আসছে ১ হাজার কোরের প্রসেসর

এমএনএ সাইটেক ডেস্ক : অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি যে শীঘ্রই ১ হাজার কোরের প্রসেসর বাজারে আসছে। এই অসম্ভব কাজটিকে সম্ভব করে তুলেছে আমেরিকার বিজ্ঞানীরা।

এতদিন পর্যন্ত কোয়াড কোর, হেক্সা কোর অথবা অক্টা কোর প্রসেসরের কথা শোনা গেছে। এই প্রসেসরগুলো ব্যবহার করতে আমরা অভ্যস্ত। এর বেশি প্রসেসর গতির কথা শুনলে আমাদের সুপার কম্পিউটারের কথা মনে হতো। এবার সব প্রসেসরকে পেছনে ফেলে এমন কোর সম্পন্ন প্রসেসর আবিষ্কার হয়েছে যা আপনার চিন্তার বাইরে।

প্রসেসর১ হাজার কোর প্রসেসরের কম্পিউটার! যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া ডেভিসের একদল বিজ্ঞানী নতুন একটি প্রসেসর বানিয়েছে যে প্রসেসরের গতি প্রতি সেকেন্ডে ১ দশমিক ৭৮ ট্রিলিয়ন। এই প্রসেসরে রয়েছে ৬২১ মিলিয়ন ট্রানজিসটর।

বিজ্ঞানীদের এই দলের নাম কিলো কোর। এই ১ হাজার কোরের প্রসেসরের গতিতে রয়েছে সত্যিকারের কম্পিউটিং গতি। শুধু গতিতে নয় এই প্রসেসরটি শক্তি সঞ্চয়ীও বটে। এই প্রসেসরে যে কোরগুলো কোন কাজে লাগবে না কোন নির্দিষ্ট সময়ের জন্য সেই সময় সেই কোরগুলোকে বন্ধ করে দেবে প্রসেসরটি। ফলে এই প্রসেসরের প্রতিটি কোর নির্দিষ্ট করে যে কোন কাজ সম্পাদন করতে সক্ষম হবে। প্রয়োজনে সব কোরকে একসাথেও কাজে লাগানো যাবে।

এই প্রসেসরের প্রতিটি চিপ প্রতি সেকেন্ডে ১১৫ বিলিয়ন নির্দেশনা সম্পাদন করতে পারবে। এই নির্দেশনাগুলো সম্পাদন করতে কি পরিমাণ শক্তির প্রয়োজন হতে পারে? মাত্র দশমিক ৭ ওয়াট। যা শুধুমাত্র একটি ডাবল এ সাইজের ব্যাটারির সমান।

এই চিপগুলোকে ওয়্যারলেস কোডিং এবং ডিকোডিংয়ের কাজে ব্যবহার করা যাবে। ভিডিও প্রসেসিং, অ্যানক্রিপশন এবং বৃহৎ আকারের প্যারালাল প্রসেস করার জন্য এই প্রসেসর হবে অতুলনীয়।

x

Check Also

ফেসবুকের নতুন অফিস চলবে সূর্যের আলোয়

এমএনএ সাইটেক ডেস্ক : ফেসবুকের নতুন অফিস চলবে সূর্যের আলোয়। পরিবেশবান্ধব নতুন অফিস চালু করেছে ...

Scroll Up