Don't Miss
Home / রাজনীতি / জিয়া পরিবারকে হয়রানি ও হেয় প্রতিপন্ন করতে মামলা: মির্জা ফখরুল
জিয়া

জিয়া পরিবারকে হয়রানি ও হেয় প্রতিপন্ন করতে মামলা: মির্জা ফখরুল

এমএনএ রাজনীতি ডেস্কঃ কোনো ভিত্তি না থাকলেও শুধুমাত্র জিয়া পরিবারকে হয়রানি ও হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য মামলা দায়ের করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, দুদকের মামলায় তারেক রহমানের সহধর্মিণী চিকিৎসক জোবায়দা রহমানকে জড়ানো সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও প্রতিহিংসামূলক। এই মামলার কোনো ভিত্তি না থাকলেও আপিল বিভাগ থেকে যে আদেশ দেওয়া হয়েছে তা ফরমায়েশি বলে প্রতীয়মান হয়।

শনিবার দুপুরে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয় সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি করেন।

ফখরুল বলেন, পরিকল্পিতভাবে বিচার বিভাগকে কাজে লাগিয়ে সাংবিধানের গণতান্ত্রিক চরিত্র ধ্বংস করে একদলীয় কর্তৃত্ববাদী একনায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠার প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, দুর্ভাগ্যজনকভাবে বিচার বিভাগ সংবিধানিক স্বাধীনতা রক্ষা না করে দলীয় সংকীর্ণ উদ্দেশ্য চরিতার্থের জন্য বেআইনি, জবর দখলকারী অনির্বাচিত আওয়ামী সরকারকে অনৈতিক সহযোগিতা করছে বলে প্রতীয়মান হচ্ছে।

তিনি বলেন, যে আদেশ দেওয়া হয়েছে তা ফরমায়েসী বলে প্রতীয়মান হয়। বিচার বিভাগকে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে প্রভাব বিস্তার করে এই ফ্যাসিবাদী সরকার রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে নিমূর্ল করার হীন উদ্দেশ্যেই এসব হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলা দায়ের করছে। একইভাবে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধেও রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে মিথ্যা মামলায় বেআইনিভাবে সাজা দিয়ে রাজনীতি থেকে দূরে রাখার অপচেষ্টা চালাচ্ছে।

বিএনপি মহাসচিব আরও বলেন, বিচার বিভাগকে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে প্রভাব বিস্তার করে এই সরকার রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে নির্মূল করার হীন উদ্দেশ্যেই এসব হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে। একইভাবে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধেও রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে মিথ্যা মামলায় বেআইনিভাবে সাজা দিয়ে রাজনীতি থেকে দূরে রাখার অপচেষ্টা করছে। পরিকল্পিতভাবে বিচার বিভাগকে কাজে লাগিয়ে সংবিধানের গণতান্ত্রিক চরিত্র ধ্বংস করে একদলীয় কর্তৃত্ববাদী একনায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠার প্রচেষ্টা চালাচ্ছে।

তিনি বলেন, দুর্ভাগ্যজনকভাবে বিচার বিভাগ সংবিধান প্রদত্ত স্বাধীনতা রক্ষা না করে দলীয় সংকীর্ণ উদ্দেশ্য চরিতার্থের জন্য বেআইনিভাবে জবর দখলকারী অনির্বাচিত আওয়ামী সরকারকে অনৈতিক সহযোগিতা করছে বলে জনমনে ধারণা সৃষ্টি হয়েছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সভায় এধরনের হীন অপচেষ্টার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয় এবং বিচার বিভাগকে নিরপেক্ষ দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে স্বাধীনভাবে সংবিধানের মূল চরিত্র কে অক্ষুন্ন রেখে বিচারে কর্ম সম্পাদনের আহ্বান জানানো হয়।

x

Check Also

একনেক

একনেকে অনুমোদিত হলো ১০ প্রকল্প

এমএনএ অর্থনীতি ডেস্কঃ ২ হাজার ২১৬ কোটি ৭৫ লাখ টাকা ব্যয়ে দশটি প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে ...

Scroll Up