রাইড শেয়ারিং সার্ভিস পিকমি’র হেলমেট বিতরণ

এমএনএ রিপোর্ট : আজ রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জ হলে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল বাংলাদেশী অন-ডিমান্ড রাইড শেয়ারিং সার্ভিস প্রতিষ্ঠান পিকমি লিমিটেডের হেলমেট বিতরণ কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধনী।

বিজনেজ অপারেশন্স ম্যানেজার শরিফুল ইসলাম তারেকের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) সম্মানীত চেয়ারম্যান জনাব ইলিয়াস কাঞ্চন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জিটিভি এবং সারাবাংলার প্রধান সম্পাদক, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব জনাব সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা।

অনুষ্ঠানে পিকমির সম্মানীত রাইডারদের মধ্যে হেলমেট বিতরণ করা হয়। প্রধান অতিথির বক্তব্যে জনাব ইলিয়াস কাঞ্চন পিকমি লিমিটেডকে ধন্যবাদ জানান এই অ্যাপ সার্ভিসটির জন্য, পাশাপাশি দেশীয় এই প্রতিষ্ঠানটি যেন আগামী দিনে আরও ভাল সেবা প্রদান করতে পারে সে ব্যাপারে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা পিকমি লিমিটেডের হেলমেট বিতরণ কার্যক্রমকে সাধুবাদ জানান এবং রাইডারদের উদ্দেশ্যে সড়কের শৃঙ্খলা মেনে মোটরযান চালানোর জন্য পরামর্শ দেন। প্রতিষ্ঠানটির সম্মানীত ম্যনেজিং ডিরেক্টর জনাব ওমর আলী রাজ উপস্থিত অতিথিবৃন্দকে ধন্যবাদ জানান এবং ভবিষ্যতে বাংলাদেশের বেকারত্ব দূরীকরণে পিকমি সবসময় কাজ করে যাবে এই আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, পিকমি লিমিটেডের সিওও অমিত চক্রবর্তী, প্রকল্প পরিচালক মোজাম্মেল হোসেন সজল, পরিচালক মেশকাত হোসেন রাকিব প্রমূখ।

উল্লেখ্য, রাজধানী ঢাকাসহ দেশের কয়েকটি বড় শহরে ধীরে ধীরে জনপ্রিয় হতে থাকা এই রাইড শেয়ারিংয়ের মডেলটা একটু ভিন্নভাবেই প্রয়োগ করা হচ্ছে। অফিসের ফাঁকে কাউকে লিফট দেয়ার জায়গায় এখানে ব্যাপারটা এসে ঠেকেছে স্থায়ী উপার্জনের উৎসে। এর মাধ্যমে এখন নতুন কর্মসংস্থান হচ্ছে। বিশেষ করে শিক্ষিত তরুণেরা একে লুফে নিয়েছেন। হাতখরচের জন্য হোক, কিংবা নিয়মিত উপার্জন হোক, ঢাকায় এখন রাইড শেয়ারিংয়ে তরুণ চালকদের দেখা যাচ্ছে সবচেয়ে বেশি।

সুবিধা হিসেবে রাইড শেয়ারিং অ্যাপ ব্যবহারের মাধ্যমে গাড়ি আর মোটর সাইকেল দুটোই পাওয়া যাচ্ছে সারা দিনের যেকোনো সময়েই, কেবল গভীর রাত কিংবা একদম সকালে ছাড়া। এর মধ্যে আবার মোটর সাইকেল রাইড বেশি জনপ্রিয়। কারণটাও খুব স্বাভাবিক। যানজটের মধ্যে, বিশেষ করে ঢাকায়, বাইক রাইড বিশাল এক স্বস্তির নাম। শহরের মোড়ে মোড়ে প্রচণ্ড বিরক্তিকর জ্যামে বসে থাকার চেয়ে মোটর বাইকে অলিগলি দিয়ে জ্যাম এড়িয়ে গেলে অনেক সময় বাঁচানো যায়।

ফোন দিয়ে গাড়ি ডেকে একেবারে বাসার সামনে থেকে উঠতে পারাটাও কিন্তু রাইড শেয়ারিংয়ের জনপ্রিয়তার অন্যতম কারণ। গাড়ি যত দূর থেকেই আসুক না কেন, ভাড়া গণনা শুরু হয় যাত্রী গাড়িতে ওঠার পর থেকে। ঢাকায় প্রচলিত ট্যাক্সি সার্ভিসের তুলনায় এটিও একটি বাড়তি পাওনা বলা যায়।

x

Check Also

বিকালে সংবাদ সম্মেলনে আসছেন মির্জা ফখরুল

এমএনএ রিপোর্ট : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়নবঞ্চিতদের বিক্ষোভ ও দেশব্যাপী প্রতীক বরাদ্দের ডামাডোলের ...

Scroll Up