রাজপ্রাসাদের অনুভূতি যখন হোটেলে

এমএনএ ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : সম্প্রতি জরিপের ভিত্তিতে বিশ্বের সেরা হোটেলগুলোর একটি তালিকা প্রকাশ করে মার্কিন সংবাদ মাধ্যম ‘বিজনেস ইনসাইডার। তালিকায় সবার শীর্ষে রয়েছে ভারতের ‘ওবেরয় উদয় ভিলাস’ হোটেলের নাম।

রাজস্থান প্রদেশের উদয়পুরে অবস্থিত হোটেলটি ঐতিহ্যগত ভারতীয় প্রাসাদের আদলেই নির্মিত। কেবল তাই নয়, এখানকার সুযোগ-সুবিধা আর সেবা দেখে নিজেকে ক্ষণিকের জন্য রাজা ভাবলেও বোধহয় দোষের কিছু নেই।

ওবেরয় উদয় ভিলাস হোটেলটিতে আছে বিলাসবহুল সব সুযোগ-সুবিধা। ব্যক্তিগত পুল, খানসামা সেবা, রোমান্টিক ব্যবস্থাপনা, অভিজাত আপ্যায়ন, বাসা-বাড়ির মত পরিবেশ হোটেলটিকে নিয়ে গেছে এক অন্যরকম উচ্চতায়।

তবে হোটেলটির এই অবিশ্বাস্য বিলাসিতা শুধুমাত্র সামর্থ্যবানরাই যে ভোগ করতে পারবেন তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

হোটেলটিতে প্রত্যেক রাতে থাকতে ন্যূনতম খরচ পড়বে ৪৩০ মার্কিন ডলার।

ছবিতে দেখে নেয়া যাক কী আছে হোটেলটিতে-

ড়

অতিথিদেরকে নৌকায় করে পিখোলা হৃদ পার করে হোটেলে নিয়ে আসা হয়।

g

প্রবেশদ্বারে ঢোকার পরপরই চোখে পড়বে ঐতিহ্যগত রাজস্থানীয় ঢঙ্গের প্রাসাদের ছাপ।

nnnnn

ঐতিহ্যগত গম্বুজ ও প্যাভিলিয়ন অতিথিদের স্থানীয় স্থাপত্যের পরিষ্কার বিবরণ দেয়।

ll

হোটেলের আঙ্গিনার ঝর্ণাধারা ও পত্র-পল্লবের ছায়ায় অতিথিদের বিশ্রামের সুব্যবস্থা আছে।

o

সর্বোপরি হোটেলটি অনেক শান্তিময়।

ct

আলংকারিক গম্বুজ ও খিলানে সুসজ্জিত হোটেলের ভেতরকার অংশ।

mn

মেঝেতে আছে জটিল জ্যামিতিক টাইলসের কাজ।

nmm

কেবলমাত্র নকশার কাজই নয়, হোটেলটির উপশালা এবং প্রকাশ্য জায়গাগুলোতে আছে বসার সুব্যবস্থা। তাছাড়া সবখানে আছে ওয়াই-ফাইয়ের মত আধুনিক সুযোগ-সুবিধা।

cx

কিছু অতিথিশালার সাথে সুইমিং পুলের সরাসরি সংযোগ আছে। আর সুইমিং পুলের পিছনেই আছে পিখোলা হ্রদের মনোমুগ্ধকর দৃশ্য।

iu

অতিথিরা যেন সরাসরি সুইমিং পুলে যেতে পারেন সেজন্য প্রত্যেকটি কক্ষের সঙ্গে ট্যারেস যুক্ত করা আছে।

uy

অতিথিরা ইচ্ছানুযায়ী যেকোন সময় সুইমিং পুলে নামতে পারেন।

io

প্রত্যেকটি শোবার ঘরই প্রশস্ত এবং ভারতীয় বস্ত্র ও হস্তনির্মিত জিনিসে সজ্জিত।

v

প্রত্যেকটি কক্ষেই আছে বড় খাট, লেখার টেবিল ও চেয়ার। তাছাড়া বসার জন্য আছে বড় জানালাসহ আলাদা স্থান।

vb

সব কক্ষেই আছে আধুনিক সব জিনিসপত্র যেমন: এলসিডি টেলিভিশন, ওয়াই-ফাই, ডিভিডি প্লেয়ার এবং এ/সি। সবচেয়ে বড় ব্যাপার হল অতিথিদের জন্য আছে ব্যক্তিগত খানসামা সেবা।

vbv

কক্ষগুলোতে আছে বড় বড় মার্বেল পাথরের গোসলখানা।

llp

বাইরের পরিদর্শকদের সাথে অতিথিদের আলাপচারিতার জন্য আছে আলাদা কক্ষ।

mnv

অতিথিদের ক্ষুধা নিবৃত্তির জন্য হোটেলটির ভেতর আছে ঐতিহ্যবাহী উত্তর ভারতীয় রন্ধনশালা। হোটেলের নিজস্ব এই রেস্টুরেন্টে আপনি পাবেন মজার সব খাবার। তাছাড়া অনেক খুচরা রেস্টুরেন্টও আছে।

mdi

ওবেরয় উদয়ভিলাতে জিম ও স্পার ব্যবস্থা আছে। অতিথিরা হোটেলটির আবাসিক যোগব্যায়ামের শিক্ষকের কাছ থেকে ব্যক্তিগতভাবে যোগ ও ধ্যানশিক্ষা গ্রহণ করতে পারেন।

x

Check Also

শীত এলেই পিকনিক : ঢাকার কাছে যত স্পট

এমএনএফিচার ডেস্ক : শীতের মৌসুম প্রায় এসেই পড়েছে। বাচ্চাদের পরীক্ষা শেষ হতে হতে জমিয়ে উঠবে শীতানন্দ। ...

Scroll Up