হবিগঞ্জে পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষ, আহত ৫০

50
এমএনএ রিপোর্ট : খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে হবিগঞ্জে বিক্ষোভ মিছিলে বাধা দেয়ার জেরে পুলিশের সঙ্গে বিএনপির নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় পুলিশের ছোড়া রাবার বুলেট ও কাঁদানে গ্যাসের সেলে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও হবিগঞ্জ পৌরসভার মেয়র জি কে গউছ ও সাংবাদিকসহ আহত হয়েছেন অন্তত অর্ধশতাধিক।
আজ মঙ্গলবার সকাল ১১টায় শহরের শায়েস্তানগর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, শায়েস্তানগর এলাকা থেকে বিএনপি বিক্ষোভ মিছিল বের করতে চাইলে পুলিশ বাধা দেয়। এ সময় মেয়র জি কে গউছকে আটকের পর বিএনপি নেতাকর্মীদের বাধার মুখে তাকে ছেড়ে দেয় পুলিশ। এরপর নেতাকর্মীদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে পুলিশ লাঠিচার্জ শুরু করে।
এসময় ক্ষুব্ধ নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করতে বেশ কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট ও টিয়ার সেলও ছুড়ে পুলিশ। পুলিশের গুলিতে জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মিয়া মো. ইলিয়াছ, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি এমদাদুল হক ইমরান, সিনিয়র সহ-সভাপতি জিল্লুর রহমান, উপজেলা যুবদলের সহ-সভাপতি অলিউর রহমান অলি, জেলা যুবদল নেতা বাদশা সিদ্দিকী, ছাত্রদল নেতা মহিবুর রহমান শাওন, যুবদল নেতা আবুল বাশার ইসা, হাজী মতিনসহ বিএনপি ও অঙ্গ সংঘঠনের অন্তত ৩০ জন গুলিবিদ্ধসহ ৫০ জন আহত হয়। ঘটনাস্থল থেকে ৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ।
বিএনপি নেতাকর্মীরা জানিয়েছেন, গ্রেপ্তার আতঙ্কে আহত নেতাকর্মীরা হাসপাতালে ভর্তি না হয়ে শহরের বিভিন্ন প্রাইভেট ক্লিনিকে চিকিৎসা নিয়েছেন।
এ ঘটনার পর থেকে শহরের পরিস্থিতি উত্তপ্ত রয়েছে।
হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইয়াছিনুল হক জানান, বিএনপির তিন জনকে আটক করা হয়েছে। তবে তিনি তাদের নাম জানাননি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ৫৪ রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করেছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।