যথাযথ শিক্ষার প্রতি মনোযোগ দিন : প্রধানমন্ত্রী

এমএনএ রিপোর্ট : শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে যাতে শিক্ষা কর্মকাণ্ড যথাযথভাবে পরিচালিত হয়, সেদিকে মনোযোগ দিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
আজ শনিবার গণভবনে বিনামূল্যে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ কর্মসূচির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন এবং এ বছরের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি), ইবতেদায়ী, জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি), জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) এবং সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এ আহ্বান জানান। খবর বাসসের
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের ছাত্র-ছাত্রীরা মেধাবী এবং তাদেরকে সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা দেয়া হচ্ছে। তাহলে কেন তারা পরীক্ষায় পাস করবে না। তাই আমি মনে করি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে যাতে শিক্ষা কর্মকাণ্ড যথাযথভাবে পরিচালিত হয়, সেদিকে মনোযোগ দিতে হবে।’
আধুনিক বিশ্বের কথা মাথায় রেখে ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য সময়োচিত পাঠ্যসূচি প্রণয়ন করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘বিশ্ব নিয়মিত পরিবর্তন হচ্ছে। তাই আমাদেরকে আধুনিক বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে সময়োচিত পাঠ্যসূচি প্রণয়ন করতে হবে।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আমাদের শিক্ষা কারিকুলাম তৈরি করতে হবে। কোন বিষয় কীভাবে পড়তে হবে তার সমন্বয় করতে হবে।’
তিনি বলেন, ‘জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তুলতে আমাদের শিক্ষিত জনগোষ্ঠী দরকার। শিক্ষিত জনগোষ্ঠী ছাড়া কোনো দেশ দারিদ্র্যমুক্ত হতে পারবে না।’
শিক্ষার মানোন্নয়নে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রযুক্তির যুগে বিশ্ব খুব কাছের হয়ে গেছে। মানুষও বেশ তাড়াতাড়ি তা গ্রহণ করতে পারছে এবং শিখতে পারছে।
শিক্ষার্থীদের মধ্যে যাদের ফলাফল ভালো হয়েছে প্রধানমন্ত্রী তাদের অভিনন্দন জানান। এছাড়া যাদের ফল ভালো হয়নি তাদের পরবর্তীতে আরও ভালো করার জন্য পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার পরামর্শ দেন প্রধানমন্ত্রী।
প্রধানমন্ত্রীর বক্তৃতার আগে তার হাতে জেএসসি ও জেডিসির ফল তুলে দেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। জেএসসি-জেডিসিতে এবার সম্মিলিতভাবে পাসের হার ৮৩ দশমিক ৬৫ শতাংশ। এদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে এক লাখ ৯১ হাজার ৬২৮ জন।
এর আগে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এবারের প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী পরীক্ষার ফল তুলে দেন। প্রাথমিকে এবার ৯৫ দশমিক ১৮ শতাংশ ও ইবতেদায়িতে ৯২ দশমিক ৯৪ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছে। এদের মধ্যে প্রাথমিকে ২ লাখ ৬২ হাজার ৬০৯ জন এবং ইবতেদায়িতে ৫ হাজার ২৩ জন জিপিএ-৫ পেয়েছে।
x

Check Also

পার্বত্য চট্টগ্রামে উন্নয়নের ঢেউ উঠেছে : প্রধানমন্ত্রী

এমএনএ রিপোর্ট : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম একসময় অশান্ত ছিল। ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় ...

Scroll Up