লিওনেল মেসি

মেসির গোলে ব্রাজিলকে হারাল আর্জেন্টিনা

এমএনএ স্পোর্টস ডেস্ক : কোপা আমেরিকায় ব্রাজিলের কাছে হারের জ্বালা সহ্য করতে না পেরে দুর্নীতির অভিযোগ এনেছিলেন মেসি। সেই মন্তব্যের জেরে কনমেবল মেসিকে তিন মাসের নিষেধাজ্ঞা দেয়। সৌদি আরবের রিয়াদে সেই নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ব্রাজিলের বিপক্ষেই মাঠে ফেরেন বার্সেলোনা তারকা লিওনেল মেসি। প্রীতি ম্যাচটা তার জন্য হয়ে ওঠে প্রতিশোধের। সুপার ক্লাসিকোর এই ম্যাচে মেসির গোলে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলকে ১-০ গোলে হারিয়েছে আর্জেন্টিনা।

ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা ম্যাচ। খানিকটা নাটক, রোমাঞ্চ না হলে কি চলে! হোক সেটা প্রীতি ম্যাচ। সুযোগ পেয়ে কাজে লাগাতে পারেনি ব্রাজিল। আর্জেন্টিনাও অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছে।

ম্যাচের রংটা অবশ্য ভিন্ন হতে পারত। শুরুতেই পেনাল্টি পেয়ে যায় ব্রাজিল। কিন্তু ম্যাচের ১০ মিনিটে গ্যাব্রিয়েল জেসুস পেনাল্টি থেকে গোল করতে পারেননি। ঠিক তার তিন মিনিট পরেই পেনাল্টি পায় আলবেসেলেস্তেরা। মেসির শট প্রথমে ফিরিয়ে দেন ব্রাজিল গোলরক্ষক অ্যালিসন। ফিরতি বল পেয়ে যান মেসি। এবার আর গোল করতে ভুল করেননি তিনি। ওই পেনাল্টি মিসের খেসারত ম্যাচ হেরেই দিয়েছে সেলেকাওরা।

সৌদি আরবের মাঠে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা এই প্রীতি ম্য্যাচ শুরুর ১০ মিনিটের মধ্যে পেনাল্টি পায় ব্রাজিল। ফিরমিনোর বাড়ানো বল ডি বক্সের ভেতর পান জেসুস। বল নিয়ে আগানোর মুহূর্তে আর্জেন্টাইন খেলোয়াড় পারেদেসের ফাউলের শিকার হন। পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। বিপত্তি বাঁধে জেসুসের শটে। এই ফরোয়ার্ডের শট হলো বেপথু। আর্জেন্টিনার সমর্থকদের উল্লাস তখন বাঁধভাঙা। তাদের উল্লাস সমুদ্রের গর্জনে পরিণত হয় মিনিট দু-এক পর। ব্রাজিলের সীমানায় অ্যালেক্স সান্দ্রোর ফাউলের শিকার হন মেসি। কিন্তু মেসি যে শট নিলেন ব্রাজিল গোলরক্ষক আলিসন সেটা ঠেকিয়ে দিলেন। ভাগ্যদেবী আর্জেন্টিনার পক্ষেই ছিল হয়তো। তা না হলে অমন বল পুরোপুরি ক্লিয়ার করতে না পারায় সেটা ঘুরেফিরে মেসির কাছেই কেন যাবে! ম্যাচের ১৩তম মিনিটে মেসিও আলগা বল পেয়ে জালে জড়াতে ভুল করেননি।

পুরো ম্যাচে ব্রাজিল ৬৬ ভাগ বল তাদের পায়ে রাখে। অন্যদিকে বলের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে খেলতে পছন্দ করা আর্জেন্টিনা মাত্র ৩৪ ভাগ বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে খেলে। কিন্তু একের পর এক আক্রমণে ব্রাজিলের নাভিশ্বাস তুলে ছাড়ে মেসির সঙ্গে আর্জেন্টিনার তরুণ আক্রমণভাগ। পুরো ম্যাচে ব্রাজিল গোলের লক্ষ্যে শট নিতে পারে মাত্র একটি। অন্যদিকে আর্জেন্টিনা গোল মুখে শট নিয়েছে নয়টি।

তা থেকে আরও গোটা দুই গোল আলবেসেলেস্তেরা পেয়ে যেতে পারত। কিন্তু ব্রাজিলের গোলবারে থাকা লিভারপুল গোলরক্ষক অ্যালিসন দেয়াল হয়ে দাঁড়ান। আর্জেন্টিনার আক্রমণের সঙ্গে এ ম্যাচে রক্ষণও প্রশংসার দাবি রাখে। বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে খেলেও কুতিনহো, উইলিয়ান কিংবা ফিরমিনোরা তাদের রক্ষণ ভাঙতে পারেনি। আর্জেন্টিনা গোলরক্ষককে পরীক্ষা নেওয়ারও সুযোগ পায়নি ব্রাজিল। পুরো ম্যাচে নেইমারের অভাব যেন স্পষ্ট অনুভব করেছেন ব্রাজিল কোচ তিতে।

সুপার ক্লাসিকোয় দারুণ এ জয়ে আর্জেন্টিনা অপরাজিত থাকার ধারা ধরে রাখল। টানা ছয় ম্যাচ অপরাজিত আলবেসেলেস্তে কোচ লিওনেল স্কালোনি এবং তার শিষ্যরা। অন্যদিকে দুঃস্বপ্ন আরও দীর্ঘস্থায়ী হলো ব্রাজিলের। কোপা আমেরিকা জয়ী ব্রাজিল হঠাৎ অচেনা দল হয়ে গেছে। সর্বশেষ পাঁচ ম্যাচে তাই জয়ের স্বাদ পায়নি সাম্বা নৃত্যের ফুটবলের জন্য খ্যাত সেলেকাওরা। ব্রাজিল কোচ তিতের দলের রক্ষণ এবং অ্যাটাকিং মিডফিল্ড নিয়ে আছে প্রশ্ন। দ্রুতই এর সমাধান খুঁজে বের করতে হবে তাকে।

x

Check Also

বরেণ্য অধ্যাপক অজয় রায়ের জীবনাবসান

এমএনএ রিপোর্ট : একুশে পদকপ্রাপ্ত পদার্থ বিজ্ঞানের বরেণ্য অধ্যাপক অজয় রায় (৮৫) রাজধানীর বারডেম হাসপাতালে ...

Scroll Up