে বেনাপোল এবং চাপাইনবাবগঞ্জ প্রান্তের জনগণের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

বাংলাদেশ রেলওয়ে বলছে, ভারত ভ্রমণকারীদের সুবিধা দিতেই বেনাপোল এক্সপ্রেস চালু করা হচ্ছে। বেনাপোল স্থলবন্দর ব্যবহারকারীদের পাশাপাশি দক্ষিণাঞ্চলের কয়েকটি জেলার মানুষ এতে উপকৃত হবে।

রেলপথ মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, প্রতিদিন ‘বেনাপোল এক্সপ্রেস’-এর এক জোড়া ট্রেন ঢাকা-বেনাপোল রুটে চলাচল করবে। এর মধ্যে যাত্রাপথে ঈশ্বরদী, যশোর এবং ঢাকা বিমানবন্দর স্টেশনে ট্রেনটি যাত্রা বিরতির কথা রয়েছে।

নতুন এই ট্রেনে ঢাকা থেকে বেনাপোল যেতে সময় লাগবে আট ঘণ্টা। বেনাপোল থেকে দুপুর ১টায় ট্রেনটি ছাড়বে, ঢাকায় পৌঁছাবে রাত ৯টায়।

আবার রাত ১২টা ৪০ মিনিটে ঢাকার কমলাপুর থেকে ছেড়ে সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটে বেনাপোল পৌঁছাবে।

বেনাপোল থেকে ছাড়ার পর যশোর, চুয়াডাঙ্গা ও ঈশ্বরদীতে বিরতি দেবে এই ট্রেন। ঈশ্বরদী থেকে সরাসরি ঢাকা চলে আসবে ট্রেনটি।

বর্তমানে যশোর থেকে ঢাকায় যে ট্রেন সেবা চালু রয়েছে, সেটি ১৪টি স্থানে বিরতি নেয়। এতে যশোর থেকে ঢাকায় পৌঁছাতে ১০ থেকে ১১ ঘণ্টা লেগে যায়। সেখানে বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনটি সময় নেবে সাত ঘণ্টা। আর যশোর থেকে এক ঘণ্টার মধ্যে বেনাপোলে পৌঁছে যাবে।

৮৯৬টি আসন এবং ১২টি কম্পার্টমেন্ট সমৃদ্ধ ট্রেনটি প্রতিদিন বেলা সোয়া একটায় যশোরের বেনাপোল রেলস্টেশন থেকে ছেড়ে যাবে। যশোর রেলওয়ে জংশনে পৌঁছে ১৫ মিনিটের বিরতি নেবে। সেখানে যাত্রী ওঠানোর পাশাপাশি রেলের ইঞ্জিন ঢাকামুখী ঘোরানো হবে। এরপর ঈশ্বরদী গিয়ে ট্রেনের চালকসহ অন্যান্য কর্মী বদলের জন্য আরও ১৫ মিনিটের বিরতি থাকবে। পরে ট্রেনটি ঢাকার কমলাপুর স্টেশনে শেষ গন্তব্যে ছেড়ে যাবে। তবে তার আগে ঢাকা বিমানবন্দর স্টেশনে যাত্রী নামানোর জন্য কিছুক্ষণ ট্রেনটি থামানো হবে।

দেশের বৃহত্তর স্থলবন্দর বেনাপোল তল্লাশিচৌকি দিয়ে পাসপোর্টের মাধ্যমে প্রতিদিন ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে ৭ থেকে ৮ হাজার মানুষ চলাচল করে। বেনাপোল থেকে ঢাকায় আসা-যাওয়ার জন্য সরাসরি কোনো ট্রেন সেবা চালু নেই। এতে ভারতগামী যাত্রীদের ঢাকায় পৌঁছাতে চরম ভোগান্তির শিকার হতে হয়। একমাত্র সড়কপথে বাসের ওপর নির্ভর করে তাদের চলাচল করতে হয়। ভারত থেকে আসা যাত্রীদের ভারী ব্যাগ নিয়ে বেশির ভাগ সময় বাসের টিকিট নেওয়ার সময় বিড়ম্বনায় পড়তে হতো। এই সমস্যার নিরসন হচ্ছে। আধুনিক এই ট্রেনের বগি ইন্দোনেশিয়া থেকে আমদানি করা হয়েছে। এ ট্রেনে বিমানের মতো বায়ো-টয়লেট সুবিধা রয়েছে। আসনগুলোও আধুনিক। প্রতিদিন রাত সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা থেকে ট্রেনটি বেনাপোলের উদ্দেশে ছেড়ে আসবে।

রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনে বেনাপোল থেকে ঢাকা পর্যন্ত শোভন চেয়ারের টিকিটের মূল্য ৫৩৪ টাকা, এসি (শীতাতপনিয়ন্ত্রিত) চেয়ারের টিকিটের মূল্য ১ হাজার ১৩ টাকা, এসি প্রথম শ্রেণির টিকিটের মূল্য ১ হাজার ২১৩ টাকা ও এসি বার্থের টিকিটের মূল্য ১ হাজার ৮৬৯ টাকা।

বেনাপোল এক্সপ্রেসে থাকবে নতুন ১২টি কোচ, তার মধ্যে দুটি থাকবে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত। প্রচলিত সুইং ডোরের পরিবর্তে এসব কোচে থাকছে নিরাপদ স্লাইডিং দরজা।

ট্রেনের কম্পার্টমেন্টগুলো ইন্দোনেশিয়া থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে, জনগণ ঈদের সময় এই ট্রেনে ভ্রমণের সুবিধা নিতে পারবেন।

x

Check Also

টাকার অবমূল্যায়ন শুরু করছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক

এমএনএ রিপোর্ট : দীর্ঘদিন বিনিময়মূল্য ধরে রাখার পর মার্কিন ডলারের বিপরীতে টাকার অবমূল্যায়ন শুরু করেছে ...

Scroll Up