সুখী দেশের তালিকায় ১০ ধাপ পেছাল বাংলাদেশ

এমএনএ রিপোর্ট : বিশ্বজুড়ে করা সুখী দেশের তালিকায় ১০ ধাপ পিছিয়েছে বাংলাদেশ। তবে ওয়ার্ল্ড হেপিনেজ রিপোর্টের এ সূচকে প্রতিবেশী দেশ ভারত, শ্রীলঙ্কা ও মিয়ানমারের চেয়ে এখনও অনেক এগিয়ে আছে লাল-সবুজের পতাকা।

গতকাল বুধবার জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন সমাধান নেটওয়ার্ক (এসডিএসএন) ‘বিশ্ব সুখী প্রতিবেদন-২০১৯’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

প্রতিবছরই জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন সমাধান নেটওয়ার্ক (এসডিএসএন) বিভাগ ওয়ার্ল্ড হেপিনেজ রিপোর্ট প্রকাশ করে আসছে। এবারও এর ব্যতিক্রম নয়। গতকাল বুধবার (২০ মার্চ) বিশ্ব সুখী দিবস উপলক্ষে সুখী-অসুখী দেশের ২০১৯ সালের তালিকা প্রকাশ করে জাতিসংঘ।

এ তালিকা অনুযায়ী, বিশ্বের সবচেয়ে সুখী দেশ ইউরোপীয় ফিনল্যান্ড। আর তালিকাটিতে সবচেয়ে অসুখী বা সুখী দেশের একদম তলানিতে অবস্থান (১৫৬তম) করছে আফ্রিকান দক্ষিণ সুদান।

এ তালিকা অনুযায়ী, বিশ্বের সবচেয়ে সুখী দেশ ইউরোপীয় ফিনল্যান্ড। এ তালিকাটিয় ফিনল্যান্ডসহ শীর্ষ ১০ এ রয়েছে- ধারাবাহিকভাবে ডেনমার্ক, নরওয়ে, আইসল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস, সুইজারল্যান্ড, সুইডেন, নিউজিল্যান্ড, কানাডা এবং অস্ট্রিয়া।

দক্ষিণ সুদানসহ সূচন অনুযায়ী বিশ্বের সবচেয়ে অসুখী ১০টি দেশ হলো- মধ্য আফ্রিকা (১৫৫), আফগানিস্তান (১৫৪), তানজানিয়া (১৫৩), রুয়ান্ডা (১৫২) ইয়েমেন (১৫১), মালাউই (১৫০), সিরিয়া (১৪৯), বতসোয়ানা (১৪৮) এবং হাইতি (১৪৭)।

প্রতিবেদন অনুয়ায়ী, এবার বাংলাদেশের পরেই আছে ইরাক। আগের দুই বছরের তালিকায় যথাক্রমে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ১১০ ও ১১৫তম। অর্থাৎ বাংলাদেশ এই সুখী দেশের তালিকায় নিচের দিকে যাচ্ছে।

২০১৮ সালের এ জরিপে বাংলাদেশ ছিল ১১৫তম সুখী দেশ। এবার ১০ ধাপ পিছিয়ে ১২৫-এ অবস্থান নিয়েছে। এগিয়েছে অসুখীর দিকে।

বিশ্বের ১৫৬টি দেশের ওপর জরিপ চালিয়ে এ রিপোর্ট  প্রকাশ করা হয়। দুর্নীতির অনুপস্থিতি, স্বাস্থ্যকর জীবনযাত্রা, সামাজিক সমর্থন, সামাজিক স্বাধীনতা, ভদ্রতা, মাথাপিছু আয় গড় আয়ুর সম্ভাব্যতা, সামাজিক সহায়তা এবং উদারতাসহ মোট দেশজ উৎপাদন বিবেচনার ওপর ভিত্তি করে সুখী দেশের তালিকা করে জাতিসংঘ। এসব দেশের ২০১৬ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত সময়ের বিভিন্ন তথ্য বিশ্লেষণ শেষ এবারের রিপোর্ট প্রকাশ করা হয়েছে।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, দক্ষিণ এশিয়ায় সবচেয়ে সুখী দেশ পাকিস্তানের অবস্থান ৬৭তম। আর অসুখী দেশ আফগানিস্তানের অবস্থান ১৫৪তম। পাকিস্তানের পরেই আছে ভুটান ৯৫তম। ১০০তম অবস্থানে নেপাল।

২০১১ সালে দক্ষিণ এশিয়া দেশ ভুটান জাতিসংঘে বিশ্ব সুখী দিবস পালনের প্রস্তাব উত্থাপন করে। এরপরের বছর থেকেই ২০ মার্চকে বিশ্ব সুখী দিবস হিসেবে পালন করা হচ্ছে। একইসঙ্গে ওয়ার্ল্ড হেপিনেজ রিপোর্টও করা হচ্ছে। এ বছরের তালিকায় ৯৫তম অবস্থান দখল করেছে প্রস্তাবকারী ভুটান।

এদিকে, বাংলাদেশের চেয়ে এখনও পাঁচ ধাপ পিছিয়ে আছে ভারত। দেশটি এবার সাত ধাপ পিছিয়ে ১৩০তম অবস্থানে। আর তালিকাতে শ্রীলঙ্কা আছে ১৪০তম সুখী দেশ হিসেবে।

তালিকায় যুক্তরাজ্য ১৫, যুক্তরাষ্ট্র ১৯, জার্মানি ১৭তম অবস্থানে রয়েছে।

এশিয়ায় শীর্ষে থাকা ইসরায়েলের অবস্থান ১৩তম। মধ্যপ্রাচ্যের অন্য দেশগুলোর মধ্যে আরব আমিরাত ২১, সৌদি আরব ২৮, কাতার ২৯, বাহরাইন ৩৭ ও ইরান ১১৭তম।

অপরদিকে জাপান ৫৮, রাশিয়া ৬৮ ও চীন ৯৩তম। আর রোহিঙ্গা সংকটে জর্জরিত মিয়ানমারের অবস্থান ১৩১তম।

শীর্ষ ১০ সুখী দেশ

এবার শীর্ষ ১০ সুখী দেশ হলো- যথাক্রমে ফিনল্যান্ড, ডেনমার্ক, নরওয়ে, আইসল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস, সুইজারল্যান্ড, সুইডেন, নিউজিল্যান্ড, কানাডা ও অস্ট্রিয়া। অর্থাৎ তালিকার প্রথম চারটি দেশই স্ক্যান্ডিনেভীয়।

সবচেয়ে অসুখী ১০ দেশ

যথাক্রমে দক্ষিণ সুদান, মধ্য আফ্রিকা প্রজাতন্ত্র, আফগানিস্তান, তানজানিয়া, রুয়ান্ডা, ইয়েমেন, মালাবি, সিরিয়া, বতসোয়ানা ও হাইতি। অর্থাৎ নিচের দিকে আফ্রিকার দেশগুলোই বেশি।

x

Check Also

প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে এবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মামলা

এমএনএ রিপোর্ট : হোয়াইট হাউসে গিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতন নিয়ে ...

Scroll Up