ভেনিজুয়েলায় দুই দিনের সহিংস বিক্ষোভে নিহত ১৩

এমএনএ ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : ভেনিজুয়েলার বামপন্থী প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো বিরোধী সহিংস বিক্ষোভে গত দুই দিনে দেশটিতে ১৩ জন নিহত হয়েছেন। গতকাল বুধবার কারাকাস ভিত্তিক ডানপন্থী সংগঠন ভেনিজুয়েলান অবজারভেটরি অব সোশাল কনফ্লিক্ট এ কথা জানিয়েছে।

সংগঠনটি জানায়, রাজধানী কারাকাসসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। নিহতদের অধিকাংশই গুলিতে মারা গেছেন। এছাড়া ব্রাজিল সীমান্তবর্তী রাজ্য বলিভারে লুটপাটের খবরও পাওয়া গেছে।

গত সোমবার কারাকাসের একটি কমান্ড পোস্টে মাদুরো বিরাধীদের সঙ্গে ২৭ জন সৈন্যের এই সংঘর্ষ শুরু হয়। এরপরই বিক্ষোভকারীরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভিডিও পোস্ট করে ‘সবাইকে রাস্তায় নামার আহ্বান জানায়।’

কিন্তু মঙ্গলবার রাতে কারাকাস ও বলিভারে সহিংসতার তীব্রতা শুরু হয় এবং ভেনিজুয়েলার বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষ সহিংসতা গতকাল বুধবারও চলতে থাকে। বিরোধীরা দিনভর মাদুরো বিরোধী বিক্ষোভ করেন।

বলিভারের সান ফেলিক্সে বিক্ষোভকারীরা ভেনিজুয়েলার সাবেক প্রেসিডন্ট হুগো শ্যাভেজের একটি মূর্তিতে অগ্নিসংযোগ করে। গতকাল বুধবার কারাকাসের পূর্বাঞ্চলে দাঙ্গা পুলিশ বিক্ষোভকারীদের বাধা দেয়। বিরোধী দলীয় নেতা জুয়ান গুয়াইদো মিছিল সমাবেশের ডাক দেন। মাদুরোকে অপসারণের অংশ হিসেবে তিনি নিজেকে ভেনিজুয়েলার অন্তবর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট দাবি করেন।

কারাকাসের পার্শ্ববর্তী খনিজ সমৃদ্ধ এলাকা আলতামিরায় কতিপয় যুবক রাস্তা অবরোধ করলে অস্থিরতা শুরু হয়। সেনা সদস্যরা তাদের লক্ষ্য করে কাঁদানে গ্যাস ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। বিক্ষোভকারীরা সৈন্যদের লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছুঁড়ে মারে। রাজধানী কারাকাস ছাড়াও তাচিরা, বারিনাস, পর্তুগুয়েসা, আমাজনাস ও বলিভার রাজ্যের নিহতের খবর পাওয়া গেছে।

গতকাল বুধবার নিজেকে ‘অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট’ বলে ঘোষণা দিয়েছেন ভেনেজুয়েলার বিরোধীদলীয় নেতা হুয়ান গুয়াইদো।

এর কিছুক্ষণের মধ্যেই গুইদোকে ভেনেজুয়েলার ‘অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট’ হিসেবে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এর পরপরই যুক্তরাষ্ট্রের মতো একই ধরনের বিবৃতি দিয়ে কানাডাও তাকে স্বীকৃতি দেয়। ভেনেজুয়েলার প্রতিবেশী ব্রাজিল ও কলম্বিয়াসহ লাতিন আমেরিকার ডানপন্থী সরকারগুলোও তাদের অনুসরণ করে।

এদিকে ভেনেজুয়েলার বিরোধীদলীয় নেতা নিজেকে ‘অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট’ হিসেবে ঘোষণা করার পর প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোকে ফোন করে তার প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান।

x

Check Also

নুসরাত হত্যার আসামি শামীম ৫ দিনের রিমান্ডে

এমএনএ জেলা প্রতিনিধি : ফেনীতে নুসরাত জাহান রাফিকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় তার সহপাঠী মোহাম্মদ শামীমকে ...

Scroll Up