Don't Miss
Home / জাতীয় / প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সিলেট-সুনামগঞ্জ-নেত্রকোনা যাচ্ছেন কাল
সিলেট

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সিলেট-সুনামগঞ্জ-নেত্রকোনা যাচ্ছেন কাল

এমএনএ জাতীয় ডেস্কঃ বন্যাপীড়িত লাখ লাখ অসহায় মানুষকে সাহস জোগাতে ও বন্যা পরিস্থিতি সরেজমিন দেখতে আগামীকাল সিলেট, সুনামগঞ্জ ও নেত্রকোনা বন্যাদুর্গত এলাকায় যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি ভয়াবহ বন্যাকবলিত অসহায় মানুষের মধ্যে ত্রাণ বিতরণও করবেন। তিনি বেশকিছু ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করবেন। বাসস জানায়, সিলেট ও সুনামগঞ্জ থেকে ফিরে প্রধানমন্ত্রী নেত্রকোনা দুর্গত এলাকা পরিদর্শন করবেন।

এদিকে বুধবার (২২ জুন) স্বপ্নের পদ্মাসেতু উদ্বোধনের আগে দেশের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলতে সংবাদ সম্মেলন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ওইদিন বেলা ১১টায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলন হবে। বরাবরের মতোই রাষ্ট্রীয় প্রচার মাধ্যম বাংলাদেশ টেলিভিশন এবং বাংলাদেশ বেতার এ সংবাদ সম্মেলন সরাসরি সম্প্রচার করবে। আগামী শনিবার সকালে পদ্মা নদীর ওপর নির্মিত দেশের অন্যতম মেগা প্রকল্প পদ্মাসেতুর উদ্বোধন করবেন শেখ হাসিনা। সেদিন অনুষ্ঠান হবে সারা দেশে।

এদিকে, বন্যা পরিস্থিতির মারাত্মক অবনতি হওয়ার পরও সিলেট ও সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনাসহ বিভিন্ন উপদ্রুত এলাকার অনেক মন্ত্রী-এমপি এখন পর্যন্ত রাজধানী ঢাকায় অবস্থান করছেন। দুঃসময়ে নির্বাচিত প্রতিনিধিদের কাছে না পেয়ে হতাশা ব্যক্ত করেছেন দুর্গত মানুষ।

আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতা জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রথমে সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছার কথা রয়েছে। তিনি ঠিক কখন সিলেট পৌঁছাবেন, তা এখনো চূড়ান্ত হয়নি। তবে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ঢাকা থেকে তিনি হেলিকপ্টারে করে রওনা হবেন। প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গীদের মধ্যে থাকবেন আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, দুই সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, মির্জা আজম, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী।

সিলেট ওসমানী বিমানবন্দরে পৌঁছার পর স্থানীয় সার্কিট হাউসে ত্রাণ ও দুর্যোগ মন্ত্রণালয়ের বৈঠকে অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী। এরপর তিনি বন্যাকবলিত মানুষের মধ্যে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করবেন। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি সহমর্মিতা জানাবেন। ওইদিনই ঢাকায় ফিরে আসবেন শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রীর সিলেট সফরে আসার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পরপরই স্থানীয় প্রশাসন এ-সংক্রান্ত সার্বিক কার্যক্রম শুরু করেছে। স্থানীয় প্রশাসনের উচ্চ পর্যায়ের একটি টিমের সদস্যরা ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এলাকা পরিদর্শন করেছেন। তারা নিরাপত্তার যাবতীয় বিষয় খতিয়ে দেখছেন।

এদিকে, সিলেট ও সুনামগঞ্জের আকস্মিক বন্যা পরিস্থিতি সরেজমিন দেখতে ও দুর্গতদের সাহস জোগাতে প্রধানমন্ত্রী বন্যাদুর্গত অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের নির্দেশ এবং অসহায় মানুষকে সহায়তা দেওয়ার জন্য বিত্তবানদের প্রতি আহ্বান জানালেও এখনো বন্যাদুর্গত এলাকায় নেই অনেক মন্ত্রী-এমপি। সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ার পরও উপদ্রুত এলাকার অনেক মন্ত্রী-এমপি এখনো রাজধানীতেই অবস্থান করছেন। সিলেট ও সুনামগঞ্জে গত বুধবার থেকে সৃষ্ট বন্যা পরিস্থিতিতে স্থানীয় সংসদ সদস্যদের পাশে না পেয়ে দুই জেলার সংসদীয় এলাকার মানুষ অসন্তোষ প্রকাশ করছেন। অনেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ক্ষোভও প্রকাশ করছেন।

আবার, এই ভয়াল পরিস্থিতির ভেতর প্রথম থেকেই নিজ এলাকায় গিয়ে সবার খোঁজখবর রেখে ও প্রত্যক্ষভাবে ত্রাণ কার্যক্রমে অংশ নিয়ে প্রশংসিতও হচ্ছেন কোনো কোনো জনপ্রতিনিধি।

সিলেট ও সুনামগঞ্জে সংসদীয় আসন সংখ্যা ১১টি। এর মধ্যে সিলেটে ছয়টি, সুনামগঞ্জে পাঁচটি। এই ১১ আসনের মধ্যে নয় জন আওয়ামী লীগের; জাতীয় পার্টি ও গণফোরামের একজন করে।

কাছাকাছি সময়ে সিলেটে দ্বিতীয় দফার বন্যায় বিপর্যস্ত অবস্থা তৈরি হলেও এখন পর্যন্ত এলাকায় যাননি সিলেট-১ আসনের সংসদ সদস্য ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন, তিনি গত শনিবার সরকারি সফরে ভারত গেছেন। সিলেট-৫ আসনের সংসদ সদস্য হাফিজ আহমদ মজুমদার এবং সিলেট-৬ আসনের সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম নাহিদ। সুনামগঞ্জ-২ আসনে আওয়ামী লীগের এমপি জয়া সেনগুপ্তকে তার নির্বাচনী এলাকায় দেখা যায়নি। তিনি ঢাকায় অবস্থান করছেন বলে জানা গেছে। পরিকল্পনামন্ত্রী ও সুনামগঞ্জ-৩ আসনের এমপি এমএ মান্নান করোনা আক্রান্ত।

সিলেট-৫ আসনে আওয়ামী লীগের এমপি হাফিজ আহমদ মজুমদার জানান, তার নির্বাচনী এলাকায় ত্রাণ তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে। দুই-একদিনের মধ্যেই নির্বাচনী এলাকায় যাওয়ার প্রস্তুতি রয়েছে। সিলেট-৬ আসনে আওয়ামী লীগের এমপি নুরুল ইসলাম নাহিদ আজ তার নির্বাচনী এলাকায় যাবেন। প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী এবং সিলেট-৪ আসনের এমপি ইমরান আহমদ এরই মধ্যে ত্রাণ কার্যক্রমে অংশ নিয়েছেন। তিনি গত শনিবার বন্যার্ত মানুষের মধ্যে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করে ঢাকায় ফিরে এসেছেন। আবারো এলাকায় যাবেন বলে প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

সিলেটের ছয় এমপির মধ্যে একমাত্র সিলেট-৩ আসনে আওয়ামী লীগের এমপি হাবিবুর রহমান বন্যা শুরুর পর থেকেই এলাকায় ত্রাণ তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। সুনামগঞ্জ-১ আসনে আওয়ামী লীগের এমপি মোয়াজ্জেম হোসেন রতন শুক্রবার থেকে ত্রাণ তৎপরতা চালাচ্ছেন। সুনামগঞ্জ-৪ আসনে জাতীয় পার্টির এমপি পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ গতকাল রবিবার থেকে ত্রাণ কার্যক্রম শুরু করেছেন। সুনামগঞ্জ-৫ আসনে আওয়ামী লীগের এমপি মুহিবুর রহমান মানিক গত বৃহস্পতিবার থেকেই এলাকায় ত্রাণ কার্যক্রম চালালেও সংসদের অধিবেশনে যোগ দিতে তিনি গতকাল ঢাকায় এসেছেন।

সিলেট-২ আসনে গণফোরামের এমপি মোকাব্বির খান দাবি করেছেন, তিনি ব্যক্তিগত উদ্যোগে শুক্রবার থেকে নির্বাচনী এলাকায় ত্রাণ কার্যক্রম শুরু করেছেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী দেওয়ান মো. শাহরিয়ার ফিরোজ বলেন, মন্ত্রী গতকাল সোমবার দেশে ফিরেছেন এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সিলেট সফরে যেতে পারেন। সুনামগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য জয়া সেনগুপ্তও এলাকায় যাননি। তবে অসুস্থতার কারণে নির্বাচনী এলাকায় যেতে না পারার জন্য দুঃখ প্রকাশ করে ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়েছেন। নেত্রকোনায় সদর আসনের সংসদ সদস্য আশরাফ আলী খান খসরু এবং আটপাড়া-কেন্দুয়ার সংসদ সদস্য অসিম কুমার উকিল এলাকায় অবস্থান করে দুর্গতদের সাহায্য সহযোগিতা করে যাচ্ছেন। এছাড়া দুর্গাপুর সংসদীয় আসন এলাকায় বন্যা হয়নি। আর কোনো মন্ত্রী বা সংসদ সদস্য এলাকায় যাননি।

যুক্তিসঙ্গত কারণ ছাড়া যেসব মন্ত্রী ও সংসদ সদস্য এখন পর্যন্ত দুর্গত এলাকায় পা রাখেননি তাদের সমালোচনা করেছেন সিলেটের বিশিষ্টজনরা।

সিলেট সুশাসনের জন্য নাগরিকের (সুজন) সভাপতি ফারুক মাহমুদ চৌধুরী এ বিষয়ে বলেন, তারা জনসেবা বাদ দিয়ে আত্মসেবায় নিয়োজিত আছেন। তারা ভুলে গেছেন যে, তারা জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন।

তিনি বলেন, আমি আশা করেছিলাম এই দুর্যোগপূর্ণ অবস্থায় জনপ্রতিনিধিরা তাদের নিজেদের বেতন ও ব্যক্তিগত খাতে বরাদ্দের টাকা বন্যার্তদের সহযোগিতায় দান করবেন। কিন্তু কেউই তা করেননি। এমন পরিস্থিতিতে মন্ত্রী ও এমপিরা দুর্গতদের কাছে ত্রাণ সহায়তা পৌঁছে দিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারেন। এই মুহূর্তে তাদের এটাই করা উচিত।

x

Check Also

একনেক

একনেকে অনুমোদিত হলো ১০ প্রকল্প

এমএনএ অর্থনীতি ডেস্কঃ ২ হাজার ২১৬ কোটি ৭৫ লাখ টাকা ব্যয়ে দশটি প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে ...

Scroll Up