হাইকোর্টের সামনে পুলিশের সঙ্গে বিএনপির সংঘর্ষ

এমএনএ রিপোর্ট : কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে হাইকোর্টের সামনে বিক্ষোভরত জাতীয়তাবাদী মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্ম দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আজ মঙ্গলবার দুপুর দেড়টার দিকে সুপ্রিম কোর্টের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্ম দলের নেতাকর্মীরা। এ সময় নিরাপত্তার স্বার্থে সুপ্রিম কোর্টে প্রবেশের সব গেট বন্ধ করে দেওয়া হয়। অনুমতি ছাড়া প্রধান সড়কে অবস্থান ও বিক্ষোভে পুলিশ বাধা দিলে দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পাশাপাশি হাইকোর্টের সামনে কয়েকটি গাড়িও ভাংচুর করা হয়। পরে পুলিশ টিয়ার শেল ছুড়ে বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এর আগে, সকালে প্রেসক্লাব মিলনায়তনে বেগম জিয়ার মুক্তির দাবিতে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্ম দলের একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। এই অনুষ্ঠানে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও হাইকোর্টে ব্যস্ততার কথা জানিয়ে ওই অনুষ্ঠানে যাননি তিনি। তবে বিএনপি ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান ও শওকত মাহমুদ, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি জাফরুল্লাহ চৌধুরী, নির্বাহী কমিটির সদস্য শাহ মোহাম্মদ আবু জাফর, মুক্তিযোদ্ধা ইশতিয়াক আজিজ উলফাত, সাদেক আহমেদ খানসহ শতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। সভা শেষে দুপুর ১টার দিকে সংগঠনের নেতাকর্মীরা একটি মিছিল বের করে। এ সময় পুলিশ তাদের বাধা দেয়। কিন্তু পুলিশের সংখ্যা কম থাকায় বাধা উপেক্ষা করে তারা সুপ্রিম কোর্টের গেটের সামনের প্রধান সড়কে অবস্থান নেয়।

সড়ক অবরোধ করে অবস্থান ও বিক্ষোভের ফলে প্রায় এক ঘণ্টা বন্ধ থাকে এই সড়কের যান-চলাচল। নিরাপত্তার স্বার্থে সুপ্রিম কোর্টের সব গেট বন্ধ করে দেওয়া হয়। এরপর দুপুর ২টার দিকে পুলিশ বিক্ষোভকারীদের সেখান থেকে সরে যেতে বললে পুলিশের সঙ্গে তাদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। এ সময় বিক্ষোভকারীরা বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর এবং সড়কে আগুন জ্বালিয়ে বেগম জিয়ার মুক্তির দাবিতে স্লোগান দেয় বলেও জানা যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুপুরে মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্ম দলের নেতাকর্মীরা জাতীয় প্রেসক্লাব এলাকা থেকে সংগঠিত হয়ে হাইকোর্টের সামনে এসে অবস্থান নেন। সেখানে সড়কে বিক্ষোভ শুরু করেন। এ সময় তারা খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিভিন্ন স্লোগান দেন। পরে পুলিশ এসে বাধা দিলে উভয়পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় ইট পাটকেল নিক্ষেপের ঘটনাও ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ লাঠিচার্জ শুরু করলে বিএনপি নেতাকর্মীরা ওই এলাকায় কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করে।

রমনা বিভাগের উপ-কমিশনার সাজ্জাদুর রহমান জানান, কোনো রকম পূর্ব অনুমতি ছাড়াই সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে বিক্ষোভকারীদের। তাদের সেখান থেকে সরে যেতে বললে তারা পুলিশের উপর ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। এ সময় পুলিশ টিয়ার শেল ছুড়ে বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক রয়েছে।

x

Check Also

বরেণ্য অধ্যাপক অজয় রায়ের জীবনাবসান

এমএনএ রিপোর্ট : একুশে পদকপ্রাপ্ত পদার্থ বিজ্ঞানের বরেণ্য অধ্যাপক অজয় রায় (৮৫) রাজধানীর বারডেম হাসপাতালে ...

Scroll Up