ভারত মহাসাগরে চীনের ১১ যুদ্ধজাহাজ মোতায়েন

66
এমএনএ ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : মালদ্বীপে তীব্র সাংবিধানিক সংকট ও জরুরি অবস্থার মাঝেই ভারত মহাসাগরের পূর্বাঞ্চলে যুদ্ধজাহাজ মোতায়েন করেছে চীন। মালদ্বীপ সংকটে ভারতের সামরিক হস্তক্ষেপের গুঞ্জনের মাঝে চলতি মাসে পূর্ব ভারত মহাসাগরে চীনের এগারটি যুদ্ধজাহাজ প্রবেশ করেছে।
আজ মঙ্গলবার চীনা সংবাদমাধ্যম সিনাডটকম ডটসিএন-এর বরাত দিয়ে বার্তাসংস্থা রয়টার্স এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।
সিনাডটকম বলছে, চীনের মোতায়েনকৃত যুদ্ধজাহাজের মধ্যে একটি ডেস্ট্রয়ার বহর, ৩০ হাজার টন পরিবহনে সক্ষম একটি উভচর জাহাজ ও তিনটি ট্যাঙ্কার রয়েছে। তবে ভারত মহাসাগরীয় দ্বীপ রাষ্ট্র মালদ্বীপের সংকটের কারণে এই যুদ্ধজাহাজের বহর মোতায়েন করা হয়েছে কিনা সে বিষয়ে তথ্য দেয়নি চীনা এই সংবাদমাধ্যম।
এতে বলা হয়েছে, ‘আপনি যদি যুদ্ধজাহাজ অথবা অন্যান্য সরঞ্জামের দিকে তাকান তাহলে দেখা যাবে ভারত এবং চীনের নৌ-বাহিনীর মধ্যে দূরত্ব খুব বেশি নয়।’ তবে চীনের এই যুদ্ধজাহাজের বহর কখন এবং কতদিনের জন্য মোতায়েন করা হয়েছে সেবিষয়েও কিছু জানায়নি সিনাডটকম।
এশিয়ার সঙ্গে অন্যান্য অঞ্চলের বাণিজ্যিক ও পরিবহন সম্পর্ক স্থাপনের লক্ষ্যে বেইজিংয়ের ওয়ান বেল্ট অ্যান্ড ওয়ান রোড প্রকল্পে মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট আব্দুল্লা ইয়ামিনের স্বাক্ষরের পর দেশটিতে প্রভাব বিস্তার করা নিয়ে পুরনো শত্রু চীন-ভারতের দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে আসে।
ভারত থেকে প্রায় ৪০০ কিলোমিটার দূরবর্তী দ্বীপরাষ্ট্র মালদ্বীপের সঙ্গে দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক ও নিরাপত্তা সম্পর্ক রয়েছে। ৪ লাখ মুসলিমের দেশ মালদ্বীপে চীনের উপস্থিতি ব্যাপকভাবে ঠেকানোর চেষ্টা করছে ভারত। এমনকি মালদ্বীপের বিরোধী দলীয় নেতা ও নির্বাসিত সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাশিদ দেশটির চলমান অভ্যন্তরীণ সংকটে ভারতকে সামরিক হস্তক্ষেপের আহ্বান জানিয়েছেন।
ভারত মহাসাগরে যুদ্ধজাহাজ মোতায়েনের ব্যাপারে চীনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় কোনো মন্তব্য করেনি। শুক্রবার চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ছবি পোস্ট করে বলছে, পূর্ব ভারত মহাসাগরে উদ্ধার প্রশিক্ষণ অনুশীলন চলছে।
এর আগে চলতি মাসের শুরুর দিকে চীন দেশটির নাগরিকদের মালদ্বীপ ভ্রমণে না যাওয়ার পরামর্শ দিয়ে সতর্কতা জারি করে। মালদ্বীপের রাজনৈতিক অস্থিরতা স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত দ্বীপরাষ্ট্রটি এড়িয়ে চলার পরামর্শ দেয় চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।