অবশেষে বিএসএমএমইউ হাসপাতালে খালেদা জিয়া

এমএনএ রিপোর্ট : দুর্নীতির মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে কোথায় চিকিৎসা দেয়া হবে- তা নিয়ে সরকার ও বিএনপির পরস্পরবিরোধী চাওয়ার মধ্যেই অবশেষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালেই নেয়া হয়েছে তাকে। আজ সোমবার পুরান ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডের কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে খালেদাকে বহনকারী অ্যাম্বুলেন্সটি দুপুর ১২টা ৩৬ মিনিটে হাসপাতালে পৌঁছায় ।

হাসপাতালে পৌঁছানোর পর ১২টা ৩৭ মিনিটে তাকে পুলিশের কালো রঙের একটি গাড়ি থেকে বের করা হয়। এরপর একটি হুইল চেয়ারে করে হাসপাতালের ভেতরে নিয়ে যাওয়া হয় গোলাপী শাড়ি পরা খালেদাকে। এসময় তার সঙ্গে গৃহপরিচারিকা ফাতেমা বেগম ছিলেন।

এর আগে সকাল থেকেই প্রস্তুতি শুরু হয় বঙ্গবন্ধু মেডিকেলের কেবিন ব্লকের ৬২১ ও ৬২২ নম্বর কেবিন গোছানোর কাজ। কেবিন ব্লকের সামনে নিরাপত্তাও বাড়ানো হয়। কারাগার থেকে এনে রাখা হয় খালেদার ব্যক্তিগত জিনিসপত্র।

এর আগে দুপুর ১২টা ২০ মিনিটে রাজধানীর নাজিমউদ্দিন রোডের পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্দেশে রওনা হয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নিরাপত্তাবেষ্টনীতে থাকা গাড়ি বহর।

পুলিশ, র‌্যাব, ফায়ার সার্ভিস ও কারা কর্তৃপক্ষের মিলিয়ে ১০-১২টি গাড়ির একটি বহর বিএসএমএমইউর উদ্দেশে রওনা দেয়।

খালেদাকে হাসপাতালে নেয়ার উদ্দেশে এর আগে সকাল থেকেই পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারের চারপাশের সড়ক বন্ধ করে দেয়া হয়। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুলসংখ্যক সদস্য মোতায়ন করা হয়।

এদিকে নাইকো দুর্নীতি মামলায় শুনানির জন্য বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে হাজিরের নির্ধারিত দিন ছিল আজ সোমবার। তবে তাকে আদালতে হাজির করা হয়নি।

খালেদা জিয়া অসুস্থ বলে তাকে হাজির করা যায়নি বলে আদালতকে জানায় কারা কর্তৃপক্ষ। তার আইনজীবীরা সময় চেয়ে আবেদন করেন। পরে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৯-এর বিচারক শেখ হাফিজুর রহমান আগামী ১০ এপ্রিল মামলার শুনানির পরবর্তী তারিখ ধার্য করেন।

কানাডিয়ান কোম্পানি নাইকোর সঙ্গে অস্বচ্ছ চুক্তির মাধ্যমে রাষ্ট্রের বিপুল আর্থিক ক্ষতিসাধন ও দুর্নীতির অভিযোগে ২০০৭ সালের ৯ ডিসেম্বর তেজগাঁও থানায় এ মামলা করে দুদক।

কারাবান্দি বিএনপি চেয়ারপারসনকে আদালতে হাজির করা হলে গত ১৯ মার্চ তার সঙ্গে দেখা করেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। খালেদা অসুস্থ এবং তিনি মাথা সোজা রাখতে পারছেন না বলে ওইদিন সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন তিনি।

গত ১০ মার্চ বিএনপি চেয়ারপারসনকে চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে নেওয়ার সব প্রস্তুতি নেওয়া হলেও তিনি যেতে রাজি হননি বলে জানিয়েছিল কারা কর্তৃপক্ষ।

এক বছরের বেশি সময় কারাবন্দি খালেদা জিয়া অসুস্থ বলে বিএনপির পক্ষ থেকে বিভিন্ন সময় বলা হলেও খালেদাকে বিএসএমএমইউয়ে চিকিৎসা দেয়ার বিষয়ে তারা খুব একটা আগ্রহী নয়। বরং বিএনপির পক্ষ থেকে বিভিন্ন সময় খালেদা জিয়াকে ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তির কথা বলা হয়েছে।

গত বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি বেগম জিয়া কারাবন্দি হওয়ার পর থেকে বিভিন্ন সময়ে বিএনপির পক্ষ থেকে অভিযোগ তোলা হয়, কারাগারে তাদের চেয়ারপারসনের যথাযথ চিকিৎসা হচ্ছে না।

অন্যদিকে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, জেল কোড অনুযায়ী খালেদা জিয়াকে সর্বোচ্চ চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। বিএনপি তার অসুস্থতা নিয়ে রাজনীতি করছে।

দুদকের করা দুই মামলায় ১০ ও ৭ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হয়েছেন খালেদা জিয়া। আপিলে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ৫ বছরের কারাদণ্ড বেড়ে ১০ বছর এবং জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিশেষ আদালতে ৭ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হন তিনি।

২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণার পর পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডে অবস্থিত পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে খালেদা জিয়াকে বন্দি রাখা হয়। সেখান থেকেই গত ৬ অক্টোবর চিকিৎসকদের পরামর্শে বিএসএমএমইউ হাসপাতালে নেয়া হয় সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীকে। টানা এক মাস দুই দিন চিকিৎসা নেয়ার পর ৮ নভেম্বর তাকে কারাগারে ফিরিয়ে আনা হয়।

x

Check Also

আজ বৃহস্পতিবারের দিনটি আপনার কেমন যাবে?

এমএনএ ফিচার ডেস্ক : আজ ২৫ এপ্রিল ২০১৯, বৃহস্পতিবার। বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। নতুন সূর্যালোকে আজ ...

Scroll Up