Don't Miss
Home / আজকের সংবাদ / চট্টগ্রাম টেস্টের চতুর্থ দিনে বাংলাদেশ চালকের আসনে

চট্টগ্রাম টেস্টের চতুর্থ দিনে বাংলাদেশ চালকের আসনে

এমএনএ খেলাধূলা ডেস্ক : এ টেস্ট জিততে হলে শেষদিনে টাইগারদের দরকার ৭ উইকেট। আর ক্যারিবীয়দের প্রয়োজন ২৮৫ রান। ৩৯৫ রানের চ্যালেঞ্জিং টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে, চতুর্থ দিনশেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১১০ রান। এর আগে ৮ উইকেটে ২২৩ রান করে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে বাংলাদেশ।

বন্দরের আবহাওয়া অনুকূলেই। প্রথম ইনিংসে ২৫৯ রানে অলআউট হওয়া দলটার সামনে শেষ ইনিংসে চারশ’ ছুঁই ছুঁই টার্গেট দিয়ে রেখেছে টাইগাররা।

ক্রেইগ ব্রাথওয়েটের দলের বিপক্ষে ব্যাটিংয়েও নেতৃত্ব দিয়েছেন অধিনায়ক মুমিনুল হক। সাগরিকায় আবারও হেসেছে তার ব্যাট। এই মাঠ যে ভীষণ প্রিয়। জহুর আহমেদের স্পিন সহায়ক উইকেটে হাত ঘোরান ক্যারিবীয় স্পিনাররা। পাল্লা দিয়ে রানের চাকা ঘোরান মুমিনুল। আগের দিন দ্রুত তিন উইকেট হারিয়ে ফেলা দলের ইনিংসটাকে, দশম টেস্ট সেঞ্চুরিতে টেনে নিয়েছেন অনেকটা পথ।

ক্যাপ্টেনের সঙ্গী লিটন দাস। চতুর্থ দিনের শুরুতে ব্যক্তিগত ১৮ রানে মুশফিক আউট হওয়ার পর জুটি বাঁধেন দু’জন।

লিটনের ষষ্ঠ ফিফটি থামে দলীয় ২০৬ রানে। ১৩৩ রানের জুটিতে তার অবদান ৬৯। ১১২ বলের ইনিংসে ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি না পাওয়ার আফসোস থাকতেই পারে।

১৮২ বলে ১১৫ রানের ইনিংস খেলে পরপরই ফেরেন মুমিনুলও।

লিডটাকে হয়তো চারশ’তে নেয়ার লক্ষ্য ছিলো। তবে, প্রথম ইনিংসের সেঞ্চুরিয়ান মিরাজ কিংবা তাইজুল দ্রুত আউট হলে, লক্ষ্য পূরণের আগেই ইনিংস ঘোষণার সিদ্ধান্ত নেয় ডমিঙ্গোর দল। ক্যারিবীয়দের দুই স্পিনার কর্নওয়াল আর ওয়ারিকান মিলে শিকার করেছেন স্বাগতিক ৬ ব্যাটসম্যানের উইকেট।

বড় টার্গেট সামনে। চতুর্থ দিনের শেষভাগে তবুও লড়াইয়ের চেষ্টায় সফররতরা। ক্যারিবীয়দের দৃঢ়তায় চিড় ধরাতে ব্যর্থ তাইজুল-নাঈম-মোস্তাফিজরা।

আবারও এগিয়ে আসেন মিরাজ। দলীয় ৩৯ রানে জন ক্যাম্পবেলকে ফিরিয়ে ওপেনিং জুটি ভাঙেন তিনি।

ম্যাচ জুড়ে খোশমেজাজে এই অলরাউন্ডার। দলীয় ৪৮’এ ব্রাথওয়েট আর ৫৯’এ শেইন মোসলেকে প্যাভিলিয়নে পাঠিয়ে সেটা যেনো আরও ভালোভাবে বুঝিয়ে দিলেন।

বাকি সময়টায় অবশ্য আর ফাঁদে পা দেয়নি ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ৫১ রানের জুটি গড়ে কাইল মেয়ার্স ৩৭ ও এনক্রুমা বোনার ১৫ রানে অপরাজিত আছেন। অনন্য এক রেকর্ড নিজের করে নিতে অপেক্ষা বেড়েছে মিরাজের। বিশ্বের চতুর্থ ক্রিকেটার হিসেবে একই ম্যাচে সেঞ্চুরি আর ১০ উইকেটের কীর্তি গড়তে আর যে প্রয়োজন ৩ উইকেট। বাংলাদেশের একজনেরই এই রেকর্ডটা আছে। নামটা অনুমিতই- সাকিব আল হাসান। ইনজুরি নিয়ে ডাগআউটে বসেই সতীর্থদের উইন্ডিজ বধের অপেক্ষায় মিস্টার সেভেন্টি ফাইভ।

x

Check Also

বাংলাদেশের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে (ওআইসি)

এমএনএ সংবাদ ডেস্ক :   জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দেওয়ায় বাংলাদেশের প্রতি পূর্ণ ...

Scroll Up