সোলাইমানি হত্যার নাটকীয় বর্ণনা দিলেন ট্রাম্প

এমএনএ ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : ইরানের শীর্ষ সেনা কমান্ডার কাসেম সোলাইমানি মার্কিন হামলায় নিহত হওয়ার পুরো ঘটনাই হোয়াইট হাউস থেকে পর্যবেক্ষণ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গতকাল শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় রিপাবলিকান দলের একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে সেই ঘটনার পুরো বর্ণনা দেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে ওই অনুষ্ঠানে সাংবাদিক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও এই নিয়ে একটি অডিও ফাঁস করেছে সংবাদমাধ্যম সিএনএন।

তবে এই বিষয়ে হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে কোন মন্তব্য করা হয়নি।

হামলার সাফাই দিতে গিয়ে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, সোলাইমানি আমেরিকার বিরুদ্ধে বাজে কথা বলছিলেন। এজন্য তাকে হত্যা করা হয়েছে।

গত ৩ জানুয়ারি বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে মার্কিন ড্রোন হামলায় নিহত হন ইরানের প্রভাবশালী জেনারেল কাসেম সোলাইমানি।

ট্রাম্প জানান, ওই দিন হোয়াইট হাউসে বসে গোটা পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছিলেন। মার্কিন প্রেসিডেন্টের কথায়, ‘সেনা অফিসাররা আমাকে বললেন, তারা (কাসেম সোলাইমানি এবং মুহান্দিস) একসঙ্গে গাড়ীতে আছে স্যার। ওদের হাতে আর ২ মিনিট ১১ সেকেন্ড সময় আছে। বাঁচার জন্য ২ মিনিট ১১ সেকেন্ড। ওরা সাঁজোয়া গাড়িতে আছে। বাঁচার জন্য আর এক মিনিট বাকি আছে, ৩০ সেকেন্ড, ১০, ৯, ৮…।’

হত্যার বর্ণনায় ট্রাম্প আরও বলেন, ‘তারপর হঠাৎ বুম…। ওরা শেষ স্যার। সংযোগ কাটছি। সেই লোকটা (সোলাইমানি) কোথায় গেল?’

এমনভাবে ঘটনার বর্ণনা দিচ্ছিলেন ট্রাম্প যেন প্রায় সেই সময়ে পৌঁছে গিয়েছিলেন তিনি। বর্তমানে ফিরে তিনি বলেন, সেনা অফিসারদের কাছ থেকে ওই দিন সেটাই শেষ কথা শুনতে পেয়েছিলেন তিনি।

ফ্লোরিডায় রিপাবলিকানদের একটি অনুষ্ঠানে ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারের জন্য অর্থ সংগ্রহের আয়োজন করা হয়েছিল। সেই অনুষ্ঠানে নিজেই উত্থাপন করেন সোলাইমানির হত্যার প্রসঙ্গ।

ওই হামলায় ইরাকের পপুলার মোবিলাইজেশন ইউনিটের সেকেন্ড-ইন-কমান্ড আবু মাহদি আল-মুহান্দিস নিহত হন।

এর জবাবে ৮ জানুয়ারি ইরানের সামরিক বাহিনী মার্কিন দুটি সামরিক ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায়। এতে ৮০ মার্কিন সেনা নিহত ও ২০০ জন আহত হয়ে বলে দাবি করে তেহরান।

তবে হামলায় কোনো হতাহত হয়নি দাবি করে প্রেসিডন্ট ট্রাম্প বলেন, ইরানের হামলায় সামান্য ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

এদিকে সোলাইমানির হত্যার পর থেকেই মার্কিন সংসদের বেশ কিছু সদস্য এ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। কিন্তু কেন সোলাইমানিকে এভাবে হত্যা করা হলো, তার কোনো ব্যাখ্যা হোয়াইট হাউস এ পর্যন্ত দেয়নি। সূত্র: সিএনএন, ওয়াশিংটন পোস্ট, হাফপোস্ট।

x

Check Also

নিজামুদ্দিনে যোগ দেয়া ৬৪৭ জন করোনায় আক্রান্ত

এমএনএ ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : ভারতের দিল্লির নিজামুদ্দিনে তাবলিগ জামাতের সমাবেশে যোগদানকারীদের ৬৫০ জন করোনা ভাইরাসে ...

Scroll Up