হরিণ শিকার মামলায় বেকসুর খালাস সালমান

এমএনএ বিনোদন ডেস্ক : কৃষ্ণসার হরিণ শিকার মামলায় নিম্ন আদালতে দণ্ডিত বলিউড অভিনেতা সালমান খান হাইকোর্টের রায়ে বেকসুর খালাস পেয়েছেন।

তুমুল আলোচিত ‘হিট এন্ড রান’ মামলায় মানুষ মারার অভিযোগ থেকে খালাস পেয়েছিলেন গত বছরেই, আর এবার হরিণ হত্যা মামলা থেকেও বেকসুর খালাস পেলেন বলিউডের ‘সুলতান’ খ্যাত সুপারস্টার সালমান খান।

আজ সোমবার সকালে কৃষ্ণসার ও চিঙ্কার হরিণ শিকার সংক্রান্ত দু’টি মামলায় সালমানকে রেহাই দেন ভারতের রাজস্থান হাইকোর্ট। রায় ঘোষণাকালে সালমানের পক্ষে আদালতে হাজির ছিলেন তার বোন আলভিরা খান।

রায়ের পর সালমানের বাবা ও চিত্রনাট্যকার সেলিম খান বলেছেন, ‌দীর্ঘ ১৫ বছরে কোনো মন্তব্য করিনি। এবারও করব না।

বহুদিন থেকেই হরিণ হত্যা মামলাটি ঝুলে ছিল সুপারস্টার সালমানের বিরুদ্ধে। অবশেষে সব শুনানি শেষে আজ ২৫ জুলাই আদালত রায় ঘোষণার দিন ধার্য করে দেয়। অতঃপর রাজস্থান আদালত আজ ২৫ জুলাই সোমবার হরিণ হত্যা মামলা থেকে সালমানের Salman-Khan-11‍বিরুদ্ধে হওয়া মামলা থেকে তাকে বেকসুর খালাস দেন।

১৯৯৮ সালে ‘প্রেম রতন ধন পায়ো’ খ্যাত নির্মাতা সুরজ বরজাতিয়ার ‘হাম সাথ সাথ হ্যায়’ ছবির শুটিং চলাকালীন যোধপুরে ওয়াইল্ড লাইফ অ্যাক্ট ভঙ্গের অভিযোগ ওঠে সালমান খান ও ছবির বাকি কলাকুশলীদের বিরুদ্ধে। অভিযোগে বলা হয়, যোধপুরে ১৯৯৮ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর ও ২৮ সেপ্টেম্বর একটি কৃষ্ণসার ও একটি চিঙ্কারা হরিণ শিকার হয়। এ শিকারে সালমান ছাড়াও সাইফ আলি খান, সোনালি বেন্দ্রে, টাবু ও নীলমের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে। অভিযুক্ত সবার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হলেও, মূল অভিযুক্ত হিসেবে চিহ্নিত হন সালমান। তার বিরুদ্ধে লাইসেন্সের মেয়াদ উত্তীর্ণ বন্দুক ব্যবহার করে হরিণ শিকারের অভিযোগ ওঠে।

এরপর ২০০৭ সালে হরিণ শিকারের ঘটনায় দায়ের হওয়া দুটি মামলায় সালমানকে যথাক্রমে একবছর ও পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছিলেন রাজস্থানের নিম্ন আদালত। এই মামলায় ছ’দিন সালমানকে যোধপুর কেন্দ্রীয় জেলেও কাটাতে হয়।

তারপর হাইকোর্ট সালমানের বিরুদ্ধে আসা চার্জগুলি আর্ম অ্যাক্টের আওতাভুক্ত করে। ২০১২ সালে আবার হাইকোর্ট সালমানের বিরুদ্ধে চার্জ আনে। নতুন এই চার্জ ওয়াইল্ডলাইফ প্রোটেকশন অ্যাক্ট সেকশন ৯/৫১ ধারায় আনা হয়েছিল। বলা হয়েছিল, কৃষ্ণসার সংরক্ষিত প্রাণী। তাই এই হরিণ হত্যা করা আইনত অপরাধ।

অতঃপর সালমান নিম্ন আদালতের রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়ে আপিল করেন। সেই আবেদনে সাড়া দিয়ে তাকে বেকসুর খালাসের নির্দেশ দিলেন আদালত।

রায়ে হাইকোর্ট বলেছেন, ওই হরিণ যে সালমানের বন্দুকের গুলিতে মারা গেছে, তা আদালতে প্রমাণ করা সম্ভব হয়নি।

x

Check Also

শীত এলেই পিকনিক : ঢাকার কাছে যত স্পট

এমএনএফিচার ডেস্ক : শীতের মৌসুম প্রায় এসেই পড়েছে। বাচ্চাদের পরীক্ষা শেষ হতে হতে জমিয়ে উঠবে শীতানন্দ। ...

Scroll Up