শীতের সাজে মেতে উঠুন উৎসবে

উপলক্ষ যাই হোক, উৎসবের জন্য চাই উৎসবমুখর সাজ। নাওমি’স -এর কর্ণধার নাওমি আহমেদ দিয়েছেন শীতের রুক্ষ আবহাওয়ায় সজীব সাজের নানান টিপস।

শুষ্ক আবহাওয়ায় ত্বক রুক্ষ হয়ে ওঠে। অনেকেরই ত্বক ফাটা বা খসখসে হয়ে যাওয়ার প্রবণতা দেখা দেয়। প্রকৃতিতে এ সময় ধুলাবালির রাজত্ব। তাই সাজগোজের আগে অবশ্যই ফেইসওয়াশ দিয়ে হাতমুখ খুব ভালোভাবে ধুয়ে নিন।

সম্ভব হলে মৃদু স্ক্র্যাবার দিয়ে খুব ধীরে ধীরে ঘড়ির কাঁটার দিকে ও বিপরীতে ত্বক মালিশ করুন। এতে মরা কোষগুলো উঠে যাবে। ত্বকের ধরণ অনুযায়ী ময়েশ্চারাইজার ক্রিম ব্যবহার করুন। ১০ মিনিট বিরতি দিন।

শুষ্ক পাউডার ব্যবহার না করে শীতে ফাউন্ডেশন হিসেবে অয়েল বেইজড ফাউন্ডেশন বা ক্রিইমি ফাউন্ডেশন বেছে নিন। এতে ত্বক সতেজ লাগবে।

ক্রিইমি ফাউন্ডেশনের উপর আলতো করে ফেইস-পাউডার লাগিয়ে নিতে পারেন। তবে ত্বক বেশি শুষ্ক হলে এটা না দেওয়াই ভালো। এর পরিবর্তে গ্লিটার পাউডারও লাগাতে পারেন।

উৎসবের সাজ গাঢ় করতে ব্লাশঅন ছাড়াও আলাদা করে দিতে পারেন গ্লিটার। তবে যদি ফেইস-পাউডারেই গ্লিটার থাকে তাহলে সাধারণ ব্লাশঅনটাই লাগাবেন।

শীতে ঘামের ভয় নেই। তাই ইচ্ছেমতো মেইকআপ করতে পারেন। দিনের বেলায় হালকা হলেও রাতে দরকার গাঢ় মেইকআপ। তবে খেয়াল রাখবেন ত্বকের রংয়ের সঙ্গে যেন মানানসই হয়।

স্মোকি করে চোখের সাজ করতে পারেন। আইশ্যাডো পোশাকের রংয়ের সঙ্গে মিলিয়ে দিলেও কালো আর সোনালির ছোঁয়া রাখতে পারেন চোখে।

চোখ সাজাতে কাজল যাদের পছন্দ, তাদের নিশ্চয়ই গরমের সময় কাজল সামলাতে বেগ পেতে হয়। শীতের সময় কাজল ছড়িয়ে পড়ার ভয় নেই। তাই এ সুযোগটা কাজে লাগাতে পারেন।

নীল, সবুজ, ময়ূর, কালো যে কোনো রং টানতে পারেন চোখের কোণে। আইলাইনার কাজল যাই দিন না কেনো, মাশকারাটাও দিতে ভুলবেন না। চোখের পাপড়িগুলো সাজিয়ে তুলতে মাশকারা ব্যবহার করুন। তবে পানিরোধক মাশকারা হলেই ভালো।

শীতের সময় ত্বকের মধ্যে সবচেয়ে বেশি রুক্ষ হয় ঠোঁট। তাই ঠোঁটের নিয়মিত যত্ন নিন। সবসময় লিপবাম লাগান। শীতের লিপবামটা যেন সানস্ক্রিনযুক্ত হয়।

ঠোঁট সাজাতে শীতে শুষ্ক লিপস্টিক বাদ দিয়ে লিপগ্লস বেছে নিন। ঠোঁটের রংয়ের সঙ্গে মিলিয়ে অথবা হালকা গোলাপি একটি লিপগ্লস সবসময় ব্যাগেই রেখে দিতে পারেন।

বেয়াড়া চুলগুলো শীতে ইচ্ছেমতো উড়তে দিতে পারেন। বছরের এ সময়ে নিশ্চিন্তে চুল খোলা রেখে ঘুরে বেড়ান। রং করা বা রিবন্ডিং যে রকমই হোক, চুলে রোদ প্রতিরোধক কন্ডিশনার ও জেল না লাগিয়ে বের হবেন না। কারণ শীতের মিষ্টি রোদও চুলের ক্ষতির কারণ হতে পারে।

পোশাকের সঙ্গে মিল রেখে চুল বাঁধতে পারেন। সালোয়ার-কামিজের সঙ্গে করতে পারেন পনিটেইল। শাড়ির সঙ্গে খোঁপা করা যায়। আর তাতে শীতের কোনো রঙিন ফুল গুঁজে দিতে ভুলবেন না।

সাজ পরিপূর্ণ। এবার মেতে উঠুন শীত উৎসবে।

x

Check Also

রূপচর্চায় দইয়ের ব্যবহার এবং উপকারিতা

এমএনএ ফিচার ডেস্ক : রূপচর্চায় দইয়ের ব্যবহার এবং উপকারিতা সম্পর্কে বলতে গেলে প্রথমেই বলতে হয় ...

Scroll Up