তিন মাসে বিশ্বব্যাপী ৩৫ কোটি স্মার্টফোন বিক্রি

এমএনএ অর্থনীতি রিপোর্ট : জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর প্রান্তিকের তিন মাসে বিশ্বব্যাপী স্মার্টফোন সরবরাহ করা হয়েছে ৩৫ কোটি ৫২ লাখ। বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশনাল ডেটা কর্পোরেশন বলছে, স্মার্টফোন সরবরাহের প্রবৃদ্ধি গত বছরের তুলনায় ৬ শতাংশ কমেছে।

তবে প্রতিষ্ঠানটি মনে করছে, ২০১৯ সালে স্মার্টফোনের প্রবৃদ্ধি অনেক বাড়বে। বিশেষ করে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ফাইভজি ফোন আনার ঘোষণা দিয়েছে। আগামী বছর বিশ্বের কিছু দেশে ফাইভজি নেটওয়ার্কও বিস্তৃত হবে।

সব মিলিয়ে আগের বছর তো বটেই, চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের চেয়েও স্মার্টফোনের প্রবৃদ্ধি কমেছে। সবচেয়ে বেশি স্মার্টফোন সরবরাহ করে শীর্ষে আছে স্যামসাং। কিন্তু তাদের প্রবৃদ্ধিও বছর বছর কমছে।

দক্ষিণ কোরীয় জায়ান্টটি তৃতীয় প্রান্তিকে সাত কোটি ২২ লাখ স্মার্টফোন সরবরাহ করেছে; যা তাদের অন্য সময়ের চেয়ে ১৩ দশমিক ৪ শতাংশ কম। প্রতিষ্ঠানটি এ প্রান্তিকে ২০ দশমিক ৩ শতাংশ বাজার শেয়ার ধরে রেখেছে।

আইসিডি বলছে, হুয়াওয়ে ফ্ল্যাগশিপ দিয়ে স্যামসাংকে টক্কর দিতে চাইছে। তাই একটু হলেও সাবধানে এগোচ্ছে স্যামসাং। তবে স্যামসাংয়ের পরের অবস্থানেই রয়েছে চীনা জায়ান্টটি। হুয়াওয়ে তৃতীয় প্রান্তিকে ৫ কোটি ২০ লাখ ফোন বিক্রি করেছে; যা আগের প্রান্তিকের চেয়ে কমেছে ১৪ দশমিক ৬ শতাংশ। চলতি বছরের সেপ্টেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহে আইফোন বাজারে আনে অ্যাপল।

প্রতিষ্ঠানটি এর মধ্য দিয়ে প্রবৃদ্ধি করেছে কিছুটা। এ সময়ের মধ্যে অ্যাপল চার কোটি ৬৯ লাখ ফোন বিক্রি করেছে। তালিকায় চতুর্থ অবস্থানে উঠে এসেছে শাওমি। বিশ্বব্যাপী প্রতিষ্ঠানটি তাদের স্মার্টফোন দিয়ে প্রান্তিকটিতে ৯ দশমিক ৭ শতাংশ বাজার ধরেছে।

বিক্রি করেছে তিন কোটি ৪৩ লাখ ফোন। আরেক চাইনিজ প্রতিষ্ঠান অপ্পো দুই কোটি ৯৯ লাখ ফোন বিক্রি করে দখলে রেখেছে ৮ দশমিক চার শতাংশ বাজার শেয়ার। অন্যান্য সব ব্র্যান্ড মিলে তৃতীয় প্রান্তিকে বিক্রি করেছে ১১ কোটি ৯৯ লাখ ফোন; যা প্রান্তিকটির মোট বাজারের ৩৩ দশমিক ৮ শতাংশ।

x

Check Also

মাথাপিছু আয় বেড়ে ১ হাজার ৯০৯ ডলার

এমএনএ অর্থনীতি রিপোর্ট : চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরে দেশের মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) প্রবৃদ্ধি দাঁড়াবে ৮ ...

Scroll Up