শমী কায়সার প্রার্থী হলেন এফবিসিসিআই নির্বাচনে

33

এমএনএ অর্থনীতি রিপোর্ট : দেশে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই-এর ২০১৭-১৯ মেয়াদের নির্বাচনে পরিচালক পদে প্রার্থী হয়েছেন শমী কায়সার। তিনি ই-কমার্স ভিত্তিক একটি সংগঠন থেকে এফবিসিসিআইয়ের সাধারণ পরিষদের সদস্য ও ভোটার হয়েছেন। সম্মিলিত গণতান্ত্রিক ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের প্যানেল থেকে নির্বাচন করবেন তিনি।

এই প্যানেলের সভাপতি প্রার্থী শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন। তিনি বর্তমান কমিটির প্রথম সহসভাপতি।

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর পূর্বাণী হোটেলে এই প্যানেল ঘোষণা করা হয়। চেম্বার থেকে ১৮টি ও অ্যাসোসিয়েশন থেকে ১৮টি করে প্রার্থী দিয়েছে এই প্যানেল।

আগামী ১৪ মে নির্বাচন হবে।

অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগ সভাপতির বেসরকারি খাত বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, ঢাকা উত্তরের মেয়র আনিসুল হক, এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি এ কে আজাদ, কাজী আকরাম উদ্দিন আহমদ, মীর নাসির হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, অভিনেত্রী শমী কায়সার (Shomi Kayser) মূলত একজন মঞ্চ এবং টিভি অভিনেত্রী। অনাগ্রহ থেকে শমী কায়সার বাণিজ্যিক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন নি, তবে ভিন্ন ধারার একাধিক চলচ্চিত্রে তিনি অভিনয় করেছেন।

অভিনেত্রী হিসেবে ক্যারিয়ার গড়ার কোনো পরিকল্পনা ছিল না তার। এইচএসসি শেষ করে স্থাপত্যকলায় পড়ার প্রস্তুতি চলছিল। কিন্তু এইচএসসি পড়ার সময়ই আতিকুল হক চৌধুরীর কাছ থেকে অভিনয়ের প্রস্তাব আসে। ‘প্রথম নাটকের সাফল্য আমাকে অভিনেত্রী হতে অনুপ্রাণিত করে’ বলেন অভিনেত্রী শমী।

একসময়ের জনপ্রিয় টিভি অভিনেত্রী শমী কায়সার ২০০৫ সালের শেষের দিকে ইন্দোনেশিয়ার বালি দ্বীপে সর্বশেষ নাটকের কাজ করেন। আলী বশীরের প্রযোজনায় এবং মান্নান হীরার পরিচালনায় নাটকটির নাম ‘নোনা জলের কাব্য’। প্

রায় সাত বছর বিরতির পর ‘প্যারালাল ইমেজ’ টেলিছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে আবার ফিরে আসেন।ভালো চিত্রনাট্যের অভাব এবং নিজস্ব প্রোডাকশন হাউজ ধানসিঁড়ি নিয়ে ব্যস্ততাই তাকে অভিনয় থেকে দূরে সরিয়ে রেখেছিল।

শমী কায়সারের প্রথম বিয়ে হয়েছিল ১৯৯৯ সালে। ভারতীয় নির্মাতা রিঙ্গোকে ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন তখনকার জনপ্রিয় অভিনেত্রী শমী কায়সার। তবে মাত্র দুই বছর আয়ু ছিল এই দাম্পত্য জীবনের। এই বিয়েকে জীবনের বড় ভুল হিসেবে স্বীকার করে শমী বাংলাদেশ প্রতিদিনের সাথে এক সাক্ষাতকারে বলেন, ”আমি ভুল থেকে বের হয়ে আসতে পেরেছি ডিভোর্সের মাধ্যমে’।

২০০৮ সালের ৬ অক্টোবর তারিখে শমী কায়সার বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক আরাফাত এ রহমানকে বিয়ে করেন। শহীদ বুদ্ধিজীবী শহীদুল্লাহ কায়সার এবং সাবেক সংসদ সদস্য পান্না কায়সারের সন্তান শমী কায়সারের ভাই অমিতাভ কায়সার একজন সঙ্গীত শিল্পী।

বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রপতি একিউএম বদরুদ্দুজা চৌধুরীর স্ত্রী মায়া পান্না কায়সারের বোন। এদিক দিয়ে শমী এবং রাজনীতিবিদ মাহি বি. চৌধুরী খালাতো ভাই-বোন।