শিশু একাডেমীর বইমেলায় কিশোর বাংলা

এমএনএ রিপোর্ট : স্বাধীনতার স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০০তম শুভ জন্মদিন ও ৯৯তম জন্মবার্ষিকী এবং জাতীয় শিশু দিবস-২০১৯ উপলক্ষে বাংলাদেশ শিশু একাডেমী আয়োজনে একাডেমী চত্ত্বরে ২১ থেকে ২৬ মার্চ পর্যন্ত ৬ দিন ব্যাপী বইমেলা অনুষ্ঠিত হয়। এতে শিশু-কিশোরদের প্রিয় পত্রিকা কিশোর বাংলা ও ৭৬টি শিশুতোষ প্রকাশনা সংস্থা অংশগ্রহণ করে।

কিশোর বাংলার স্টলটি প্রতিদিন শিশু-কিশোর, অভিভাবক, বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ ও লেখকদের পদচারণায় মুখর হয়ে উঠেছিল। কিশোর বাংলার স্টল পরিদর্শনে এসেছিলেন আইসিটিমন্ত্রী মুস্তাফা জব্বার, শিশু একাডেমীর চেয়ারম্যান সেলিনা হোসেন, বাংলা একাডেমী মহাপরিচালক কবি হাবিবুল্লাহ সিরাজী ও ইমপ্রেস টেলিফিল্ম ও চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর।

দেশের বিশিষ্ট শিশু সাহিত্যিক ও লেখকরা সাহিত্য আড্ডায় মেতেছিল কিশোর বাংলা স্টলে। এই আড্ডায় ছিলেন শিশু সাহিত্যিক আমিরুল ইসলাম, শিশু সাহিত্যিক আনজীর লিটন, কিশোর বাংলার সম্পাদক মীর মোশাররেফ হোসেন, কবি আসলাম সানী, শিশু সাহিত্যিক সুজন বড়ুয়া, ছড়াকার মিয়া মনসফ, ছড়াকার রুমেন রায়হান, ছড়াকার ইমরান পরশ, ছড়াকার হাসনাত আমজাদ, আবৃত্তি শিল্পী শাহাদাত হোসেন নিপু ও রূপন্তী চক্রবর্তী।

৫০% ছাড়, শিশু-কিশোরদের পছন্দনীয় রকমারি চকলেট, পরিবেশ বান্ধব সোনালী আঁশের ব্যাগসহ নানা উপহারের আকর্ষণে মেলা চলাকালীন কিশোর বাংলা স্টলে সার্বক্ষণিক উপচেপড়া ভীড় জমিয়েছিল বিপুল সংখ্যক শিশু-কিশোর। সবকিছু মিলিয়ে শিশু একাডেমীর বইমেলার প্রাণের স্পন্দন ছড়িয়েছে কিশোর বাংলা।

মেলা উপলক্ষে প্রতিদিন মেলামঞ্চে অনুষ্ঠিত হয়েছে সিসিমপুরের হালুম টুকটুকি সিকুরার বিশেষ শো ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে শিশু-কিশোরদের পরিবেশনায় গান, নৃত্য, আবৃত্তি, নাট্যাংশ, বই থেকে পাঠ ও আলোচনা। প্রতিদিন সন্ধ্যায় মেলায় ছয়দিনে ৬টি শিশুবিষয়ক চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হয়।

একাডেমির শহীদ মতিউর মুক্ত মঞ্চে ছিল বিষয়ভিত্তিক আলোচনা ও লেখক-পাঠক কথোপকথন। এতে অংশ নেন দেশের বরেণ্য কবি-সাহিত্যিক, সাংবাদিকসহ শিল্প-সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনের ব্যক্তিবর্গ।

মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান। বিশেষ অতিথি ছিলেন মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব কামরুন নাহার ও বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মিলন কান্তি নাথ। একাডেমীর চেয়ারম্যান কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেনের সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য দেন পরিচালক আনজীর লিটন ও শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন শিশু সাহিত্যিক শাহ আলম।

ছয় দিনব্যাপী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বেশ কয়েকটি ক্যাটাগরিতে অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন সংগঠনের শিশু কিশোরদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণের মধ্য দিয়ে বইমেলার সমাপনী ঘোষণা করা হয়। সমাপনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন শিশু একাডেমীর চেয়ারম্যান কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন, বাংলা একাডেমী মহাপরিচালক কবি হাবিবুল্লাহ সিরাজী, বিশিষ্ট শিশু সাহিত্যিক, ইমপ্রেস টেলিফিল্ম ও চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, শিশু একাডেমীর পরিচালক আনজীর লিটন ও একাডেমী উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।

বঙ্গবন্ধুর ১০০তম জন্মদিন ও ৯৯তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে নবমবারের মতো বাংলাদেশ শিশু একাডেমী আয়োজিত এবারের বইমেলা বিভিন্ন শিশু সংগঠনের নানা রকমের সাংস্কৃতিক উপস্থাপনায় হয়ে উঠেছিল প্রাণবন্ত ও উৎসবমুখর।

x

Check Also

প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার ৭ বছরের জেল-জরিমানা

এমএনএ বিনোদন ডেস্ক : “ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৯৩ ধারা অনুযায়ী সাত বছরের জেল ও জরিমানা হতে ...

Scroll Up