Don't Miss
Home / হোম স্লাইডার / নারীদের জন্য যেসব লক্ষণ স্তন ক্যান্সারের পূর্বাভাস
স্তন

নারীদের জন্য যেসব লক্ষণ স্তন ক্যান্সারের পূর্বাভাস

এমএনএ জীবনচর্চা ডেস্কঃ দিনকে দিন বেড়েই চলেছে স্তন ক্যান্সারে আক্রান্তের সংখ্যা। তবে এদের মধ্যে যে শুধু যে নারীরাই রয়েছেন, তা কিন্তু নয়। স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হতে পারেন পুরুষরাও।

তবে এই রোগে পুরুষের তুলনায় নারীর আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি। নারীর ক্ষেত্রে বয়স চল্লিশ পার হলে স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ে। আবার দৈনন্দিন জীবন-যাপনের পদ্ধতিও স্তন ক্যানসারের ঝুঁকি বাড়াতে পারে।

এর শেষ পরিণতি মৃত্যু। তবে আগেই রোগ চিহ্নিত করতে পারলে নিরাময় করা সম্ভব। বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, স্তন ক্যান্সার সম্পূর্ণ নিরাময়যোগ্য হওয়ার পরেও যে অসংখ্য নারী এই অসুখের বলি হন। তার একমাত্র কারণ, স্তনের অস্বাভাবিক মাংসপিণ্ডের অস্তিত্ব বুঝতে না পারা অথবা বুঝেও উদাসীন থাকা।

জেনে নিন স্তন ক্যান্সারের কয়েকটি লক্ষণ। যা আপনাকে আগেই জানান দেবে এই মরনব্যাধির। সঠিক সময়ে চিকিৎসায় সুস্থ হতে পারেন। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক স্তন ক্যান্সারের লক্ষণগুলো-

> প্রথমত লক্ষ্য রাখুন শক্ত কোনো লাম্প দেখা যাচ্ছে কিনা। কমবেশি সব নারীর স্তনেই লাম্প থাকে। এর মধ্যে কয়েকটি ক্যানসারাস ও কয়েকটি নন-ক্যানসারাস। এই ব্রেস্ট লাম্পগুলো অনেক সময় আন্ডারআর্ম বা কলার বোনের নিচেও দেখা যায়। এছাড়া স্তনবৃন্তের আশপাশেও এই ধরনের লাম্প থাকে যেগুলো টিপলে শক্ত লাগে এবং অবস্থান পরিবর্তন করে না। এমন কিছু দেখলে দ্রুত চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করুন। ব্যথাহীন লাম্পই বেশি মারাত্মক। এই রোগের ক্ষেত্রে বংশও প্রাধান্য পায়। এর আগে পরিবারে কেউ আক্রান্ত হলে পরবর্তী জেনারেশনদেক ব্রেস্ট বা ওভারি ক্যান্সার থাকলে ঝুঁকি বেশি।

> স্তনবৃন্ত থেকে অল্প অল্প জলীয় পদার্থ ক্ষরিত হচ্ছে। অথচ ব্রেস্ট ফিডিং করাচ্ছেন না। তাহলে সতর্ক হোন।

> কোনো রকম র‍্যাশ বা ফুসকুড়ি বা ঘামাচি কিছুই নেই। তবু ইচিং বা চুলকানির মতো অনুভূতি হচ্ছে। এটি স্তন ক্যান্সারের অন্যতম লক্ষণ। অনেক সময় এর সঙ্গে নিপ্ল থেকে হালকা হালকা রস নিঃসৃত হয়, স্তনের ত্বকেও কিছুটা পরিবর্তন আসে। তাই চুলকানির মতো কিছু হলে নিজে থেকে কোনো ক্রিম বা লোশন লাগাবেন না। আগে চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলবেন।

> স্তনবৃন্ত চ্যাপ্টা হয়ে যাওয়া, বেঁকে যাওয়া বা স্তনবৃন্তের শেপ অসমান হয়ে যাওয়া ক্যান্সারের লক্ষণ। বিশেষ করে যদি ব্রেস্টফিডিং না চলা অবস্থায়ও এই বিষয়গুলো চোখে পড়ে। সামান্য সন্দেহ হলেই চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করুন।

> স্তনে বিকৃতি বা ফোলা ভাব, স্তন লালচে হয়ে যাওয়া, স্তনে হাত দিলে ব্যথা লাগা এই রোগের লক্ষণ। পিরিয়ডের আগে অনেকের স্তন ভারী হয় ও ব্যথা হয়। এতে ভয়ের কিছু নেই। তবে স্তনের উপরের ত্বক যদি খসখসে হয়ে গেলে ক্যান্সারের প্রাথমিক লক্ষণ। রাতে শোয়ার সময় স্তনে ব্যথা বা অন্তর্বাস পরে থাকার সময় ঘর্ষণ বা ছড়ে যাওয়ার মতো অনুভূতি হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন দ্রুত।

x

Check Also

পেনশনার

ঊর্ধ্বসীমা বাড়ছে পেনশনার সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগে

এমএনএ অর্থনীতি ডেস্কঃ ২০১৫ সালে নতুন পে স্কেল প্রদানের মাধ্যমে সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন প্রায় দ্বিগুণ ...

Scroll Up
%d bloggers like this: