এই কথাগুলো সবসময় গোপন রাখুন

এমএনএ ফিচার ডেস্ক: নিজের সব কথা কি সবাইকে বলা যায়? না, যায় না। কিছু কথা থাকা প্রয়োজন শুধু নিজের মধ্যে। এই কথাগুলো সবসময় গোপন রাখুন। কারণ আপনার আশেপাশে সবাই আপনার বন্ধু নয়। বন্ধু-শত্রু, কাছের-দূরের সবাই আমরা মানুষকে সবসময় বিচার করি। সব কিছুকে ইতিবাচকভাবে গ্রহণ করি না। তাই নিজেকে প্রকাশ করার ক্ষেত্রে অবশ্যই নিজের ব্যক্তিত্বে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে বা লক্ষ্য অর্জনে বাঁধা হতে পারে এমন বিষয় শেয়ার করা উচিৎ নয়।

আসুন জেনে নিই, নিজের কোন কথাগুলো রাখতে হবে গোপন, সবসময়। এই বিশেষ প্রতিবেদনটি তৈরি করেছেন- মোসাম্মৎ সেলিনা হোসেন

বেডরুমের কথা
আপনার বেডরুমের কথা আপনার একান্ত ব্যাক্তিগত বিষয়। সেটা কখনোই অন্যদের সামনে খুলে বলবেন না। আপনার সঙ্গীর সাথে আপনার সম্পর্ক কেমন, সেক্সলাইফে আপনি সন্তুষ্ট কিনা এগুলো আপনার এবং আপনার সঙ্গীর নিজস্ব ব্যাপার। অন্যদের সাথে শেয়ার করে আপনি আপনার সঙ্গীর গোপনীয়তা ভংগ করছেন।

নিজের লক্ষ্যের কথা
আপনার জীবনের লক্ষ্য কি তা নিয়ে হয়ত প্রায়ই বন্ধুদের সাথে গল্প হয়। কিন্তু খেয়াল করুন, সবার কি এই বিষয়গুলো জানার প্রয়োজন আছে? আপনার লক্ষ্য, আপনার সফলতা, ব্যার্থতা দিয়ে কেউ যেন আপনাকে বিচার করতে না পারে সেইদিকে আপনাকেই খেয়াল রাখতে হবে। কখনো কখনো এটি মারাত্মক ক্ষতিকারক হতে পারে। আপনার প্রতিযোগীরা আপনার বিপক্ষে লড়বার অস্ত্র পেয়ে যেতে পারে এভাবেই।

শারীরিক দূর্বলতার কথা
আপনার কোন শারীরিক দূর্বলতা, কোন অপারেশন হয়ে থাকলে বা কোন দূর্ঘটনায় কোন ক্ষতি হয়ে থাকলে সেটা সবাইকে জানাবেন না। মানুষ আপনার অক্ষমতা হিসেবে সেটাকে ব্যবহার করতে পারে। নিজের সুরক্ষার জন্যই এসব বিষয় গোপন রাখুন।

নিজের সম্পর্কে নেতিবাচক কথা
আপনি হয়ত আপনার অনেক খারাপ দিক খুঁজে পান। আপনি জানেন, আপনার মনোযোগের অভাব আছে। অথবা আপনি অনেক সহজে মানুষকে বিশ্বাস করেন আর বিশ্বাস করে প্রায়ই ঠকেন। এসব কথা, ঘটনা কখনো অন্যের সাথে শেয়ার করবেন না। আপনি যখন নিজের দূর্বলতাগুলো জানেন তখন তার প্রতিকারও আপনি নিজেই বের করতে পারবেন। একজন ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন মানুষ হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলুন এবং অন্যদের কাছ থেকে নিন নিজের চমৎকার গুণের স্বীকৃতি। কেউ যেহেতু আপনাকে বদলে দিতে পারবে না, তাহলে কেন তাকে সুযোগ দেবেন আপনার সম্পর্কে নেতিবাচক ধারণা পোষণ করার?

পরিবারের কথা
আপনার পরিবারে কী ভাল আর কী মন্দ, সবার সাথে আপনার সম্পর্ক কেমন তা ভুলেও বাইরের মানুষের সাথে বলতে যাবেন না। এতে আপনার ভাবমূর্তি তো নষ্ট হবেই, আপনার পরিবারের ভাবমূর্তিও ক্ষুন্ন হবে। এমনকি ভাল কথা, যেমন ‘আমার বাবা আমাকে অনেক ভালবাসেন’ এই তথ্যও দুষ্কৃতিকারীদের কাছে খুব কাজের হতে পারে। নিজের গন্ডি বুঝুন, কিছু কথা গন্ডির মাঝেই রাখুন।

কত আয় করেন
আপনি কত আয় করেন সেটা কখনো অন্যদের জানাবেন না। নিজের আর্থিক সংকট তুলে ধরা আপনাকে অন্যের কাছে ছোট করে দেবে। আবার অর্থের প্রাচুর্য্য প্রকাশ কিছু সুবিধাবাদি মানুষকে আপনার বন্ধু করবে। শুধু নিজের নয়, পরিবারের আয় আর্থিক অবস্থা কখনোই বাইরে বলবেন না।

x

Check Also

যেভাবে বেশিদিন টিকবে আপনার অন্তর্বাস!

এমএনএ ফিচার ডেস্ক : সাধ করে প্রচুর টাকা খরচ করে ব্রা কিনে যদি বেশিদিন পরতেই না ...

Scroll Up