খাশোগি হত্যার নির্দেশদাতা সৌদি যুবরাজ : মার্কিন সিনেটর

এমএনএ ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ডের নির্দেশদাতা সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। সিনেট ফরেন রিলেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান রিপাবলিকান পার্টির সিনেটর বব করকার গতকাল মঙ্গলবার এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, ‘সৌদি যুবরাজ খাশোগিকে হত্যার নির্দেশ দিয়েছেন এবং এ হত্যাকাণ্ড পর্যবেক্ষণ করেছেন সে ব্যাপারে কোন সংশয় নেই।’

তিনি আরো বলেন, খাশোগিকে বিচারের মুখোমুখি করা হলে ৩০ মিনিটের মধ্যেই তাকে দোষী প্রমাণ করা সম্ভব।

গতকাল সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ডে সৌদি যুবরাজ জড়িত আছে কিনা সে ব্যাপারে ব্রিফ করেন মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা (সিআইএ)।

ব্রিফিংয়ে অংশ নেওয়া সিনেটরদের দাবি খাশোগি হত্যায় সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের জড়িত না থাকার সম্ভাবনা ‘শূন্য’।

ক্ষমতাসীন রিপাবলিকান পার্টির সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম সাংবাদিকদের বলেন, ‘সৌদি যুবরাজের লোকেরাই যে এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে এমন উপসংহারে পৌঁছাতে না চাইলে আপনাকে জেনেশুনে অন্ধ হতে হবে।’

তিনি আরো বলেন, ট্রাম্প প্রশাসন খাশোগি হত্যাকাণ্ডে সৌদি যুবরাজের জড়িত থাকার বিষয়টি স্বীকার করতে চায় না।

উল্লেখ্য, গত ২ অক্টোবর তুরস্কের সৌদি দূতাবাসে খুন হন সাংবাদিক জামাল খাশোগি। এরপর খাশোগি হত্যাকাণ্ডে সৌদি যুবরাজের জড়িত থাকার ব্যাপারে অভিযোগ তুলে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম ও গোয়েন্দা। কিন্তু বরাবরই যুবরাজ জড়িত থাকার বিষয়টি অস্বীকার করে সৌদি আরব।

এর আগে ঊর্ধ্বতন এক মার্কিন কর্মকর্তা সিএনএন’কে বলেছিলেন, তুর্কি সরকারের দেওয়া রেকর্ডিং ও অন্যান্য প্রমাণাদি বিশ্লেষণ করে আমরা দেখেছি যে, যুবরাজ সালমানই খাসোগিকে হত্যার নির্দেশ দিয়েছিলেন।

তিনি ওই সময় আরও বলেছিলেন, খাসোগিকে হত্যার মতো এতো বড় ঘটনা যুবরাজের অনুমতি ছাড়া কোনাভাবেই হতে পারে না।

তবে সেইসময় সিআইএ’র এ দাবি অস্বীকার করেছিল সৌদি সরকার। সৌদি দূতাবাসের মুখপাত্র সিএনএন’কে ওই প্রতিবেদনের ব্যাপারে বলেছিলেন, এ অভিযোগ মিথ্যা।

ওয়াশিংটন পোস্টে ওই প্রতিবেদন প্রকাশের পর সৌদি সরকার তখন দাবি জানিয়েছিলেন, খাশুগজি হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে যুবরাজ কিছুই জানেন না।

সর্বপ্রথম ওয়াশিংটন পোস্টে সিআইএর এই অনুসন্ধান প্রতিবেদন প্রকাশ পায়।

সৌদি সাংবাদিক খাশুগজি ওয়াশিংটন পোস্টের কলামনিস্ট ছিলেন।

ওই কর্মকর্তার বরাত দিয়ে ওয়াশিংটন পোস্টের ওই প্রতিবেদনে তখন বলা হয়, খাশুগজিকে নিয়ে ক্রাউন প্রিন্সের ভাই যুক্তরাষ্ট্রে সৌদি রাষ্ট্রদূত প্রিন্স খালেদ বিন সালমানের ফোনালাপ নিয়ে তদন্তের ভিত্তিতে সিআইএ তাদের মূল্যায়ন জানিয়েছে।

প্রিন্স খালেদই খাশুগজিকে ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেট থেকে তার দরকারি কাগজপত্র সংগ্রহ করার পরামর্শ দিয়েছিলেন। তিনি খাশুগজিকে ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে কোনো বিপদ না হওয়ার নিশ্চয়তাও দিয়েছিলেন।

তথ্যসূত্র: আল-জাজিরা/রয়টার্স।

x

Check Also

বিকালে সংবাদ সম্মেলনে আসছেন মির্জা ফখরুল

এমএনএ রিপোর্ট : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়নবঞ্চিতদের বিক্ষোভ ও দেশব্যাপী প্রতীক বরাদ্দের ডামাডোলের ...

Scroll Up