Don't Miss
Home / বিনোদন / বলিউড / বলিউডে সোনাক্ষী সিনহার দাবাং টু আকিরা জার্নি

বলিউডে সোনাক্ষী সিনহার দাবাং টু আকিরা জার্নি

Sonakhsi-Sinha-6

এমএনএ বিনোদন ডেস্ক : এ মুহুর্তে বলিউডে যারা নিজের পোক্ত আসন গেড়েছেন তাদের মধ্যে অন্যতম হলেন জনপ্রিয় নায়িকা সোনাক্ষী সিনহা। তার ব্যক্তিগত জীবন ও বলিউড ক্যারিয়ার নিয়ে এ বিশেষ প্রতিবেদন তৈরি করেছেন মোসাম্মৎ সেলিনা হোসেন

একজন ফ্যাশন ডিজাইনার হিসেবে নিজের ক্যারিয়ার গড়তে চেয়েছিলেন তিনি। আর তাই এই বিষয়ে স্নাতকোত্তর করেছিলেন। মুম্বাইয়ের স্কুলের পড়াশোনা শেষ করে ফ্যাশন ডিজাইনিং নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন। পড়া চলাকালিন সময়েই কাজের দুনিয়ায় Sonakshi-Sinha-5নেমে পড়েন তিনি। কস্টিউম ডিজাইনার হিসেবে বলিউড পাড়ায় কাজ শুরু করেন সেই ২০০৫ সালে। একদিকে ধীরে ধীরে পড়াশোনা শেষ করেন আর অন্যদিকে কাজে নিজেকে ঝালাই শুরু করেন। এরই মধ্য ২০০৯ পর্যন্ত বিভিন্ন ফ্যাশন শোর র‌্যাম্পেও ঝলক দেখাতে শুরু করেন এই তরুণী। ২০১০ সালে সব একপাশে রেখে সালমান খানের প্রেমিকা হয়ে ‘দাবাং’ সিনেমা দিয়ে বলিউড পাড়ায় নায়িকা হিসেবে ঝলক মারেন এক নতুন নায়িকা। তিনি বর্তমান প্রজন্মের জনপ্রিয় নায়িকা সোনাক্ষী সিনহা।Sonakhsi-Sinha-1

১৯৮৭ সালের ২ জুন বলিউডের শক্তিশালী অভিনেতা শত্রুঘ্র সিনহার ঘরে জন্ম নেন সোনাক্ষী। ২০১০ সালের সালমান খানের বিপরীতে ‘দাবাং’ ছবির মধ্যে দিয়ে অভিষেক হয় সোনাক্ষীর। প্রথম ছবিতেই দর্শকদের মন জয় করে নেন এই গুণী অভিনেত্রী। সে বছর তার এই সিনেমা বলিউডের সর্ব্বোচ্চ ব্যবসাসফল ছবির মর্যাদা লাভ করে। এরপর একে একে ধরা দিয়ে থাকে সাফল্য। ক্যারিয়ারে যোগ হয় নতুন ছবি। দাবাং ২, লুটেরা, আর-রাজকুমার, তেভার, অ্যাকশন জ্যাকসন, রাউরি রাঠোর, হলিডে, সন অফ সর্দার, বুলেট Sonakshi-Sinha-12রাজা, বস, জোকার, ওয়ানস আপন এ টাইম ইন মুম্বাই দোবারা সহ আরও কিছু ছবিতে অভিনয় করে তাক লাগিয়ে দেন তিনি দর্শকদের। শ্রেষ্ঠ নারী অভিনেত্রী হিসেবে ফিল্মফেয়ারসহ অসংখ্য পুরস্কার লাভ করেছেন সোনাক্ষী। সব মিলিয়ে ক্যারিয়ারের উচ্চ অবস্থানে আছেন সোনাক্ষী। তবে মজার ব্যাপার হচ্ছে আলোচিত হলেও সবচেয়ে বাজে অভিনেত্রীর পুরস্কার লাভ করেছেন তিনবার।

বলিউডে আসার কথা না থাকলেও বর্তমানে বলিউড দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন এই অভিনেত্রী। তার নায়িকা সুলভ কোন গুণাবলী ছিল না বললেই হয়! ‘দাবাং’ এর আগে তার ওজন ছিল ৯০ কেজিরও বেশি। তবে তাকে দিয়ে প্রথম অভিনয় করার উৎসাহ দিয়েছিলেন সালমান। তিনি প্রথম শত্রুঘ্ন সিনহাকে বলেছিলেন যে সোনাক্ষীর মধ্যে ভালো নায়িকা হওয়ার সব রকম উপকরণ আছে। খালি রোগা হতে হবে তাকে। সালমানের বিশ্বাসের মূল্য দিয়েছেন সোনাক্ষী। আর তাই ‘দাবাং’ এ অভিনয় করার আগে প্রায় ৪০ কেজি ওজন কমিয়ে ফেলেন সোনাক্ষী। শুধু তাই নয়, দুর্দান্ত অভিনয় করে প্রথম ছবিতেই সেরা নবাগত অভিনেত্রীর খেতাব জিতে নেন তিনি।

শুধু অভিনয়ে নয়, গানের জগতেও নিজের নাম লিখিয়েছিলেন সোনাক্ষী। বছরের শুরুতে ‘ইশকোহলিক’ নামে একটা গান গেয়ে বলিউড দর্শক মাতিয়েছেন তিনি। সোনাক্ষী অবশ্য বরাবরই বলে এসেছেন, গান গাওয়াটাই নাকি তার প্রথম পছন্দ। এমনকি তিনি নাকি ক্যারিয়ার হিসেবে গানটাকেই বেছে নিতে চেয়েছিলেন! তাই বলে গানটাকে একেবারে দূরে সরিয়ে দেননি পর্দা কাঁপানো এই নায়িকা। মাঝে মাঝেই এক-দু’কলি গেয়েছেন নানান ছবিতে। সম্প্রতি এক পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানেও উপস্থিত সবাই শুনেছেন সোনাক্ষী সিনহার গান। আর এবার বলিউডে পুরো একটা গান গাইলেন তিনি নিজেই। সুযোগটা দিয়েছেন ভূষণ কুমার। মিট ব্রাদার্সের সুরে সোনা সম্প্রতি রেকর্ড করলেন ‘ইশকোহলিক’ নামের একটা গান। এছাড়াও ছোটদের গানের অনুষ্ঠান ‘ইন্ডিয়ান আইডল জুনিয়র’ এর বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।

Sonakshi-Sinha-10
নিজের ক্যারিয়ারে সাফল্যের পালক হিসেবে অভিনয় ও গানের অর্জন ছাড়াও আরেক বিরাট অর্জনের মালিক সোনাক্ষী। গিনেস বুকে নাম উঠিয়েছেন তিনি। এই বছরের ৮ মার্চ বিশ্ব নারী দিবসে এই রেকর্ড করেন এই নায়িকা। তার সঙ্গে ছিলেন আরও অসংখ্য নারী। তাদের নাম গিনেসে উঠেছে একসঙ্গে সব থেকে বেশি মানুষ নখে রং করেছেন বলে। এই প্রসঙ্গে সোনাক্ষী বলেছেন, ‘ছোট থেকেই শুনে আসছি, ইনি রেকর্ড করেছেন, উনি রেকর্ড ভেঙেছেন। এর নাম গিনেসে উঠেছে, ইত্যাদি। তখনই বুঝেছিলাম, গিনেস বুক-এ নাম ওঠা একটা বিশেষ সম্মান। কিন্তু আমি কখনও ভাবিনি যে, একদিন এমন একটি রেকর্ডের অংশ হব আমি’।

সেদিন মুম্বাইয়ের পেলাডিয়াম হোটেলে হাজির হন কয়েক হাজার নারী। একসঙ্গে বসে আঙ্গুলে পলিশ করে ‘মোস্ট পিপল পেন্টিং দেয়ার ফিঙ্গারনেলস সিমলট্যানিয়াসলি’ শীর্ষক প্রতিযোগিতায় রেকর্ড গড়ে গিনেজ বুক অব ওয়ার্ল্ডে নাম লেখান তারা। এ প্রতিযোগিতায় প্রধান প্রতিযোগী হিসেবে ছিলেন অভিনেত্রী সোনাক্ষী সিনহা। বিষয়টি নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপচারিতায় সোনাক্ষী সিনহা বলেন, ‘ছোটোবেলায় আমি অপেক্ষায় থাকতাম গিনেস বুকে কার নাম উঠছে তা জানার জন্য। ভাবতাম যদি আমার নামও উঠতো তাতে। বিশ্ব নারী দিবসের মতো বিশেষ দিনে আমার সেই ইচ্ছে পূরণ হয়েছে।’

Sonakshi-Sinha-9এবার সিনেমা প্রসঙ্গ। আগামী ২ সেপ্টেম্বর মুক্তি পেতে যাচ্ছে তার নতুন ছবি ‘আকিরা’। ‘দাবাং’ বা ‘লুটেরা’ থেকে একেবারেই ভিন্নধর্মী চলচ্চিত্র ‘আকিরা’। এই ছবিতে ব্যতিক্রমী চরিত্রে অভিনয় করেছেন বলিউডের গ্ল্যামার গার্ল সোনাক্ষী সিনহা। দূধর্ষ মারদাঙ্গা চরিত্রে দেখা যাবে তাকে। প্রতিটি দৃশ্যে তাকে নয়া রূপে আবিষ্কার করবেন দর্শকরা। যোধপুর থেকে মুম্বাই যাত্রা এবং তার পর মহানগরীর কলেজে সহপাঠীদের অত্যাচারের বিরুদ্ধে লড়াই ঘিরে ছবির গল্প।

সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে এ সম্পর্কে সোনাক্ষী বলেন, ‘আকিরা সিনেমার গল্পে র‍্যাগিংয়ের বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা Sonakhsi-Sinha-3পালন করেছে। আমার তখন শ্রীমতি নাথিবাঈ দামাদর ঠাকরেসে উইমেনস কলেজের র‍্যাগিংয়ের কথা মনে হচ্ছিল। আমাকে এর কবলে পড়তে হয়েছিল। এটি ছিল একটি মহিলা কলেজ। অবশ্য এটি বন্ধু তৈরির অন্যতম একটি পথও।’ তিনি আরো বলেন, ‘যারা আমাকে র‍্যাগ করেছিল এবং জুনিয়র যাদের আমি র‍্যাগ করেছিলাম এখনো তারা আমার ভালো বন্ধু। আমি মনে করি এটি সবসময় উপভোগ্য হওয়া উচিৎ এবং এটি যেন কোনো ছাত্র এবং শিশুর প্রতি মানসিক আঘাতের কারণ না হয়, সেদিকটাই Sonakshi-Sinha-8খেয়াল রাখতে হবে।’

গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অসামান্য অভিনয় করেছেন কঙ্কনা সেন শর্মা। আর একেবারেই ভিন্নধর্মী চরিত্রে অনুরাগ কাশ্যপের রূপদান দর্শক ও সমালোচকদের বাহবা কুড়াবে বলে দাবি, ‘আকিরা’-র নির্মাতাদের। ‘আকিরা’ সিনেমাটি পরিচালনা করছেন এ.আর. মুরুগাদোস।

বলিউড ইন্ডাস্ট্রির ‘সেলফি কুইন’ সোনাক্ষী সিনহা। আজ ‘দাবাং গার্ল’ সম্পর্কে এমন কিছু তথ্য জানবেন, যা অজানা ছিল ভক্ত দর্শকদের কাছে।

স্কুল শেষ করার পর ফ্যাশন ডিজাইনিং নিয়ে পড়াশোনা করেন মুম্বাইয়ের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে। গ্রাজুয়েশন শেষ করার পর কস্টিউম ডিজাইনার হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করেন সোনাক্ষী। ২০০৫ সালে ‘মেরা দিল লেকে দেখো’ নামে একটি সিনেমায় কস্টিউম ডিজাইনিং করেন শত্রুঘ্ন কন্যা। ২০১০ সালে ‘দাবাং’ ছবিতে প্রস্তাব পাওয়ার পর প্রায় ৩০ কেজি ওজন কমিয়েছিলেন সোনাক্ষী। আর প্রথম সিনেমাতেই দর্শকদের মন জয় করে নেন তিনি। আর তারপর থেকেই বলিউডের ‘দাবাং গার্ল’ হিসেবে পরিচিতি পান সোনাক্ষী। থাই এবং চাইনিজ খাবার পছন্দ তার। ফটোগ্রাফিও জানেন তিনি। নাচও তার অন্যতম প্রিয় বিষয়।পশু প্রেমী হিসেবে সোনাক্ষীর বেশ নামডাক আছে। কুকুর এবং বিড়াল সংরক্ষণে বেশ কিছু প্রশংসনীয় কাজও ইতিমধ্যে করে ফেলেছেন সোনাক্ষী। অর্জুন কাপুরের সঙ্গে সোনাক্ষীর সম্পর্কের কথা বি টাউনে বেশ আলোচিত হলেও বর্তমানে অর্জুনের সঙ্গে মুখ দেখাদেখিও বন্ধ তার। ফলে, সোনম কাপুরের সঙ্গে সম্পর্কেও সেই প্রভাব কিছুটা পড়েছে। তাই, এককালের প্রিয় বন্ধু সোনমকেও এখন বেশ কিছুটা এড়িয়েই চলেন সোনাক্ষী।

একসময় শহীদ কাপুরের সঙ্গে তার সম্পর্ক নিয়ে বেশ গুঞ্জন শোনা যায় বলিউডে। প্রভুদেবার ‘আর রাজকুমার’ ছবিতে অভিনয়ের সময় ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক তৈরি হয় সোনাক্ষী ও শহীদের মধ্যে। হলিউডের দুটি অ্যানিমেশন সিনেমার হিন্দি ভার্সনে কণ্ঠ দেন সোনাক্ষী। ছবির নাম ‘রিও’, ‘রাইজ অব দ্য গার্ডিয়ান’। শাড়ি পরতে ভালোবাসেন তিনি। তার পছন্দের রঙ হলুদ এবং সবুজ। মডেলিংয়ের মাধ্যমে বি টাউনে প্রবেশ করেন তিনি। ২০০৮ ও ২০০৯ সালে ল্যাকমে ফ্যাশন উইকে র‌্যাম্পে হাঁটেন তিনি। তারকা সন্তান হওয়া সত্ত্বেও তিনি সাধারণ জীবনযাপন করেন। সোনাক্ষী ট্রেন এবং অটোতে চলাফেরা করেন। বলিউডে একমাত্র নায়িকা ক্যাটরিনা কাইফের অন্ধ ভক্ত তিনি।

দেখে নিন সোনাক্ষী অভিনীত ‘আকিরা’ ছবির ট্রেলারটি-

ট্যাগ : সোনাক্ষী সিনহা, বলিউড, দাবাং, আকিরা, সালমান খান
x

Check Also

মালয়েশিয়া

মালয়েশিয়ায় যেকোন সময় জরুরী অবস্থা জারি

এমএনএ আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ মালয়েশিয়া কোভিড-১৯ ভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবেলায় যেকোন সময় জরুরী অবস্থা জারি করা হতে ...

Scroll Up
%d bloggers like this: