রবিউল আউয়াল মাসে নবীপ্রেমীদের করণীয়

এমএনএ ফিচার ডেস্ক : কোরআন-সুন্নাহর পর্যালোচনায় দেখা যায়, আল্লাহ তায়ালা কিছু ইবাদতকে তারিখের সঙ্গে জুড়ে দিয়েছেন আর কিছু ইবাদতকে জুড়ে দিয়েছেন দিনের সঙ্গে। তারিখের সঙ্গে সম্পৃক্ত ইবাদতের ক্ষেত্রে দিন কোনটি হচ্ছে, তা দেখার বিষয় নয়। নির্দিষ্ট তারিখেই সেই ইবাদত পালিত হবে, যেকোনো দিনে তা হতে পারে। যেমন হজের নির্ধারিত তারিখ হচ্ছে ৯ জিলহজ। সর্বদা ওই তারিখেই হজ পালিত হবে, তবে বার হিসেবে যেকোনো দিন হতে পারে।

তদ্রূপ রোজার সম্পর্কও তারিখের সঙ্গে। রমজানের প্রথম তারিখ থেকে রোজা শুরু হবে। এতে দিনের হিসাব ঠিক থাকবে না। সপ্তাহের যেকোনো দিন রমজানের প্রথম তারিখ হতে পারে। ঠিক প্রতি চান্দ্রমাসের ১৩, ১৪ ও ১৫ তারিখের নফল রোজার ব্যাপারটিও। তারিখের সঙ্গে এসব ইবাদত সম্পৃক্ত, দিনের সঙ্গে নয়।

পক্ষান্তরে কিছু ইবাদত রয়েছে দিনের সঙ্গে সম্পৃক্ত, যেখানে তারিখ কোনটি, তা দেখার বিষয় নয়। নির্দিষ্ট দিনেই তা পালন করতে হবে, তারিখ যা-ই হোক না কেন। যেমন শুক্রবারের বিভিন্ন আমল। যার মধ্যে রয়েছে ফজরের নামাজের প্রথম রাকাতে সুরায়ে আলিফ লা-ম মী-ম সিজদার ও দ্বিতীয় রাকাতে সুরায়ে দাহর-এর তিলাওয়াত।

উত্তমরূপে গোসল করে সকাল সকাল মসজিদে যাওয়া, সুরা কাহাফের তিলাওয়াত, আসর নামাজের পর স্থান ত্যাগের আগে ৮০ বার বিশেষ দরুদ শরিফ পাঠ করা এবং সূর্যাস্তের পূর্ব মুহূর্তে মহান আল্লাহর দরবারে দোয়া মুনাজাত করা ইত্যাদি। এগুলো শুক্রবার দিনের সঙ্গে সম্পৃক্ত ইবাদত। তারিখের যেখানে কোনো ধর্তব্য নেই।

মাসের যেকোনো তারিখ হতে পারে। কোনো মাসে চারটি শুক্রবার হবে, আবার কোনো মাসে পাঁচটি। দিনের সঙ্গে সম্পৃক্ত আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ ইবাদত হচ্ছে সোমবারের রোজা। প্রতি সপ্তাহের এ দিনে নফল রোজা রাখার অনেক ফজিলত রয়েছে। দিন হিসেবে এটা পরিপালিত হয়ে থাকে, তারিখ দেখে নয়। হাদিস শরিফে এসেছে- ‘নবীজি (সা.)-কে সোমবারের রোজা সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন, এ দিনে আমি জন্মগ্রহণ করেছি এবং এ দিনে আমাকে নবুয়াত দান করা হয়েছে।’ (মুসলিম : ১১৬২)

মুসলিম শরিফে বর্ণিত বিশুদ্ধ এই হাদিস দ্বারা মহানবী (সা.) তাঁর জন্মদিনে উম্মতের করণীয় কী, তা নির্ধারণ করে দিয়েছেন। অন্য হাদিসে নবীজি (সা.) বলেন- সোমবার ও বৃহস্পতিবার বান্দার আমলনামা আল্লাহর দরবারে পেশ করা হয়ে থাকে। অতএব রোজা অবস্থায় আমার আমলনামা পেশ করা হোক, এটা আমি পছন্দ করি। (তিরমিজি : ৭৪৭)

নবীজির (সা.) জন্মের কারণে বছরের প্রতিটি সোমবার অতি মূল্যবান হয়ে গেছে। তাই এ দিনে নফল রোজার বিধান রাখা হয়েছে। এ দিনে রোজা রাখা প্রকৃত নবী-প্রেমের বহিঃপ্রকাশ হিসেবে গণ্য হবে। সোমবার নবীজির (সা.) জন্ম দিন, এটা সহিহ হাদিস দ্বারা প্রমাণিত।

পক্ষান্তরে ১২ রবিউল আওয়াল তাঁর পবিত্র জন্মদিন হওয়ার কথা কোরআনেও নেই, হাদিসেও নেই। ঐতিহাসিকরাও ১২ তারিখে জন্মের বিষয়টি নিশ্চিত করতে পারেননি। প্রকৃতপক্ষে সোমবারই হচ্ছে তাঁর পবিত্র জন্ম দিন, এটা নিশ্চিত করে বলা যায়।

এ ক্ষেত্রে তারিখ দেখার বিষয় নয়, ১২ তারিখও হতে পারে, ভিন্ন তারিখও হতে পারে। প্রকৃত নবী-প্রেমিক হতে হলে প্রতি সোমবার রোজা রাখা চাই। সঙ্গে বৃহস্পতিবারও রাখা উচিত। বিশুদ্ধ হাদিস দ্বারা এগুলো প্রমাণিত। এর বিপরীত দিনের প্রতি লক্ষ না করে তারিখের ভিত্তিতে ১২ তারিখকে জন্মদিন ধরে নিয়ে জশনে-জুলুস বা মিছিল বের করা একটি মনগড়া কাজ বৈ কিছু নয়।

ইসলামের সঙ্গে এসব জশনে-জুলুসের নূ্যনতম কোনো সম্পর্ক নেই। কেননা ইসলামের স্বর্ণযুগে এমন মিছিলের বা জন্মদিন পালনের প্রথা খুঁজে পাওয়া যায় না। নবীজি (সা.) তাঁর পবিত্র যুগে জশনে-জুলুস বা জন্মদিন পালনের নিয়ম ছিল না। পরবর্তী সময়ে খোলাফায়ে রাশেদিনের যুগেও পালিত হয়নি। সাহাবাদের যুগেও কেউ পালন করেননি।

চার ইমামসহ মুহাদ্দিসীনের কেউ তা পালন করেননি। বড় পীর আব্দুল কাদের জিলানি (রহ.), খাজা মঈনুদ্দীন চিশতি আজমীরি (রহ.), শাহজালাল ইয়ামেনি (রহ.)-এর মতো বুজর্গদের কেউ তা পালন করেননি।

তাই আসুন, প্রকৃত নবী-প্রেমের বহিঃপ্রকাশ করতে আমরা প্রতি সোমবার নফল রোজা রাখার অভ্যাস গড়ে তুলি। রোজা অবস্থায় আল্লাহর দরবারে আমাদের আমলনামা পেশ করার সৌভাগ্য অর্জন করি। যদি সময়-সুযোগের অভাবে বা অন্য কোনো কারণে সারা বছর এ রোজা পালনের তাওফিক না হয়, তবে কমপক্ষে রবিউল আওয়াল মাসে এ ইবাদতটি আমরা পালন করতে পারি। হয়তো চারটি রোজা রাখা লাগবে। এতে নবীজির (সা.) আদর্শ বাস্তবায়িত হবে।

পবিত্র কোরআনে বলা হয়েছে- ‘যারা আল্লাহ ও শেষ দিনের আশা রাখে এবং আল্লাহকে অধিক স্মরণ করে, তাদের জন্য রাসুলুল্লাহ (সা.)-এর মধ্যে উত্তম নমুনা রয়েছে।’ (সুরা আল আহযাব : ২১) অতএব রাসুলুল্লাহ (সা.)-এর আদর্শ মোতাবেক প্রতিটি ইবাদত পালন একজন নবী-প্রেমিক বান্দার একান্ত কাম্য হওয়া উচিত। [৩ জানুয়ারি শুক্রবার বসুন্ধরা কেন্দ্রীয় মসজিদে প্রদত্ত হজরত ফকিহুল মিল্লাত মুফতি আব্দুর রহমান (দামাত বারাকাতুহুম)-এর জুম’আ-পূর্ব বয়ান থেকে সংগৃহীত]

x

Check Also

আজ বুধবারের দিনটি আপনার কেমন যাবে?

এমএনএ ফিচার ডেস্ক : আজ ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, বুধবার। নতুন সূর্যালোকে আজ বুধবারের দিনটি আপনার ...

Scroll Up