ফাইনালে যেতে ইংল্যান্ডের লক্ষ্য ২২৪ রান

এমএনএ স্পোর্টস ডেস্ক : স্টিভেন স্মিথের ৮৫ রানের লড়াকু ইনিংসের সুবাদে শেষ পর্যন্ত ইংল্যান্ডকে ২২৪ রানের লক্ষ্য দিতে সক্ষম হয়েছে অস্ট্রেলিয়া। জিতলে ফাইনালে, হারলে বিদায়। এমন কঠিন সমীকরণের ম্যাচে স্কোর বোর্ডে ১৪ রান জমা করতেই সাজঘরে ফেরেন অসি তিন সেরা ব্যাটসম্যান অ্যারন ফিঞ্চ, ডেভিড ওয়ার্নার ও পিটার হ্যান্ডসকম্ব। ইংল্যান্ডের পক্ষে ক্রিস ওকস ও আদিল রশিদ তিনটি করে উইকেট নিয়েছেন।

একাই লড়াই গেলেন স্টিভেন স্মিথ। এক প্রান্তে যখন একের পর এক উইকেট পড়ছিল, অন্যপ্রান্তে একাই অবিচল ছিলেন তিনি। ইংলিশ বোলারদের গতির আগুন কিংবা মায়াবী ঘূণি জাদু- কোনো কিছুই কাবু করতে পারেনি তাকে। স্মিথের কল্যাণেই ১৪ রানে ৩ উইকেট পড়ে যাওয়ার পরও ইংল্যান্ডের সামনে ২২৪ রানের চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য দাঁড় করাতে পেরেছে অস্ট্রেলিয়া।

বিশ্বকাপের গত ১১ আসরের মধ্যে পাঁচবার শিরোপা জিতে নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। বিশ্বকাপের বর্তমান চ্যাম্পিয়নও তারা। এবারের আসরের শুরু থেকেই দুর্দান্ত খেলে এসেছে অ্যারন ফিঞ্চের দল। কিন্তু সবশেষ ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে হেরে যাওয়া দলটি, আজ সেমিফাইনালেও প্রত্যাশিত ব্যাটিং করতে পারেনি।

বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে আজ বৃহস্পতিবার ইংল্যান্ডের বার্মিহ্যামে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। প্রথমে ব্যাট করে ৪৯ ওভারে ২২৩ রানে অলআউট হয় লিগপর্বের শীর্ষ দলটি।

ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই ইংলিশ বোলারদের তোপের মুখে পড়ে ৫ বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া। ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই উইকেট হারায় পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। জফরা আর্চারের বলে এলবিডব্লিউয়ের শিকার হন অ্যারন ফিঞ্চ। এদিন রানের খাতা খুলতেও ব্যর্থ হন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক। দলীয় ১০ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৯ রানে ওকসের বলে জনি বেয়ারস্টোর হাতে ক্যাচ দেন ডেভিড ওয়ার্নার। মাত্র এক রানের জন্য বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের জায়গাটি পুনরুদ্ধার করতে ব্যর্থ হন আসরের অন্যতম সফল এই ব্যাটসম্যান। ১০ ম্যাচ শেষে তার ব্যক্তিগত সংগ্রহ দাঁড়ালো ৬৪৭ রান। এক রান বেশি নিয়ে এই তালিকার শীর্ষে ভারতের উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মা। দলীয় স্কোরে চার রান যোগ করে হ্যান্ডসকম্বও ফিরলে চাপে পড়ে অস্ট্রেলিয়া।

এরপরই ত্রাতা হিসেবে আবির্ভূত হন দলটির সাবেক অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ। সেখান থেকে অস্ট্রেলিয়াকে টেনে তুলেন স্টিভেন স্মিথ আর অ্যালেক্স ক্যারে। এই দুই ব্যাটসম্যানের ১০৩ রানের জুটিই ইংল্যান্ডের সামনে অস্ট্রেলিয়ার লড়াকু ইনিংস গড়ে তোলার ক্ষেত্রে মূল ভুমিকা পালন করেন। দলীয় ১১৭ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৪৬ রানে আদিল রশিদের শিকার হন ক্যারি। এই ওভারেই স্টোইনিসকে ফিরে অস্ট্রেলিয়াকে খাদের কিনারায় ঠেলে দেন আদিল রশিদ। তখনো অবশ্য দলের হাল শক্ত করেই ধরে রাখেন স্মিথ। দলীয় ২১৭ রানের মাথায় ১১৯ বলে ব্যক্তিগত ৮৫ রানে স্মিথ আউট হলে অস্ট্রেলিয়ার পথ সংকুচিত হয়ে আসে। শেষ পর্যন্ত সব উইকেট হারিয়ে দলটির সংগ্রহ ২২৩ রান।

বিশ্বকাপের সেমি-ফাইনালে কখনই আগে হারেনি অস্ট্রেলিয়া। এবার সেই রেকর্ড অক্ষুন্ন রাখার খানিকটা সুযোগ এনে দিয়েছে স্মিথের ইনিংসটিই। তবে ইংলিশরা জানে, সুযোগটা তাদেরই বেশি। একটু ঠাণ্ডা মাথায় ব্যাটিং করলেই সামনে লর্ডসের ফাইনাল!

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

অস্ট্রেলিয়া : ৪৯ ওভারে ২২৩ (ওয়ার্নার ৯, ফিঞ্চ ০, স্মিথ ৮৫, হ্যান্ডসকম ৪, কেয়ারি ৪৬, স্টয়নিস ০, ম্যাক্সওয়েল ২২, কামিন্স ৬, স্টার্ক ২৯, বেহরেনডর্ফ ১, লায়ন ৫*; ওকস ৮-০-২০-৩, আর্চার ১০-০-৩২-২, স্টোকস ৪-০-২২-০, উড ৯-০-৪৫-১, প্লাঙ্কেট ৮-০-৪৪-০, রশিদ ১০-০-৫৪-৩)।

x

Check Also

আজ শুক্রবারের দিনটি আপনার কেমন যাবে?

এমএনএ ফিচার ডেস্ক : আজ ১৯ জুলাই ২০১৯, শুক্রবার। নতুন সূর্যালোকে আজ শুক্রবারের দিনটি আপনার ...

Scroll Up