জেএসসি পরীক্ষার্থীকে হত্যা করল বন্ধুরা

এমএনএ জেলা প্রতিনিধি : পাবনা সদর উপজেলার দুবলিয়া গ্রামের মো. রবিউল ইসলাম প্রামানিকের মেজ ছেলে আশিক মাহমুদ অনি বাবু (১৪)। সে এবার জেএসসি পরীক্ষা শেষ করেছে।

অনি দু’টি অ্যানড্রয়েট মোবাইল ফোন ব্যবহার করতো, যার প্রতি বন্ধুদের লোভ ছিল। কয়েক দিন আগে তার জমানো সাড়ে চার হাজার টাকা হারিয়ে যায়। এসব নিয়ে বন্ধুদের সঙ্গে তার ঝগড়া হয়। এর জের ধরে অনিকে হত্যার পর লাশ পুঁতে রাখা হয়। আজ শুক্রবার সকালে দুবলিয়া হাইস্কুলের দক্ষিণ পাশের একটি হলুদ ক্ষেত থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

পাবনা সদর থানার দুবলিয়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মনোরঞ্জন রায় গণমাধ্যমকে এসব তথ্য জানান। মনোরঞ্জন রায় বলেন, এসব ছাড়াও প্রেমঘটিত বিষয় থাকতে পারে। তবে এ ঘটনা ঘটেছে তার বন্ধুদের দ্বারা। ঘটনার পর থেকে তারা সবাই পলাতক রয়েছে।

এলাকার লোকজন অবশ্য বলছে, ‘মোবাইল ফোনই অনির জীবনের কাল হলো’।

পুলিশ জানায়, গত ২৬ নভেম্বর অনি বাবু দুবলিয়া বাজার থেকে নিখোঁজ হয়। ওইদিন সন্ধ্যায় সে বাবার টিনের দোকানে যায়। এ সময় বাবা রবিউল প্রামানিক তাকে বাড়ি যেতে বলে। সে দোকান থেকে বেরিয়ে আর বাড়ি ফেরেনি। অনেক খোজাখুঁজির পরেও অনিকে পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে অনির বাবা রবিউল ইসলাম গত ২৭ নভেম্বর পাবনার আতাইকুলা থানায় একটি জিডি করেন।

এদিকে আজ শুক্রবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে দুবলিয়া হাইস্কুলের দক্ষিণ পাশের একটি হলুদ ক্ষেতে শ্রমিকরা কাজ করার সময় কোদালের কোপে একটি হাত বেরিয়ে আসে। এভাবে লাশটি উদ্ধারের পর অনির পরিবারের সদস্যরা এসে সেটি শনাক্ত করেন।

আজ শুক্রবার দুপুরে পাবনার পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে অনির খুনীদের খুঁজে বের করতে পুলিশকে নির্দেশ দেন।

উল্লেখ্য, রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশেই কিশোরদের অপরাধের সংখ্যা বাড়ছে। এমনকি তারা পরিকল্পিত হত্যার সঙ্গেও জড়িয়ে পড়ছে। সহপাঠী ও বন্ধুদের খুন করতেও দ্বিধা করছে না। বিশ্লেষকরা বলছেন, মূলত পারিবারিক ও সামাজিক মূল্যবোধের অভাব, অভিভাবকদের ঔদাসীন্য ও আইনের যথাযথ ব্যবহার না থাকায় কিশোরদের অপরাধ প্রবণতা বাড়ছে।

রাজধানীতে অক্টোবর মাসেই কিশোরদের হাতেই খুনের শিকার হয়েছে তিন কিশোর। এর মধ্যে ২৭ অক্টোবর ‘জুনিয়র-সিনিয়র বিতর্কে’ রাজধানীর চক বাজার এলাকায় হাসান আলী নামের ১৪ বছর বয়সী জেএসসি পরীক্ষার্থী এক কিশোরকে ছুরিকাঘাত করে একই এলাকার খোকা আলীসহ কয়েক কিশোর। ঘটনার পরদিন ২৮ অক্টোবর ভোরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসানের মৃত্যু হয়।

৮ অক্টোবর রাজধানীর পশ্চিম ধানমণ্ডি’র নিরিবিলি হাউজিং এলাকায় চাকু মেরে ইরফান নামে ১৬ বছর বয়সী এক কিশোরকে হত্যা করে তারই সমবয়সী রাজন নামে আরেক কিশোর।

এর আগে ৬ অক্টোবর কদমতলীর রায়েরবাগের মুজাহিদনগর এলাকায় গ্রিল মিস্ত্রি রফিকুল ইসলাম শিপনকে (১৮) ছুরিকাঘাতে হত্যা করে তার বন্ধুরা।

সিনিয়র-জুনিয়র দ্বন্দ্বে ২৫ আগস্ট দারুসসালামের টোলারবাগে ছুরিকাঘাত করে শাহিনকে (১৬), ২২ আগস্ট ভোরে মিরপুরের উত্তর পীরেরবাগ এলাকায় খুন হন কবির হোসেনকে (২১), ১৩ আগস্ট মোহাম্মদপুরের কাদেরিয়া তৈয়বিয়া আলিয়া কামিল মাদ্রাসার দশম শ্রেণির ছাত্র মোফাজ্জল হোসেনকে পিটিয়ে হত্যা করে কিশোররা। এছাড়াও ১ জুলাই আদাবরের শেখেরটেক এলাকায় সজল (১৫) নামে এক টেইলার্স কর্মীকে বেধড়ক পিটিয়ে হত্যা করে তার বন্ধুরা।

৬ জানুয়ারি ২০১৭ শুক্রবার রাজধানীর উত্তরায় দুটি কিশোর গ্যাংয়ের প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র প্রতিপক্ষ গ্রুপের হাতে খুন হয় নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী আদনান। এ ঘটনার মাত্র ১২ দিনের মাথায় ১৮ জানুয়ারি রাজধানীর তেজকুনিপাড়ায় ‘কে বড়, কে ছোট’ নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে কয়েক কিশোরের হাতে খুন হয় আবদুল আজিজ নামে আরেক কিশোর। ঠিক ১০ দিন পরই ২৮ জানুয়ারি বরিশালে দশম শ্রেণীর ছাত্র হৃদয় গাজী নামে এক কিশোরকে কুপিয়ে হত্যা করে তারই সমবয়সী অপর একদল কিশোর। এভাবে একের পর এক কিশোরদের অপরাধ কর্মকাণ্ড বেপরোয়াভাবে বেড়েই চলছে।

২০১৩ সালের ১৬ আগস্ট রাজধানীর চামেলীবাগে পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চের পরিদর্শক মাহফুজুর রহমান ও তার স্ত্রী স্বপ্না রহমানের কফিতে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে ও পরবর্তীতে কুপিয়ে হত্যা করে তাদেরই মেয়ে ঐশী। ২০১৬ সালে ১৫ সেপ্টেম্বর নতুন মডেলের মোটরসাইকেল না পেয়ে ফরিদপুরে বাবাকে হত্যা ও মা’কে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে এক কিশোর। দুটি ঘটনাই দেশব্যাপী আলোড়ন সৃষ্টি করে।

x

Check Also

বিকালে সংবাদ সম্মেলনে আসছেন মির্জা ফখরুল

এমএনএ রিপোর্ট : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়নবঞ্চিতদের বিক্ষোভ ও দেশব্যাপী প্রতীক বরাদ্দের ডামাডোলের ...

Scroll Up