‘ফণি’র কারণে শনিবারের এইচএসসি পরীক্ষা পেছাল

এমএনএ রিপোর্ট : ঘূর্ণীঝড় ‘ফণি’র কারণে চলমান উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) ও সমমানের আগামী শনিবারের পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। ওই দিনের সব পরীক্ষা ১৪ মে নির্ধারিত সময়ে অনুষ্ঠিত হবে।

আজ বৃহস্পতিবার আন্তঃশিক্ষাবোর্ড সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মু. জিয়াউল হক এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, আগামী ৪ মে শনিবার সকালে যে পরীক্ষাগুলো হওয়ার কথা ছিল, সেগুলো হবে আগামী ১৪ মে সকালে। একইভাবে আগামী ৪ মে বিকালের পরীক্ষাগুলো আগামী ১৪ মে বিকালে নেওয়া হবে। এইচএসসিতে আগামী ৪ মে সকালে উচ্চতর গণিত প্রথম পত্র এবং ইসলাম শিক্ষা প্রথম পত্রের পরীক্ষা ছিল। আর বিকালে ছিল গার্হাস্থ্য বিজ্ঞান প্রথম পত্রের পরীক্ষা।

এছাড়া মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে আগামী ৪ মে জীববিজ্ঞান প্রথম পত্রের তত্ত্বীয় পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল।

এদিকে ৪০তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি (এমসিকিউ) পরীক্ষা আগামীকাল শুক্রবার নির্ধারিত সময়েই শুরু হবে। ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকার ১৬৫টি কেন্দ্রে সকাল ১০ থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত একযোগে এ পরীক্ষা শুরু হবে।

এ সময়ের মধ্যে ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’ আঘাত হানার পূর্বাভাস না থাকায়, পরীক্ষার সময় অপরিবর্তিত থাকবে বলে বৃহস্পতিবার সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি) থেকে জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, ভারতের ওড়িশা উপকূল হয়ে আগামীকাল শুক্রবার বিকেলে বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে আঘাত হানতে পারে ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’। ইতোমধ্যে পায়রা ও মোংলা সমুদ্রবন্দরকে ৭ নম্বর ও চট্টগ্রাম বন্দরকে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত এবং কক্সবাজার সমুদ্রবন্দরকে ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। এ জন্য উপকূলীয় ১৯ জেলার সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সব ধরনের ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

‘ফণী’র প্রভাবে দেশের উপকূলীয় এলাকায় জলোচ্ছ্বাস হতে পারে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর।

অধিদপ্তরের সামুদ্রিক সতর্কবার্তায় বলা হয়েছে, ঘূর্ণিঝড় ও অমাবস্যার প্রভাবে উপকূলীয় জেলা চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, বরগুনা, ভোলা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলোর নিম্নাঞ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৪-৫ ফুট অধিক উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে।

উপকূলের বিভিন্ন স্থানে থেমে থেমে ঝড়ো হাওয়ার সঙ্গে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টিও হচ্ছে। নদীবন্দর কর্তৃপক্ষ বলছে, উপকূলীয় এলাকার অভ্যন্তরীণ নৌযান চলাচলে সর্বোচ্চ সর্তকতা অবলম্বন করা হচ্ছে। আবহাওয়া পরিবর্তন হলে যেকোনো সময় লঞ্চ চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হবে। তবে সাগর উত্তাল থাকায় এরমধ্যে সাগরে অবস্থান করা সকল মাছ ধরা ট্রলার ও নৌকাগুলো মৎস্য বন্দরে ফিরে আসতে শুরু করেছে।

x

Check Also

বিএনপির মনোনয়ন পেলেন রুমিন ফারহানা

এমএনএ রিপোর্ট : একাদশ জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনে দলের সহআন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানাকে ...

Scroll Up