স্থানীয় সরকারের ১৩৩টি নির্বাচনে ভোট গ্রহণ চলছে

এমএনএ রিপোর্ট : দেশের বিভিন্ন স্থানে স্থানীয় সরকার পরিষদের অধীনে ১৩১টি ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) ও ৯টি পৌরসভাসহ চট্টগ্রাম ও খুলনা সিটি কর্পোরেশনের ২টি ওয়ার্ড এবং একটি উপজেলায় ভোটগ্রহণ চলছে। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।
জানা যায়, আজ ৪৭টি ইউপিতে সাধারণ, ৮৪ ইউপির ৯০ পদে উপ-নির্বাচন, চারটি পৌরসভায় সাধারণ, একটি পৌরসভায় মেয়র পদে ও চারটিতে সাধারণ কাউন্সিলর পদে উপ-নির্বাচন এবং চট্টগ্রাম ও খুলনা সিটি কর্পোরেশনের দুটি ওয়ার্ডে উপ-নির্বাচন ও একটি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।
নির্বাচন কমিশনের (ইসি) নির্বাচন ব্যবস্থাপনা শাখা জানিয়েছে, ইউনিয়ন পরিষদ সাধারণ নির্বাচন ৪৭টি ও বিভিন্ন পদে উপ নির্বাচন/স্থগিত নির্বাচন ৭২টি, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচন ১টি, পৌরসভা সাধারণ নির্বাচন ৪টি ও বিভিন্ন পদে উপনির্বাচন/স্থগিত নির্বাচন ৭টি এবং খুলনা ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাধারণ ওয়ার্ডের ১টি করে নির্বাচনসহ সর্বমোট ১৩৩টি নির্বাচন চলছে।
নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করতে আগে থেকেই সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছেন কমিশন। কেন্দ্রগুলোতে মোতায়েন করা হয়েছে বিপুল সংখ্যক আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য।
ভোটগ্রহণ উপলক্ষে এসব এলাকায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পর্যাপ্ত সদস্য নিয়োগসহ ব্যাপক প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। গতকাল বুধবার মধ্যরাত থেকে আজ বৃহস্পতিবার মধ্যরাত পর্যন্ত বাস, ইজিবাইক, ট্রাক, অটোরিকশা, মাইক্রোবাস, বেবিট্যাক্সি, কার, ট্যাক্সিক্যাব, জিপ, পিকআপ, টেম্পো ইত্যাদি যানবাহন চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।
সেইসঙ্গে ভোটগ্রহণের আগের তিনদিন থেকে আজ ভোটগ্রহণের দিন মধ্যরাত পর্যন্ত মোটরসাইকেল চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা কার্যকর রয়েছে। তবে জরুরি সেবায় নিয়োজিত যানবাহন চলাচল নিষেধাজ্ঞার বাইরে থাকবে।
এছাড়া গতকাল বুধবার মধ্যরাত থেকে আজ মধ্যরাত পর্যন্ত লঞ্চ, ইঞ্জিনচালিত সব ধরনের নৌযান ও স্পিটবোট চলাচলে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তবে জনগণ বা ভোটারদের চলাচলের জন্য ক্ষুদ্র নৌযান চলাচল নিষেধাজ্ঞার বাইরে থাকবে।
ভোট কেন্দ্রগুলোতে ব্যাপক সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। সারাদেশে সুষ্ঠুভাবেই ভোটগ্রহণ চলছে। তবে টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলায় সাগরদিঘি ইউনিয়নের একটি ভোটকেন্দ্রে সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে।
ভোট সুষ্ঠু করতে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। খাগড়াছড়ির দুর্গম পাহাড়ি এলাকার একটি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণের জন্য নির্বাচন সংশ্নিষ্টদের পাঠানো হয়েছে হেলিকপ্টারে।
এসব নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ তারিখ ছিল গত ১ মার্চ। আর মনোনয়নপত্র বাছাই ৩ ও ৪ মার্চ এবং প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ছিল ১২ মার্চ। এরপর প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয় আগামী ১৩ মার্চ।
ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন : ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে ১জন অফিসারসহ ৩ জন পুলিশ, অস্ত্রসহ ৪জন আনসার এবং অঙ্গীভূত আনসার/ভিডিপি সদস্য ১৩জনসহ সর্বমোট ২০জন মোতায়েন আছে। প্রতি ইউনিয়নে পুলিশ, এপিবিএন,ব্যাটালিয়ান আনসারের ২টি করে মোবাইল টিম, বিজিবি ১ প্লাটুন ও র্যাবের ২টি করে টিম মোতায়েন আছে। এছাড়া পটুয়াখালী, বরগুনা ও সন্দ্বীপের জন্য ১ প্লাটুন কোস্টগার্ড সদস্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত রয়েছে। ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে ৭৬ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে নিয়োগ করা হয়েছে।
পৌরসভা নির্বাচন : পৌরসভা নির্বাচন উপলক্ষে সাধারণ কেন্দ্রে ৫জন পুলিশ, অস্ত্রসহ ২জন আনসার এবং অঙ্গীভূত আনসার/ভিডিপি সদস্য ১২জন, সর্বমোট ১৯ জন মোতায়েন আছে এবং গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রে ১ জন অফিসারসহ ৬ জন পুলিশ, অস্ত্রসহ ২ জন আনসার এবং অঙ্গীভূত আনসার/ভিডিপি সদস্য ১২ জন, সর্বমোট ২০ জন মোতায়েন রয়েছে। এছাড়া পুলিশ, এপিবিএন, ব্যাটালিয়ান আনসারের সমন্বয়ে মোবাইল টিম ৩২টি, স্ট্রাইকিং ফোর্স ৫টি, ১০ প্লাটুন বিজিবি ও র‌্যাব এর ১৭টি টিম মোতায়েন আছে। পৌরসভা নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ৩৭ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং ৪জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করা হয়েছে।
উপজেলা পরিষদ নির্বাচন : উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে সাধারণ কেন্দ্রে ২ জন পুলিশ, অস্ত্রসহ ২ জন আনসার এবং অঙ্গীভূত আনসার/ভিডিপি সদস্য ১০ জন ও ২ জন গ্রাম পুলিশসহ সর্বমোট ১৫ জন মোতায়েন আছে এবং গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রে ৩জন পুলিশ, অস্ত্রসহ ২ জন আনসার এবং অঙ্গীভূত আনসার/ভিডিপি সদস্য ১০ জন ও ১ জন গ্রাম পুলিশসহ সর্বমোট ১৬ জন মোতায়েন রয়েছে। এছাড়া পুলিশ, এপিবিএন ব্যাটালিয়ান আনসারের সমন্বয়ে ১০ টি মোবাইল টিম, স্ট্রাইকিং ফোর্স ৩ টি, ৩ প্লাটুন বিজিবি ও র্যাবের ৩টি টিম মোতায়েন আছে। এছাড়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ১০ জন এক্সিকিউটিভ ও ১ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করা হয়েছে।
সিটি করপোরেশন নির্বাচন : সিটি করপোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে সাধারণ কেন্দ্রে ৭ জন পুলিশ, অস্ত্রসহ ৩ জন আনসার এবং অঙ্গীভূত আনসার/ভিডিপি সদস্য ১২ জন, সর্বমোট ২২ জন মোতায়েন আছে এবং গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রে ৭ জন পুলিশ, অস্ত্রসহ ৫ জন আনসার এবং অঙ্গীভূত আনসার/ভিডিপি সদস্য ১২ জন, সর্বমোট ২৪ জন মোতায়েন রয়েছে। এছাড়া চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ৩৬ নং সাধারণ ওয়ার্ডের উপনির্বাচনে পুলিশের ৪টি ও র‌্যাবের ৩টি টিম ও খুলনা সিটি করপোরেশনের ৬নং সাধারণ ওয়ার্ডের উপনির্বাচনে পুলিশের ৩টি ও র‌্যাবের ২টি টিম স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে মোতায়েন আছে। সিটি করপোরেশনের প্রতি ওয়ার্ডে ১ জন করে এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করা হয়েছে।
x

Check Also

বগুড়ায় ট্রাক-কাভার্ডভ্যানের ত্রিমুখী সংঘর্ষে নিহত ৩

এমএনএ জেলা প্রতিনিধি : বগুড়ায় শেরপুর উপজেলায় দুটি ট্রাক ও একটি কাভার্ডভ্যানের ত্রিমুখী সংঘর্ষে তিনজন ...

Scroll Up